×
South Asian Languages:
অর্থনীতি জানুয়ারী 2011
২০১০ সালে দেশের সোনা ও বিদেশী মুদ্রা ভান্ডারের জন্য রাশিয়া সোনা কোনার বিষয়ে রেকর্ড করেছে. মূল্যবান এই ধাতুর সঞ্চয় বর্তমানে প্রায় একের তৃতীয়াংশ বেড়ে ৭৮৪ মেট্রিক টনের বেশী হয়েছে. এই রকমের গতিতে রাশিয়া বর্তমানে সারা বিশ্বের মধ্যে অষ্টম স্থানে রয়েছে ও এই সঞ্চয় শুধু সোনার জমা পরিমানেই রাশিয়াকে বিশ্বের এক নম্বর নেতৃত্ব স্থানীয় দেশে পরিনত করতে পারে.
রাশিয়া ও ভারতের ব্যবসায় রাশিয়ার নেতৃত্বের কাছ থেকে যৌথ উদ্যোগের জন্য বড় সাহায্য পেতে চলেছে. এই বিষয়ে ঘোষণা করেছেন রাশিয়ার উপ প্রধানমন্ত্রী সের্গেই ইভানভ, ভারতীয় ব্যবসায়ীদের এক প্রতিনিধি দলের সঙ্গে সাক্ষাত্কারের সময়ে. "আমরা ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের কাছ থেকে নির্দিষ্ট বিষয়ে প্রকল্পের প্রস্তাব তৈরী করে পেশ করা দরকার বলে মনে করছি, যাতে সেগুলি বাস্তবায়িত করা সম্ভব হয়" – তিনি বলেছেন.
বিশ্ব বানিজ্য সংস্থায়( ডব্লিউটিও) মস্কোর যোগদান বিষয়ে ওয়াশিংটনের সাথে আলোচনায় আশানুরুপ অগ্রগতি হয়েছে.বানিজ্য সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে দুইটি দেশের মধ্যে আলোচনা শেষে শনিবার যুক্তরাষ্ট্র সরকারের মূখপাত্র রন কির্ক এই কথা বলেন.
মিসরে চলমান অস্থিতিশীল পরিস্থিতির কারণে বিশ্ব বাজারে তেল ও সোনার দাম বৃদ্ধি পেয়ছে.নিউইয়র্ক শেয়ার বাজারে শুক্রবার বেচাকেনার শেষে তেলের দাম ব্যারেল প্রতি ৮৯ মার্কিন ডলারে উন্নীত হয় এবং সোনার দামও ১.৪ শতাংশ বৃদ্ধি পায়.বিশ্বের নামিদামী কোম্পানী যেমন-ফোর্ড,মাইক্রোসফট ও আমাজানের লভ্যাংশের পরিমান হ্রাস পাওয়াকে বিশেষজ্ঞরা মূল্যবৃদ্ধির কারণ হিসাবে উল্লেখ করেছেন.  
মস্কো শহরের মেয়র সের্গেই সবিয়ানিন আজ ভারতের আনন্দ শর্মার সঙ্গে দাভোস বিশ্ব অর্থনৈতিক অধিবেশনে যোগ দিতে এসে আলোচনা করেছেন. দুই পক্ষই উদ্ভাবনী প্রযুক্তি বিষয়ে পারস্পরিক সহযোগিতা নিয়ে কথা বলেছেন, তাছাড়া ফার্মাসিউটিক্যাল ও কৃষি জাত পণ্য বিষয়েও সহযোগিতা সম্বন্ধে আলোচনা হয়েছে – মস্কোতে মেয়রের তথ্য ও জনসংযোগ দপ্তর এই খবর দিয়েছে.
২০০৮ – ২০০৯ সালের বিশ্ব অর্থনৈতিক সঙ্কটের দায় বর্তান উচিত্ মার্কিন প্রশাসন ও বড় কর্পোরেশন গুলির নেতৃত্বের উপরে. এই রকমের সিদ্ধান্ত আমেরিকার কংগ্রেসের উদ্যোগে গঠিত দুই দলের সদস্যদের সঙ্কট অনুসন্ধান সম্বন্ধে গঠিত পরিষদ তার রিপোর্টে লিখেছে.
