×
South Asian Languages:
রাজনীতি

ভারতের বেশ কয়েকটি মুখ্য রাজ্যে ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল দিল্লীতে ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস দলের খুবই অপমানজনক পরাজয়ের পরে দলের রাজনৈতিক পরিকল্পনা, যা রাহুল গান্ধী ঘোষণা করেছেন, তা হয়েছে প্রথম প্রসারিত ভাবে প্রচার করা প্রতিক্রিয়া.

ডিসেম্বরে হয়ে যাওয়া বিধানসভা নির্বাচন গুলোকে ২০১৪ সালের মে মাসে লোকসভা নির্বাচনের প্রধান মহড়া বলে হিসাবের মধ্যে আনলে, অনেকেই ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস দলের এই ধরনের অতলে তলিয়ে যাওয়াকে সেই বিষয়েরই প্রমাণ বলে মনে করেছেন যে, ভারতের সবচেয়ে পুরনো রাজনৈতিক দলের আরও একটি শাসনকালের শেষ অনিবার্য ও তা এবারে ইতিহাসে পর্যবসিত হতে চলেছে. কিন্তু রাহুল গান্ধী, যিনি জানুয়ারী মাসের মাঝামাঝি ক্ষমতাসীন দলের অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী পদের মুখ্য পদপ্রার্থী বলে নির্বাচিত হতে চলছেন, তিনি বুঝতে দিয়েছেন যে, ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস ইতিমধ্যেই স্বল্পকাল আগের ধাক্কা থেকে সামলে নিয়েছে ও তৈরী হয়েছে এবারে নিজেদের প্রতিদ্বন্দ্বীদের একটা লড়াই দেওয়ার জন্য.

২০১৩ সালের শেষ বঙ্গোপসাগরে ভারতের একসারি সামরিক কাজকর্ম দিয়ে চিহ্নিত করা হয়েছে. “অগ্নি-৩” রকেটের উড়ান আর জাপান – ভারত সম্মিলিত সামুদ্রিক মহড়া – শুধু এই সবেরই কয়েকটা উদাহরণ হতে পারে. এটা কোন দ্ব্যর্থ না রেখেই বলা যেতে পারে যে, ভারত শুধু এখন সমুদ্র তীরে কোন রকমের আক্রমণ প্রতিহত করতেই সক্ষম নয়, বরং অনেক উচ্চাকাঙ্ক্ষাও পোষণ করেছে, যা তাদের সমুদ্র সীমা থেকে অনেক দূরের এলাকায় বর্তমানে তৈরী হয়েছে. বাস্তবে ভারতের সামরিক –সামুদ্রিক ক্ষমতা বৃদ্ধি করা বহু রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের সেই তত্ত্বকেই প্রমাণ করে দেয় যে, ভারত ও প্রশান্ত মহাসাগর ইতিমধ্যেই একটি সম্পূর্ণ মহাসাগরে পরিণত হতে চলেছে – যাকে বলা যেতে পারে ভারত- প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকা.

সিরিয়া সঙ্কট সমাধানের জন্য “জেনেভা – ২” আন্তর্জাতিক সম্মেলনের শুরু হতে আর এক মাসের কম সময় রয়েছে. কিন্তু এখনও কারা অংশগ্রহণ করবে তা ঠিক হয় নি. বিরোধী পক্ষ ঠিক করে উঠতে পারছে না সুইজারল্যান্ডে কি নিজেদের প্রতিনিধি দল পাঠানো হবে, আর তা যদি হয়, তবে ঠিক কাকে. আর ইরানের যোগদান নিয়ে রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এখনও সমঝোতায় পৌঁছতে পারছে না.

২০১০ সালের ২৪শে ডিসেম্বর টিউনিশিয়ার সিদি-বুজিদে প্রথম বেন আলির প্রশাসনের বিরুদ্ধে গণ অভ্যুত্থান ঘটেছিল, যা “আরব বসন্তের” শুরু করেছিল. হাতে গোনা কয়েক সপ্তাহের মধ্যে উত্তর আফ্রিকায় দুটি প্রশাসনকে জনতার ঝড় ধুয়ে দিয়েছিল, যে দুটিই বহুদিন ধরে পশ্চিমের খুবই ভরসার জোটসঙ্গী হয়ে ছিল.

