×
South Asian Languages:
এশিয়া

২০১৩ সালের শেষ বঙ্গোপসাগরে ভারতের একসারি সামরিক কাজকর্ম দিয়ে চিহ্নিত করা হয়েছে. “অগ্নি-৩” রকেটের উড়ান আর জাপান – ভারত সম্মিলিত সামুদ্রিক মহড়া – শুধু এই সবেরই কয়েকটা উদাহরণ হতে পারে. এটা কোন দ্ব্যর্থ না রেখেই বলা যেতে পারে যে, ভারত শুধু এখন সমুদ্র তীরে কোন রকমের আক্রমণ প্রতিহত করতেই সক্ষম নয়, বরং অনেক উচ্চাকাঙ্ক্ষাও পোষণ করেছে, যা তাদের সমুদ্র সীমা থেকে অনেক দূরের এলাকায় বর্তমানে তৈরী হয়েছে. বাস্তবে ভারতের সামরিক –সামুদ্রিক ক্ষমতা বৃদ্ধি করা বহু রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের সেই তত্ত্বকেই প্রমাণ করে দেয় যে, ভারত ও প্রশান্ত মহাসাগর ইতিমধ্যেই একটি সম্পূর্ণ মহাসাগরে পরিণত হতে চলেছে – যাকে বলা যেতে পারে ভারত- প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকা.

এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় পরিস্থিতি তীক্ষ্ণ হওয়ার কথাই মনে রয়ে যাবে চলে যাওয়ার বছরের সঙ্গে. উত্তর কোরিয়া থেকে রকেট উড়ান ও পারমাণবিক পরীক্ষা, বিতর্কিত দ্বীপপূঞ্জের এলাকায় শক্তি প্রদর্শন – জলসীমা পার করে ও আকাশ সীমা লঙ্ঘণ করেই পতাকা ও বিমানের “ডানা” দিয়ে করা হয়েছে – এই সবই বাধ্য করেছে এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকাতে ফলপ্রসূ নিরাপত্তা ব্যবস্থা তৈরী করার জন্য.

ঠিক দুই বছর আগে বাগদাদে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক পতাকা নামিয়ে নেওয়া হয়েছিল. এটা ছিল একটা প্রতীকী ব্যাপার, যা করা হয়েছিল, স্রেফ দেখানোর জন্যই যে, ইরাক থেকে মার্কিন সেনাবাহিনী চলে যাচ্ছে. আগামী বছরে, সব দেখে শুনে মনে হয়েছে যে, আমেরিকার সেনাবাহিনীর মূল অংশ আফগানিস্তান থেকেও নিয়ে যাওয়া হতে চলেছে.

কিছু লোক মনে করেছেন যে, ওয়াশিংটন রাজনৈতিক দিক থেকেও মধ্য ও নিকট প্রাচ্য থেকে নিজেদের প্রভাব কম করছে – আর এটা বিগত সময়েই বেশী করে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে.

মধ্য ও দক্ষিণ এশিয়াতে ঐক্যবদ্ধ বিদ্যুতশক্তি সরবরাহ ব্যবস্থায় আরও একজন বিনিয়োগকারী উদয় হয়েছে. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ঘোষণা করেছে CASA-1000 প্রকল্পে এক কোটি পঞ্চাশ লক্ষ ডলার বিনিয়োগ করার বিষয়ে আগ্রহের কথা. রাশিয়া এই প্রকল্পের জন্য প্রায় ৫০ কোটি ডলার পর্যন্ত দিতে তৈরী আছে.

২০০৭ সালেই প্রথম CASA-1000 প্রকল্প নিয়ে বলা হয়েছিল. এই ধারণার মূল কথা হল যে, আফগানিস্তান ও পাকিস্তানকে উন্নয়নে সহায়তা করা. দুই দেশেই খুব বেশী করে বিদ্যুত শক্তির অভাব টের পাওয়া যায়. তাদের দিকে প্রাক্তন সোভিয়েত মধ্য এশিয়ার দেশগুলো থেকে কিছু বাড়তি বিদ্যুত সরবরাহ করার কথা হয়েছে, যে সমস্ত দেশে অনেক বেশী পরিমানে বিদ্যুত শক্তি উত্পাদনের সুযোগ রয়েছে.