দেশে বিদেশী বিনিয়োগের বন্যা আনার জন্য রাশিয়ার প্রতিনিধি দলের দাভোস বিশ্ব অর্থনৈতিক অধিবেশনে যোগ দেওয়া সফল হতে পারে. এই ধারণা ইতার – তাস সংবাদ সংস্থাকে প্রকাশ করেছেন স্কোলকোভো শহরের আধুনিক প্রযুক্তি কেন্দ্রের আধুনিক প্রযুক্তি ও তার ব্যবসায়িক ব্যবহারের উন্নয়ন তহবিলের প্রধান ভিক্তর ভেক্সেলবের্গ.
ব্লুমবর্গ টেলিভিশন চ্যানেলে একটি সাক্ষাত্কারে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ এই ঘোষণা করেছেন. তিনি স্বীকার করেছেন যে, দেশের সমস্ত স্তরে দুর্নীতি প্রবেশ করেছে বাজার অর্থনীতি ও রাজনৈতিক ব্যবস্থার পরিবর্তন করার পর, দুঃখের কথা হল রাশিয়ার সরকারি কর্মচারী ও ব্যাবসাদারেরা সভ্য সমাজের উপযুক্ত আলোচনার জন্য তৈরী নয় – বলেছেন মেদভেদেভ. রাশিয়ায় দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে.
চলতি বছরেই রাশিয়ার বিশ্ব বানিজ্য সংস্থার(ডব্লিউটিও)সদস্য রাষ্ট্র হওয়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে.টেলিভিশন চ্যানেল “রাশিয়া” কে দেওয়া সাক্ষাত্কারে এসবের বাংকের মহাব্যাবস্থাপক গেরমান গ্রেফ এ কথা বলেন.তিনি একই সাথে প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভের দাভোসে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামে দেওয়া বক্তব্যের সাথে একমত প্রকাশ করে বলেন,রাশিয়া অনেক পূর্বেই বিশ্ব বানিজ্য সংস্থার সদস্য হওয়ার জন্য তৈরী ছিল.
রুশ প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভ বুধবার দাভোসের বিশ্ব অর্থনৈতিক সম্মেলনে রাশিয়ার অর্থনীতিতে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আকর্ষনে রাষ্ট্রের নেওয়া পদক্ষেপ বর্ননা করেন.তার ভাষায়,খুব শিঘ্রই বিদেশি বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহনে বিশেষ তহবিল গঠনের চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে.
২৫ জানুযারী,মঙ্গলবার বিশ্ব জ্বালানী তেলের আন্তর্জাতিক মূল্য আবারও হ্রাস পেয়েছে.নিউইয়র্কের স্টক বাজারে দিন শেষে ব্যারেলপ্রতি তেলের দাম ১.৬৮ মার্কিন ডলার হ্রাস পায় এবং মূল্য দাড়ায় ৮৬.১৯ ডলার.অপরদিকে লন্ডনের আটলান্টিক স্টক বাজারে তেলের দাম ১.৩৬ ডলার হ্রায় পেয়ে মূল্য দাড়ায় ৯৫.২৫ মার্কিন ডলার.  
বিশ্ব অর্থনৈতিক অধিবেশনের আগে রাশিয়ার শেয়ার বাজার তার ইতিহাসে সবচেয়ে বেশী বিদেশী বিনিয়োগ আনতে পেরেছে. আন্তর্জাতিক সংস্থা এমারজিং পোর্টফোলিয়ো ফান্ড রিসার্চ দেওয়া তথ্য অনুযায়ী গত সপ্তাহে প্রায় ৭২ কোটি চল্লিশ লক্ষ ডলার  - যা বিশ্ব অর্থনৈতিক সঙ্কট শুরু হওয়ার পরে সবচেয়ে বেশী, তা রাশিয়ার শেয়ার বাজারে বিদেশ থেকে বিনিয়োগ করা হয়েছে.
রাশিয়া আগামী ২০১২ সালের মধ্যে বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা কাটিয়ে উঠতে পারবে.রাশিয়ার প্রথম উপ-প্রধানমন্ত্রী ইগর শুভালোভ টেলিভিশন চ্যানেল রাসিয়া’কে দেওয়া সাক্ষাত্কারে এ কথা জানান.অর্থনৈতিক মন্দা কাটিয়ে ওঠার সংকেত আশানুরুপ এবং আমরা ২০১২ সালের মধ্যে অর্থনৈতিক মন্দা পুরোপুরি কাটিয়ে উঠতে পারব.