তারপরে ঘটনাচক্র দিক পরিবর্তন করেছে, আর ছড়িয়ে পড়েছে সেই সমস্ত দেশের উপরে, যাদের বেন আলির টিউনিশিয়া বা হোসনি মুবারকের ইজিপ্টের সঙ্গে খুব কমই অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক দিক থেকে মিল ছিল. “আরব বসন্ত” তারপরে ১৮০ ডিগ্রী দিক পরিবর্তন করেছে.

দুই দেশের ব্যবসায়ী মহলকে চিন্তিত করে তুলেছে ভারত ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের মধ্যে এক শোরগোল তোলা কূটনৈতিক স্ক্যান্ডাল, যা দিয়ে ২০১৩ সাল শেষ হতে চলেছে. কিছু ব্যবসায়ী ইতিমধ্যেই মনমোহন সিংহের প্রশাসনকে আহ্বান করেছেন ঘুমন্ত সিংহকে না জাগাতে ও সাবধান করে দিয়েছেন যে, এভাবে চললে ভারত আমেরিকার ও পশ্চিমের বিনিয়োগকারীদের হারাতে পারে. ফলে আগে ঘোষণা করা ২০১৭ সালে দেশে এক লক্ষ কোটি বিদেশী ডলার বিনিয়োগ টেনে আনার লক্ষ্য অধরাই থেকে যেতে পারে.

গতপ্রায় বছরে রাশিয়ায় সবচেয়ে আলোচিত নতুন আইন ছিল খোলা জায়গায় ধুমপান নিষিদ্ধ করা নিয়ে. ইয়ানডেক্স সাইটের সার্চ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী গত এক সপ্তাহে ২৫০ ০০০ ইন্টারনেট-ব্যবহারকারী এই প্রসঙ্গ নিয়ে খোঁজ নিয়েছেন. তারা সবাই কিন্তু ধুমপানাসক্ত নন. এক কথায় বলতে গেলে, দেশবাসী মনোযোগ সহকারে নতুন আইনটা পড়ে দেখলো, তার মানে এই নয় যে, সবাই নতুন আইনটাকে সমর্থন করলো.

লমনোসভ নামাঙ্কিত মস্কো রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় ব্রিকস রাষ্ট্রগুলির মধ্যে সেরা ১০০টি উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের রেটিংয়ে তৃতীয় স্থান পেয়েছে. প্রথম একশটির মধ্যে রাশিয়া থেকে প্রায় কুড়িটি উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে. ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চিন ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে নিয়ে এই তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে, আর তার মূল্যায়ণ করা হয়েছে, সেই পদ্ধতি অনুসারে, যা বিশ্বের সমস্ত উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিকে মূল্যায়ণ করার জন্য QS রেটিংয়ে ব্যবহার করা হয়ে থাকে.

তাজিকিস্তানের সত্তর ভাগের বেশী নাগরিক প্রজাতন্ত্রের পক্ষ থেকে প্রথমে শুল্ক সঙ্ঘে ও পরে ইউরো-এশিয়া সঙ্ঘে যোগ দিতে চেয়েছেন. এই ধরনের তথ্য প্রকাশ করেছেন সমাজতত্ত্ববিদরা. কিন্তু দুশানবের প্রাক্তন সোভিয়েত দেশের পুরনো সহকর্মীদের সঙ্গে সংযুক্ত হওয়ার প্রক্রিয়া এখন বহু বছরের জন্যই পিছিয়ে যেতে পারে. এই ধরনের একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন সমস্ত বিশেষজ্ঞরাই, যারা যোগ দিয়েছিলেন “রাশিয়া ও মধ্য এশিয়ার রাষ্ট্রগুলি: ইউরো-এশিয়া সমাকলনের অর্থনৈতিক ও মানবিক বিষয় সমূহ” নামের এক আলোচনা চক্রে.

