×
South Asian Languages:
অর্থনীতি 24 জানুয়ারী 2012
ওয়াশিংটনের ইরান বিরোধী রাজনীতি, যার প্রয়োগে সম্ভব হয়েছে ইরানের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক ও বিনিয়োগ সংক্রান্ত নিষেধাজ্ঞা গ্রহণ করা, তা এই দেশ ও তার খনিজ তেলের গ্রাহক দেশ গুলিকে এড়িয়ে যাওয়ার পথ খুঁজতে বাধ্য হতে. বিশদ করে লিখেছেন আমাদের সমীক্ষক গিওর্গি ভানেত্সভ.     ইরান বর্তমানে ২৫ লক্ষ ব্যারেলের বেশী খনিজ তেল রপ্তানী করে.
চিন, ভারত ও মালয়েশিয়ার জ্বালানী নিরাপত্তা ও ব্যবসায়িক স্বার্থের উপরে নতুন বিপদ ঘনিয়েছে. দক্ষিণ সুদান খনিজ তেল আহরণ বন্ধ করেছে সুদানের রপ্তানী বন্দরগুলির সাথে ট্রানজিটের প্রশ্নে সমাধান হয় নি বলে. চিনের জাতীয় খনিজ তেল কর্পোরেশন (চায়না ন্যাশনাল অফশোর অয়েল কর্পোরেশন), মালয়েশিয়ার পেত্রোনাস কোম্পানী ও ভারতের অয়েল অ্যান্ড ন্যাচরাল গ্যাস কর্পোরেশন গত বছরের হেমন্ত কাল থেকেই ক্ষতিগ্রস্ত হতে শুরু করেছিল.
গতকাল বিশ্বের সর্বত্র পেট্রোলের দাম বেড়েছে. ইউরোপীয় সংঘ ইরান থেকে খনিজতেল আমদানীর উপর নিষেধাজ্ঞা জারী করার পরিপ্রেক্ষিতেই এটা ঘটেছে. নিউ-ইয়র্কের স্টক এক্সচেঞ্জে আমেরিকার ডব্লু.টি.আই মার্কা পেট্রোলের ফিউচার্সের দাম বেড়ে ব্যারেল প্রতি ৯৯,৫৮ ডলারে গিয়ে পৌঁছেছে.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জানুয়ারী 2012
ঘটনার সূচী
জানুয়ারী 2012
1
2
4
7
8
9
10
12
25
29