প্রাকৃতিক দূর্যোগ স্বত্বেও বিশ্ব খাদ্য রপ্তানী বাজারে রাশিয়ার প্রধান দেশ হওয়ার যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে.রাশিয়ার ও বিদেশি অনেক বিশেষজ্ঞরাই এমন অভিমত ব্যক্ত করেছেন. বার্লিনে চলমান ‘সবুজ সপ্তাহ’ কৃষি প্রদর্শনীতে রাশিয়ার ব্যাপক অংশগ্রহন এই সম্ভাবনারই প্রতিফলন ঘটায়.এই প্রদর্শনীতে রাশিয়ার প্রায় ৩০টি অঞ্চলের কৃষি কোম্পানীসমূহ অংশ নিয়েছে. বিশেষজ্ঞরা বলেন যে,রাশিয়ার রয়েছে যথেষ্ট সম্ভাবনা.
আন্তর্জাতিক জ্বালানী সংস্থা নিজেদের মূল্যায়ণ অনুযায়ী ঘোষণা করেছে যে, আগামী আড়াইশো বছরের মত প্রাকৃতিক গ্যাস বিশ্বে রয়েছে. এই রিপোর্টে বলা হয়েছে বর্তমানে মাটির গভীর থেকে প্রাকৃতিক খোসার মধ্য থেকে গ্যাস উত্পাদনের আধুনিক প্রযুক্তি গ্যাস সংক্রান্ত শিল্পের সম্ভাবনা কে বাড়িয়ে দিয়েছে.
রাশিয়ার আর্কটিক শেল্ফ অঞ্চলে জ্বালানী অনুসন্ধানের সর্বনিম্ন মূল্য হবে ১০০ কোটি ডলার, জানিয়েছেন “ রসনেফত ” কোম্পানির ভাইস-প্রেসিডেন্ট পিটার ও ’ ব্রায়ান. বাস্তবিকপক্ষে খরচ হবে আরও বেশি. অনুসন্ধানের এলাকা অধ্যয়নের জন্য ৫-৭ বছর লাগবে. রাশিয়ার “ রসনেফত ” এবং ইংল্যান্ডের “ বি.পি ” কোম্পানি রাশিয়ার আর্কটিক শেল্ফ অঞ্চল মিলিতভাবে আয়ত্ত করার ব্যাপারে সমঝোতায় এসেছে.
আমেরিকার প্রভাবশালী অর্থনীতিবিদ জিম ও নিল, যিনি ব্রিক (ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চিন) সংক্ষিপ্ত শব্দ টির এক স্রষ্টা, তিনি এক নতুন উদ্যোগ নিয়েছেন. তিনি এই দ্রুত উন্নতিশীল বিশ্ব অর্থনীতির দেশ গুলির সঙ্গে যোগ করতে চেয়েছেন মেক্সিকো, দক্ষিণ কোরিয়া, তুরস্ক ও ইন্দোনেশিয়া দেশ কে. ব্রিক কে প্রসারিত করার ধারণা অনেক দিন হল রয়েছে.
বিগত বছরে বিশ্বে অস্ত্র রপ্তানী ঐতিহাসিক ভাবে সবচেয়ে বেশী পরিমানে প্রায় ৭১ বিলিয়ন ডলার অতিক্রম করেছে. ঠাণ্ডা যুদ্ধ শেষ হওয়ার পর থেকে এটা রেকর্ড. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পরই রাশিয়া এই ক্ষেত্রে পরিমানের দিক থেকে রয়েছে – গত বছরে অস্ত্র ও সামরিক প্রযুক্তি সরবরাহ করা হয়েছে প্রায় ১০ বিলিয়ন ডলার মূল্যের. এই তথ্য দিয়েছে বিশ্বের অস্ত্র বাণিজ্য পরিসংখ্যান কেন্দ্র থেকে.
দ্রুত পরিবর্তন শীল বিশ্ব জ্বালানী শক্তি বাজার রাশিয়ার পক্ষ থেকে এতদিন ধরে চলে আসা লক্ষ্য পাল্টানোর দাবী করেছে. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভের দাবী অনুযায়ী, দেশের সরকার এই বছরের শেষের মধ্যেই শক্তি নিরাপত্তা নীতি সংশোধন করে প্রস্তাব করবে. এই দলিলের প্রধান বিভাগ গুলি এর মধ্যেই নির্দিষ্ট করা হয়েছে. শক্তি নিরাপত্তা – বর্তমানে বিশ্বের সর্বত্রই খুবই গুরুত্ব সহকারে আলোচনা করা হচ্ছে.