২০১৩ সালে বিশ্বে রেকর্ড পরিমাণে দানাশষ্য উত্পাদিত হতে যাচ্ছে. রাষ্ট্রসঙ্ঘের খাদ্যদ্রব্য ও কৃষি সংস্থার অনুমান অনুযায়ী নতুন বছরের আগেই বিশ্বে আড়াইশো কোটি টন বিভিন্ন ধরনের দানাশষ্য তোলা সম্ভব হতে চলেছে. এটা গত বছরের চেয়ে শতকরা আট শতাংশ বেশী. তারই মধ্যে এই সংস্থা সাবধান করে দিচ্ছে যে, খাদ্য নিরাপত্তা নিয়ে পরিস্থিতি এশিয়া ও আফ্রিকার অনেক অংশেই খারাপ হতে চলেছে.

ইউক্রেনে ইউরোপীয় সঙ্ঘের সঙ্গে বাণিজ্য চুক্তিতে স্বাক্ষর না করার ফলে প্রবল বিরোধ বিক্ষোভের মধ্যেই সেই দেশের রাষ্ট্রপতি ভিক্টর ইয়ানুকোভিচ চিনের শেনসি প্রদেশের সিয়ান শহরে এক সরকারি সফর করতে চলে গিয়েছেন বলে খবর দিয়েছে ইউক্রেনের রাষ্ট্রপতির প্রশাসনের দপ্তর থেকে.

যখন হোয়াইট হাউসের থেকে পাঠানো দূতেরা ও আফগানিস্তানের রাষ্ট্রপতি খুবই কড়া ভাষায় একে অপরের সঙ্গে আফগানিস্তানের প্রতিরক্ষা নিয়ে চুক্তির বিষয়ে সময় ও শর্ত নিয়ে আলোচনায় মত্ত, তখনই বিশেষজ্ঞরা অনুমান করতে বসেছেন যে, কি করে এই দরাদরি আফগানিস্তানের অন্যান্য জীবন যাপনের ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলবে.

কাবুলে কিছু বিশেষজ্ঞ ইতিমধ্যেই ঘোষণা করেছেন যে, আফগানিস্তানের লোকদের এই চুক্তির একেবারেই কোন দরকার নেই, কারণ দেখাই যাচ্ছে যে, আমেরিকার লোকরা আফগানিস্তানকে কিছুই দেয় নি, শুধুমাত্র সেই দেশে মাদক দ্রব্য উত্পাদনের বিষয়ে তুমুল পরিমাণে অগ্রগতি ছাড়া. আরও একদল মনে করেছেন যে, এই চুক্তির আবার কিছু ইতিবাচক দিকও রয়েছে, যা ব্যবহার করা দরকার.

বিমানবাহী জাহাজ “অ্যাডমিরাল গর্শকভ” আধুনিকীকরণ ও হস্তান্তর করা নিয়ে ইতিহাস, যা বর্তমানে পরিবর্তিত হয়ে “বিক্রমাদিত্য” নাম হয়েছে, তা আমাদের বাধ্য করেছে রুশ প্রবাদ মনে করতে: “(পথনির্দেশ, মানচিত্র) কাগজ কলমে তো সবই মসৃণ ছিল, শুধু ভুলে গিয়েছিল খাদের কথা”. বাস্তবে যখন ২০০৪ সালে দুই পক্ষ “অ্যাডমিরাল গর্শকভ” নিয়ে চুক্তি স্বাক্ষর করেছিল. তখন বোধহয়, যেমন মস্কো শহরে, তেমনই দিল্লীতেও কেউই মনে করতে পারেন নি যে, এই আধুনিকীকরণের কাজের জন্য সময় লাগতে পারে দশ বছর. আর শুধু চুক্তির মেয়াদ লঙ্ঘণ ছাড়াও দুই দেশের সম্পর্কও এক দীর্ঘ সময়ের জন্য মলিন হয়েছিল অর্থ যোগানের অভাবে, চুক্তির মূল্য বৃদ্ধির কারণে আর বাড়তি পরিকল্পনার বাইরের কাজের জন্য.