প্রথম থেকে শেষ অবধিই অসম্ভব ঠেকেছে নিউইয়র্ক শহরে ভারতের ডেপুটি কনসাল জেনারেল দেবযানী খোবরাগাদে আচমকা গ্রেপ্তার হওয়া আর তারপরে জেলবন্দী থাকার ঘটনা. উচ্চপদস্থ এই কূটনীতিবিদকে অপমানজনক ভাবে খানাতল্লাশী করা হয়েছে ও তারপরে নানারকমের অপরাধী ও মাদকাসক্তদের সাথে একত্রে কারাবাসে বাধ্য করা হয়েছে. এই কাজ দিয়েই খুব নোংরা ভাবে বিদেশে রাষ্ট্রের প্রতিনিধি সংক্রান্ত ১৯৬৩ সালের ভিয়েনা কনভেনশন ভঙ্গ করা হয়েছে, যে দলিলে স্পষ্ট করেই লেখা রয়েছে কূটনীতিবিদদের অনাক্রম্যতা নিয়ে.

পশ্চিমে বর্তমানে একটা ধারণা তৈরী হয়েছে যে, বাশার আসাদের শক্তি জয়ী হওয়া – সিরিয়াতে সম্ভাব্য সমস্ত ঘটনা পরম্পরার মধ্যে সবচেয়ে ভাল. ইউরোপীয় ও আমেরিকার সরকারি নেতারা আপাততঃ সরাসরি এই বিষয়ে কথা বলছেন না, কিন্তু সিরিয়ার বিদ্রোহীদের দিকে সহায়তা ক্রমশ কমিয়ে দিচ্ছে. তারই মধ্যে দামাস্কাস পরিকল্পিত ভাবেই নিজেদের রাসায়নিক অস্ত্রের ভাণ্ডার ধ্বংস করার কাজ করে চলেছে. এই প্রক্রিয়া নিরাপদে করার কাজে সাহায্যের আশ্বাস তাদের দিয়েছে রাশিয়া.

রাশিয়ায় আসা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা এজেন্সির প্রাক্তন কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেনের ভাগ্য বিশ্ব প্রচার মাধ্যমের মনোযোগের কেন্দ্রস্থলে রয়েছে.

২০১৩ সালে রাশিয়ার কের্লিং খেলার ১৪০ বছর পূর্ণ হচ্ছে, আর রাশিয়াতে যারা শীত কালের খেলাধূলা পছন্দ করেন, তাদের মধ্যে এখনও কিছুটা সন্দেহের চোখেই এই খেলাকে দেখা হয়েছে. এটা অনেক ক্ষেত্রেই ব্যাখ্যা করা যেতে পারে একসারি গেড়ে বসা ধারণার জন্যই.

অনেকেই মনে করেন যে, কের্লিং বুঝি একটা নতুন খেলা ও খুবই আধুনিক কিছু. আর এটাই খুব বড় ধরনের একটা ভুল বোঝা. বাস্তবে কের্লিং – একটা প্রাচীনতম খেলা. এটা প্রমাণ করেছে স্কটল্যান্ডের এক হ্রদের তলায় পাওয়া একটি পাথর, যা আকৃতি ও ওজনে কের্লিং খেলার উপযুক্ত পাথর. তার উপরে খোদাই করা আছে ১৫১১, এখন এটাকেই মনে করা হয়ে থাকে এই খেলার উদ্ভবের সময় বলে.

সিরিয়াতে বিশেষ ভাবে রাসায়নিক অস্ত্র বহনের উপযুক্ত রুশ মালবাহী গাড়ীর প্রথম দফায় পাঠানো দল পৌঁছে গিয়েছে. এই দেশের এলাকায় থাকা বিষাক্ত পদার্থের ভাণ্ডার থেকে এবারে লাতাকিয়া বন্দরে পাঠানোর কাজ শুরু হতে চলেছে, সেখানে এই বিষাক্ত পদার্থ জাহাজে চড়ানো হবে.