মস্কো আন্তর্জাতিক মূদ্রা কেন্দ্র গঠনের ক্ষেত্রে আরও একধাপ এগিয়ে গেল.আন্তর্জাতিক মূদ্রা কেন্দ্র(ইফিসে)প্রতিষ্ঠা সংক্রান্ত কার্যকরী কমিটির প্রধান আলেক্সান্দার ভালোশিন কেন্দ্র গঠনের জন্য প্রকল্প উন্নয়ন কার্যক্রমে যাদের সহযোগিতা নেওয়া হবে তাদের নাম বর্ননা করেন. প্রকল্প উন্নয়নের কাজে বিশ্বের প্রধান সারির মূদ্রা সংস্থাগুলোকে নেওয়া হয়েছে.
‘রসনেফট’ ও যুক্তরাজ্যভিত্তক কোম্পানী ‘ব্রিটিশ প্রেট্রোলিয়াম’(বিপি) যৌথভাবে রাশিয়ার আর্টিক উপকূলে তেল উত্তলনে কাজ করবে.রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমীর পুতিন এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন.জ্বালানি তেল ও গ্যাস সমৃদ্ধ ঐ এলাকা থেকে রসনেফট ও বিপি যথাক্রমে ৫ বিলিয়ন টন তেল ও ১০ ট্রিলিয়ন কিউবিক মিটার গ্যাস উত্তলনের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছে.
তেলের মূল্য বৃদ্ধি- পরপর চতুর্থ দিন- বিশ্ব বাজারে বৃহস্পতিবার রেজিস্ট্রিকৃত হয়েছে. নিউ-ইয়র্কের স্টক মার্কেটে এক ব্যারেল তেলের মূল্য ৩৩ সেন্ট বেড়েছে এবং দাঁড়িয়েছে ৯২.১৯ ডলারে. লন্ডন্ আন্তর্মহাদেশীয় স্টক মার্কেটে তেলের মূল্য ৩৮ সেন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৮.৫০ ডলারে. অ্যাটলান্টিকের উভয় দিকে তেলের মূল্য বেড়েছে মুদ্রার বাজারে ইউরো-র বিনিময় হার দৃঢ় হওয়ার পটভূমিতে.
বিশ্বের অর্থনীতি ধীরে হলেও স্থিতিশীল ভাবেই উন্নতি করছে. আর যদিও এর সূচক গুলি এখনও যথেষ্ট স্থিতিশীল নয়, তবুও বিশ্ব অর্থনৈতিক সঙ্কট কাটিয়ে ওঠার চিহ্ন স্পষ্ট দেখতে পাওয়া যাচ্ছে. "২০১১ সালের বিশ্ব অর্থনীতির সম্ভাবনা" সংক্রান্ত বিশ্ব ব্যাঙ্কের রিপোর্টে এই কথাই সিদ্ধান্ত হিসাবে বলা হয়েছে.
এ বছরে পৃথিবীতে অর্থনৈতিক বৃদ্ধির লীডার হতে পারে চীন ও ভারত, এবং ব্রিক সংস্থায় তাদের শরিকরা- রাশিয়া ও ব্রেজিল. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে বিশ্ব ব্যাঙ্কের বিশ্লেষণমূলক রিপোর্টে, যা বুধবার ওয়াশিংটনে প্রকাশিত হয়েছে. বিশ্ব ব্যাঙ্কের বিশেষজ্ঞরা আশা করেন ২০১১ সালে মোট আভ্যন্তরীন উত্পাদন বাড়বে চীনে ৮.৭ শতাংশ, ভারতে- ৮.৪ শতাংশ, রাশিয়ায়- ৪.০ শতাংশ এবং ব্রেজিলে- ৪.২ শতাংশ.
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ পারমাণবিক ক্ষেত্রে রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতার রাজনৈতিকরণ এড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন. মঙ্গলবার উভয়পক্ষের নোট-বিনিময় হয়েছে, যা পারমাণবিক ক্ষেত্রে রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মাঝে চুক্তির অনুমোদন সংক্রান্ত দু বছরব্যাপী কাজের সমাপ্তি ঘটিয়েছে, রাষ্ট্রপতির কাছে রিপোর্টে বলেছেন “রসআতোম” সংস্থার নেতা সের্গেই কিরিয়েনকো.