রাশিয়ার প্রাচ্য অনুসন্ধান বিষয়ের বৈজ্ঞানিক কেন্দ্রগুলি সারা বিশ্বেই উচ্চ পর্যায়ের মর্যাদা পেয়ে এসেছে – তার মধ্যে প্রাচ্যের দেশগুলিতেও. এই মর্যাদার ভিত্তি স্থাপিত হয়েছে রাশিয়ার বিজ্ঞানীদেরই বহু শতকের শ্রমসাধ্য কাজের ফলে.

তাঁদের অনেকেরই উত্তরাধিকার এখনও বৈজ্ঞানিক মহলে সমাদৃত হয়ে রয়েছে. উদাহরণ হতে পারে আন্তর্জাতিক সম্মেলন, যা কাজানে আয়োজন করা হয়েছে, যেখানে ইউরোপ, এশিয়া ও উত্তর আমেরিকা থেকে ঐতিহাসিকদের জড় করতে পেরেছে. তাঁরা এসেছেন এক বিজ্ঞানীর স্মৃতি রক্ষার্থে আয়োজিত সম্মেলনে যোগ দিতে, যাঁকে বলা হয়ে থাকে রুশ প্রাচ্য বিদ্যার স্থপতি বলেই.

ভারত সঙ্কটের দোড়গোড়ায়. আপাততঃ অর্থনীতিবিদরা বিদেশী মূলধন আকর্ষণ করা নিয়ে যখন ব্যস্ত ও রাজনীতিবিদরা এগিয়ে দিচ্ছেন দেশের জন্য খুবই দামী খাদ্য নিরাপত্তা বিল, তখন ভারতের জাতীয় মুদ্রা রুপিয়ার দাম কমে যাওয়ার কারণে খুবই দ্রুত বেড়ে গিয়েছে যেমন জ্বালানী ও শিল্পজাত দ্রব্যের দাম, তেমনই মূল খাদ্যোপোযোগী জিনিষের দামও: আলু, পিঁয়াজ ও নুনের দাম. পরিস্থিতি একেবারে চরমে পৌঁছেছে যখন বিহারে নুনের দাম এক দিনে পনেরো টাকা থেকে দশগুণ বেড়ে দেড়শো টাকা হয়েছিল প্রতি কিলোগ্রামে.

শুক্রবারে শ্রীলঙ্কার বৃহত্তম শহর কলম্বোতে শুরু হয়েছে কমনওয়েলথ প্রশাসন প্রধানদের অধিবেশন (CHOGM). এই বৈঠকে অনুপস্থিত রয়েছেন তিনজন মন্ত্রীসভার প্রধান, তাঁদের মধ্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহও রয়েছেন. তাঁর দেশের ভিতরের তামিল গোষ্ঠীদের ও রাজনৈতিক দলগুলোর চাপে পড়ে এই ভাবে পিছিয়ে আসা, মনে তো হয় না যে, শ্রীলঙ্কায় তামিল সংখ্যালঘুদের অবস্থানকে কোন ভাবে ভাল করবে আর তার ওপরে - ভারতের সঙ্গে সেই দেশের সম্পর্কে বেশী করেই জটিলতা সৃষ্টি হবে, যারা বর্তমানে ভারত মহাসাগরের রাজনীতিতে বেশী করেই ভূমিকা পালন করতে শুরু করেছে বলে “রেডিও রাশিয়াকে” জানিয়েছেন রাশিয়ার স্ট্র্যাটেজিক গবেষণা ইনস্টিটিউটের বিশেষজ্ঞ বরিস ভলখোনস্কি.

তথাকথিত “সমস্যামালা – ২০১৪” – অর্থাত্ আফগানিস্তান থেকে আন্তর্জাতিক জোটের সেনা প্রত্যাহারের অপেক্ষায় থেকে বিশেষজ্ঞরা আপাততঃ সবচেয়ে মূল প্রশ্নের বিষয়ে এখনও একমত হতে পারেন নি. আর সেটা হল: যদি আফগানিস্তানে শাসন ব্যবস্থাই অস্থিতিশীল হয়ে দাঁড়ায়, তবে কতখানি সম্ভাবনা রয়েছে যে, “তালিবান” ও অন্যান্য চরমপন্থী গোষ্ঠীরা উত্তরের দিকে রওয়ানা দেবে? কিন্তু যদি এটা ঘটে, তবে সেই প্রসারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে পারে একমাত্র যৌথ প্রতিরক্ষা চুক্তি সংস্থা.