প্রথমে ধরে নেওয়া হয়েছিল যে, সবচেয়ে বিপজ্জনক রাসায়নিক অস্ত্র সিরিয়া থেকে ৩১শে ডিসেম্বরের আগেই নিয়ে যাওয়া হবে. এই প্রসঙ্গে সেগুলো বন্দরে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব থাকবে সিরিয়ার সামরিক বাহিনীর. কিন্তু দামাস্কাসের কাছে এই ধরনের দায়িত্বপূর্ণ কাজ করার মতো প্রয়োজনীয় গাড়ী নেই. কারণ বিষাক্ত বস্তু বিপজ্জনক ও তা সাধারণ মালবাহী গাড়ীতে চড়ানোর উপায় নেই. তার ওপরে এই ধরনের পদার্থের পরিমাণ প্রায় ১৩০০ টন. এই ধরনের কাজের অভিজ্ঞতা না থাকলে ও বিশেষ রকমের যন্ত্রপাতি না থাকলে তা করা অসম্ভব, এই রকম মনে করেই রিসি নামক প্রতিরক্ষা গবেষণা সংক্রান্ত কেন্দ্রের প্রধান গিওর্গি তিশ্যেঙ্কো বলেছেন:

এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় পরিস্থিতি তীক্ষ্ণ হওয়ার কথাই মনে রয়ে যাবে চলে যাওয়ার বছরের সঙ্গে. উত্তর কোরিয়া থেকে রকেট উড়ান ও পারমাণবিক পরীক্ষা, বিতর্কিত দ্বীপপূঞ্জের এলাকায় শক্তি প্রদর্শন – জলসীমা পার করে ও আকাশ সীমা লঙ্ঘণ করেই পতাকা ও বিমানের “ডানা” দিয়ে করা হয়েছে – এই সবই বাধ্য করেছে এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকাতে ফলপ্রসূ নিরাপত্তা ব্যবস্থা তৈরী করার জন্য.

পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশে সাংস্কৃতিক উত্সবের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে, যা করা হতে চলেছে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারী মাসে. এই উত্সবের প্রচারের কাজে সবচেয়ে সক্রিয় ও প্রধান উদ্যোক্তা হয়েছে দেশের সবচেয়ে প্রভাবশালী রাজনৈতিক পরিবারের বংশধর বিলাবল ভুট্টো- জারদারি. সব দেখে শুনে মনে হয়েছে যে, সে তাদের দলের এই বছরের মে মাসের নির্বাচনে ভরাডুবি দেখে শিক্ষা নেওয়ার চেষ্টা করছে ও দেশের জনগনের সামনে এক নতুন প্রজন্মের নেতা হিসাবে উপস্থিত হতে চাইছে. কিন্তু প্রতিবেশী ভারতে তার সহকর্মী রাহুল গান্ধীর খুবই দুঃখজনক অভিজ্ঞতা দেখিয়ে দিয়েছে যে, এমনকি সবচেয়ে প্রভাবশালী বংশের লোকদেরও আগে হোক বা পরেই হোক মঞ্চ থেকে নেমে দাঁড়াতে হয়.

রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন বৃহস্পতিবারে বাত্সরিক “বৃহত্” সাংবাদিক সম্মেলন শুরু করেছিলেন রাশিয়ার অর্থনীতির অবস্থার বর্ণনা দিয়ে. রাষ্ট্রপতির কথামতো, ২০১৩ সালে দেশের গড় বাত্সরিক উত্পাদনের বৃদ্ধি হবে ১, ৪ থেকে ১, ৫ শতাংশ, আর মূল্যবৃদ্ধি বাত্সরিক হিসাবে শতকরা ৬, ১ শতাংশ হতে চলেছে. একই সঙ্গে রুশী জনগনের বেতন বৃদ্ধি হয়েছে গড়ে শতকরা ৫, ৫ শতাংশ. রাশিয়ার অর্থনৈতিক উন্নয়নে মন্দার মূল কারণ আভ্যন্তরীণ, বাইরের বিশ্বের জন্য নয়, যদিও অর্থনীতি নিজের উপরে বিশ্ব অর্থনীতিতে সামগ্রিক মন্দার প্রভাব অনুভব করতে পেরেছে.