ভারত তেহেরানকে প্রস্তাব করেছে ইরানী তেল সরবরাহের হিসেব ইউরো, জাপানী ইয়েন এবং সংযুক্ত আরব এমীরতন্ত্রের দির্হাম মুদ্রায় করার. এ সম্বন্ধে মঙ্গলবার প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, দিল্লিতে বলেছেন ভারতের অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি. তাঁর কথায়, আগামী শুক্রবার তত্সংক্রান্ত আলাপ-আলোচনা চালানোর জন্য তেহেরানে রওনা হবে ভারতীয় প্রতিনিধিদল, যা অর্থ মন্ত্রণালয় ও কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের প্রতিনিধিদের নিয়ে গঠিত.
রাশিয়ার “গাজপ্রোম” কোম্পানি ভারতে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস সরবরাহ সম্বন্ধে সমঝোতায় এসেছে. রাশিয়ার “গাজপ্রোম মার্কেটিং অ্যান্ড ট্রেডিং” কোম্পানি (GM&T) এবং ভারতের “গুজরাট স্টেট পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন” তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস কেনা-বেচার চুক্তি স্বাক্ষর করেছে. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে রাশিয়ার কোম্পানির খবরে.
ঢাকার স্টক মার্কেটে প্রধান সূচকের তীব্র হ্রাসের পরে বাংলাদেশের রাজধানীতে ব্যাপক বিশৃঙ্খলা ঘটেছে. হাজার হাজার বিনিয়োগী এবং ব্রোকার কোম্পানির কর্মী কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ক্ষতিপুরণের দাবিতে শহরের কেন্দ্রাঞ্চলে রাস্তায় বের হয়. তারা মোটরগাড়ি ভাঙে এবং পুড়িয়ে দেয়, সরকারবিরোধী স্লোগান তোলে. বাংলাদেশে স্টক মার্কেটের কাজ স্থগিত রাখা হয়েছে. সম্প্রতিকালে এটি এ ধরণের দ্বিতীয় মিছিল.
২০১০ সালে রাশিয়াতে শিল্পোত্পাদনের পরিমানে উন্নতি হতে চলেছে গত ২০০৯ সালের তুলনায় শতকরা সাড়ে আট ভাগ. কিছুটা কম হতে চলেছে জাতীয় সার্বিক উত্পাদন – প্রায় চার শতাংশ. এই ধরনের তথ্য থেকে বোঝা সম্ভব হয়েছে যে, দেশের অর্থনীতিতে ইতিবাচক গতি এসেছে ও বিনিয়োগ ব্যবস্থায় স্থিতিশীলতা রয়েছে.
গ্যাসের পাইপলাইন “নাবুক্কো”-র প্রধান সমস্যা হল –গ্যাস পরিপুরণের সুনিশ্চিতি. এ সম্বন্ধে বলেছেন রাশিয়ার “গাজপ্রোম” কোম্পানির নেতা আলেক্সেই মিল্লের, জার্মান “শ্পিগেল” পত্রিকাকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে. তাঁর কথায়, “নাবুক্কো” প্রকল্পের অংশগ্রহণকারীরা এখনও পর্যন্ত জ্বালানীর প্রয়োজনীয় উত্স খুঁজে পায় নি.
১৯৯১ সালের পরে এই প্রথমবার দিনে গড়ে প্রায় এক কোটি ব্যারেল খনিজ তেলের বেশী তেল নিষ্কাশন করা সম্ভব হয়েছে. এই বিষয়ে রবিবারে "ব্লুমবর্গ" ব্যবসা সম্পর্কিত সংবাদ সংস্থা সরকারি তথ্যের উত্স উল্লেখ করে প্রচার করেছে. এই কারণে রাশিয়া বিগত বছরে বিশ্বের সবচেয়ে বেশী খনিজ তেল উত্পাদন কারী দেশ হয়েছে.
গমের মত ময়দা রপ্তানীর উপরেও রাশিয়া ১৫ই আগষ্ট থেকে নিষেধ আরোপ করেছিল, ১লা জানুয়ারী থেকে সেই বাধা দূর হল. গম সমেত বেশ কয়েকটি দানা শষ্যের উপরে গত বছরে প্রচণ্ড গরমের ফলে কম শষ্য হওয়ায় এই নিষেধ জারী করা হয়েছিল. প্রথমে ৩১ শে ডিসেম্বর অবধি জারী করা হলেও পরে তা বাড়িয়ে ৩০ শে জুন ২০১১ সাল অবধি করা হয়েছে.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জানুয়ারী 2011
ঘটনার সূচী
জানুয়ারী 2011
2
6
7
8
9
10
16
20
25
26