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের বার্ষিকী পালিত হয় ১১ই নভেম্বর. 

এশিয়া ও ইউরোপের সঙ্ঘর্ষজনক পরিস্থিতির রাজনৈতিক-কূটনৈতিক মীমাংসা খুঁজে বার করার উদ্দেশ্যে সহযোগিতা সুদৃঢ় করা দরকার.

কাবুলের জন্য আলাদা করে দেওয়া অর্থ কিভাবে খরচ করা হচ্ছে, তা ২০১৪ সালে সেনা বাহিনী প্রত্যাহার করে নেওয়ার পরে আমেরিকার লোকদের পক্ষে খুবই কঠিন হবে খোঁজ করায়. আফগানিস্তান পুনর্গঠনের জন্য বিশেষ মার্কিন প্রধান পর্যবেক্ষক জন সপকোর লেখা একটি চিঠিতে এই কথাই বলা হয়েছে. এই দলিল মার্কিন প্রশাসনের বিভাগীয় প্রধানদের ও পেন্টাগনের কাছে পাঠানো হয়েছে.

একটা বহুল প্রচারিত ধারণা থাকা স্বত্ত্বেও যে, বিশ্বের রাজনীতি- এটা শুধু বৃহত্ রাষ্ট্র আর কম করে হলেও বড় আঞ্চলিক রাষ্ট্রগুলোর শুধু আয়ত্বের বিষয়, খুবই উল্লেখযোগ্য ভূমিকা কিন্তু আন্তর্জাতিক ব্যাপারে ছোট দেশরাও নিতে পারে. সবচেয়ে ভাল উদাহরণ এই ক্ষেত্রে শ্রীলঙ্কার ইতিহাস হতে পারে. সেই দেশ স্বাধীনতা পাওয়ার পরে নিজেদের “মহান প্রতিবেশী” ভারতবর্ষের ছায়ায় মোটেও ঢাকা পড়ে যায় নি.

ইস্তাম্বুলে বস্ফোরস প্রণালীর তলা দিয়ে তৈরী রেলপথ টানেলের সমারোহপূর্ণ উদ্বোধন করা হবে মঙ্গলবার স্থানীয় সময় বেলা ১টায়, জানিয়েছে বৃটিশ টেলি-রেডিও কর্পোরেশন “বি.বি.সি”.

ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহের চিন সফরের সময়ে যখন তার চিনের নেতৃত্বের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আর্থ-বাণিজ্য উন্নতির বিষয়ে ও সীমান্ত সংক্রান্ত প্রশ্নের বিষয়ে স্বাভাবিক করার কথা হয়েছে, তখনই প্রায় একই সময়ে ফিলিপাইনসে গিয়েছিলেন ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রী সলমন খুরশিদ. দক্ষিণ চিন সাগরের পরিস্থিতি ও বিতর্কিত দ্বীপ গুলি নিয়ে মন্ত্রীর বক্তব্য থেকে ধারণা করা যেতে পারে যে, নয়া দিল্লী বর্তমানে এক জটিল খেলায় নেমেছে. নিজেদের বেজিংয়ের সঙ্গে একেবারেই অসহজ পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এই খেলা শুরু হয়েছে বলেই মনে করেছেন রুশ বিজ্ঞান একাডেমীর সুদূর প্রাচ্য ইনস্টিটিউটের ডেপুটি ডিরেক্টর সের্গেই লুজিয়ানিন.

রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন আজ সোমবার ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপে পৌঁছেছেন, সেখানে তিনি ৭-৮ই অক্টোবর এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশগুলির রাষ্ট্রপ্রধান ও প্রধানমন্ত্রীদের ২১তম সাক্ষাতে অংশগ্রহণ করবেন.

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভ এবং মার্কিনী পররাষ্ট্র সচিব জন কেরি এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষ সাক্ষাতের কাঠামোতে সাক্ষাত্ করবেন, যা ৭-৮ই অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপে, শুক্রবার ইতার-তাস সংবাদ এজেন্সিকে জানিয়েছেন রাশিয়ার কূটনৈতিক বিভাগের এক উত্স.

আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
ডিসেম্বর 2017
ঘটনার সূচী
ডিসেম্বর 2017
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
18
19
20
21
22
23
24
25
26
27
28
29
30
31