ভারতের ডেপুটি কনসাল জেনারেল দেবযানী খোবরাগাদে কে নিউইয়র্কে গত সপ্তাহে গ্রেপ্তার নিয়ে স্ক্যান্ডাল জ্বলে উঠেছে. ভারতের পার্লামেন্টের সদস্যরা ও প্রশাসনের উচ্চপদস্থ কর্মচারীরা মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে সাক্ষাত্কার করতে অস্বীকার করেছেন ও মঙ্গলবারে ভারতীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে দিল্লী শহরে মার্কিন দূতাবাসের সামনে থেকে কংক্রীটের পথ রোধ করার ব্লক হঠিয়ে নেওয়া হয়েছে আর বিরোধী জনতা দলের নেতা যশবন্ত সিনহা আমেরিকার কূটনীতি দপ্তরের কর্মচারীদের সমকামী সহকর্মীদের ভারতে কয়েকদিন আগে নতুন করে প্রবর্তিত ভারতীয় অপরাধ আইনের ৩৭৭ ধারার ভিত্তিতে আদালতে বিচার করতে বলেছেন. কারণ এই স্ক্যান্ডাল শুরু করানো হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে আর ধারণা করা যেতে পারে যে, ওয়াশিংটন ঠিক করেছে ভারতের সর্বজনীন নির্বাচন অবধি অপেক্ষা না করেই আমেরিকা- ভারত সম্পর্ক খারাপ করার ভার নিজেদের হাতেই তুলে নিতে, কারণ খুবই সম্ভাব্য যে, ভারতে ক্ষমতায় আসতে চলেছে আমেরিকা বিরোধী শক্তি.

২০১৪ সালের পরে, যখন সেই দেশ থেকে পশ্চিমের জোট শক্তির মূল অংশ বেরিয়ে চলে যাবে, তখন আফগানিস্তানের পরিস্থিতি কি রকমের হতে চলেছে, তা নিয়ে রাশিয়া ও ন্যাটো জোটের প্রতিনিধিরা ভবিষ্যদ্বাণীর ক্ষেত্রে পার্থক্য দেখতে পেয়েছেন. মস্কোতে আলোচনা শুরু হয়েছে ন্যাটো জোটের প্রতিনিধি কার্যালয় ও রাশিয়ার রাজনৈতিক গবেষণা কেন্দ্রের যৌথ উদ্যোগে. এই সব বিতর্কের কারণে সম্মেলনের একটি মুখ্য প্রশ্ন যে, কিভাবে আফগানিস্তানের বিষয়ে সহযোগিতা করা দরকার রয়েছে, তা উত্তর বিহীণ রয়ে গিয়েছে.

সিরিয়া ও আফগানিস্তানে পরিস্থিতি, ইরানের পারমাণবিক পরিকল্পনা নিয়ে সমস্যার সমাধান রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মনোযোগের কেন্দ্রেই রয়েছে. এই বিষয়ে বুধবারে ঘোষণা করেছেন রাশিয়ার রাজ্যসভার সদস্যদের সামনে উপস্থিত হয়ে এক ভাষণ দেওয়ার সময়ে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ. তিনি উল্লেখ করেছেন যে, সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র নষ্ট করার প্রক্রিয়া, যা মস্কো ও ওয়াশিংটনের পক্ষ থেকে সম্মিলিত শক্তি প্রয়োগে শুরু করা হয়েছে, তা সম্পূর্ণ গতিতেই চলছে. লাভরভ তারই সঙ্গে বলেছেন যে, সিরিয়া ও নিকটপ্রাচ্যে সন্ত্রাসবাদী হুমকির মোকাবিলা হবে সিরিয়া নিয়ে “জেনেভা-২” সম্মেলনে আলোচনার এক মুখ্য বিষয়. সন্ত্রাসবাদী “আন্তর্জাতিক গোষ্ঠী”, যারা আজ সিরিয়াতে ঘাঁটি গেড়ে বসেছে, তারা সমস্ত নিকটপ্রাচ্যের জন্যই একটা চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে.

সিরিয়ার জাতীয় বিরোধী ও বৈপ্লবিক জোট এই প্রথম ইরানের “জেনেভা-২” সম্মেলনে যোগদানের সম্ভাবনা মেনে নিয়েছে. এটাও সত্যি যে, তারা নিজেদের সহমত হওয়ার ব্যাপারে খুব একটা স্পষ্ট করে না দেওয়া শর্ত দিয়ে ঘোষণা করেছে.

সিরিয়াকে ঘিরে “জেনেভা -২” সম্মেলনের ভবিষ্যত নিয়ে মন্তব্য করেছেন সমীক্ষক ভ্লাদিমির সাঝিন.

আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
মে 2017
ঘটনার সূচী
মে 2017
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
18
19
20
21
22
23
24
25
26
27
28
29
30
31