দেশের সংবিধান

রাষ্ট্রপতি তাঁর ভাষণের শুরুতেই রুশ জনগনকে দেশের সংবিধানের বিংশতিতম জয়ন্তী উপলক্ষে অভিনন্দন জানিয়েছেন. সাংবিধানিক কাঠামো হওয়া দরকার স্থিতিশীল, প্রাথমিক ভাবে জনগনের অধিকার ও স্বাধীনতা প্রসঙ্গে, উল্লেখ করেছেন পুতিন. এই প্রসঙ্গে সাংবিধানিক প্রক্রিয়াকে মনে করার দরকার নেই যে, তা একেবারেই সমাপ্ত হয়ে গিয়েছে, উদাহরণ হিসাবে তিনি বলেছেন দেশের সালিশী আদালত ও হাই কোর্টের এক হয়ে যাওয়া নিয়ে আসন্ন সংবিধানে পরিবর্তনের কথা.

স্বয়ং শাসন ও সামাজিক নিয়ন্ত্রণ

পুতিন উল্লেখ করেছেন যে, রুশ প্রজাতন্ত্রের স্থানীয় স্বয়ং শাসনের নীতিগুলোকে নির্দিষ্ট করে দেওয়া দরকার. এটা ২০১৪ সালেই করতে হবে, যে বছর রাশিয়ার স্থানীয় প্রশাসন বা “জেমস্তভো” সংস্কারের দেড়শো বছর হতে চলেছে.

রাশিয়াতে রাজনৈতিক প্রতিযোগিতার স্বপক্ষে ভ্লাদিমির পুতিন ও তিনি চান মুখ্য বিষয়গুলোকে নিয়ে খুবই প্রসারিত ভাবে সামাজিক আলোচনা. অংশতঃ, রাষ্ট্রপতির পক্ষ থেকে প্রস্তাবিত সদস্যদের মধ্যে রুশ সামাজিক সভায় প্রতিনিধিদের মধ্যে অন্ততপক্ষে অর্ধেক লোক যেন ট্রেড ইউনিয়ন থেকে আসেন. রাষ্ট্রপতি একই সঙ্গে চেয়েছেন সামাজিক নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে এক নতুন আইনের খসড়া প্রস্তাব করা হোক.

আন্তর্প্রজাতি সম্পর্ক

রাষ্ট্রপতি দেশে আন্তর্প্রজাতি সুস্থ ও শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানকে আন্তর্জাতিক ভাবে বিবেক বিরোধী প্রভাবের হাত থেকে রক্ষা করতে আহ্বান করেছেন.

বাজেট

আগামী দু’বছরের মধ্যেই দেশের সমস্ত স্তরের বাজেট পরিকল্পনা অনুযায়ী নীতির পথে তৈরী করা উচিত হবে বলে মনে করেন রাষ্ট্রপতি.

জনসংখ্যা

১৯৯১ সালের পর এই বছরই প্রথম রাশিয়াতে স্বাভাবিক ভাবে জনসংখ্যা বৃদ্ধির পরিসংখ্যান পাওয়া গিয়েছে জানুয়ারী থেকে অক্টোবর মাসের মধ্যে. তিনটি বাচ্চা সমেত পরিবারই রাশিয়াতে স্বাভাবিক হওয়া উচিত্.

গৃহ নির্মাণ প্রকল্প

দেশের জনসংখ্যা বৃদ্ধির জন্য গৃহ নির্মাণ প্রকল্প খুবই গুরুত্বপূর্ণ হওয়া দরকার, পুতিন “রাশিয়ার সমস্ত পরিবারের জন্য গৃহ” নামের পরিকল্পনা চালু করার কথা বলেছেন. তিনি আহ্বান করেছেন আগামী বছরের মার্চ মাসের মধ্যেই দেশের সর্বত্র গৃহ নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় দলিলের সংখ্যা নির্ধারণ করার ও সেই সংক্রান্ত অনুমতি পাওয়ার ব্যবস্থাকেও সহজ করার, তিনি বলেছেন এই বিষয়ে এখনও কোন ঐক্যবদ্ধ নীতি দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না.

স্বাস্থ্য সংরক্ষণ

রাশিয়ার চিকিত্সা বিজ্ঞানে প্রধান ও ফলিত বিষয়ে গবেষণা প্রাথমিক হওয়া দরকার দেশের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও বিজ্ঞান একাডেমীর কাজের ক্ষেত্রে. ২০১৫ সাল থেকে শুরু করে রুশ প্রজাতন্ত্রের সমস্ত শিশুদের বিনামূল্যে বাত্সরিক শরীর পরীক্ষা করা হবে ও তিন বছরের মধ্যে জটিল প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে শল্য চিকিত্সার সংখ্যা দেড়গুণ বৃদ্ধি করতে হবে. পুতিন প্রস্তাব করেছেন যে, স্বাস্থ্য দপ্তর স্বেচ্ছাসেবক তৈরী করার ব্যবস্থা করবে, যারা পরিষেবা দেবে ও যেসব লোক এই ধরনের কাজে নির্দিষ্ট সময় ব্যয় করবে, তাদের চিকিত্সা শাস্ত্রের উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ সুবিধা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে.

শিক্ষা

রাষ্ট্রপতি মনে করেন যে, রাশিয়ার স্কুল শেষ করার সময়ে ছাত্রছাত্রীরা যে রচনা লেখে, তার মূল্যায়ণ রাষ্ট্রীয় পরীক্ষার মূল্যায়ণের সঙ্গে উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হওয়ার সময়ে দেখা দরকার. তিনি বলেছেন যে, আগামী বছরে যারা স্কুল শেষ করবে, তাদের রচনা লেখার মূল্যায়ণ নিয়ে তিনি অনেকদিন আগেই নির্দেশ দিয়েছেন.

কর্মসংস্থান

রাষ্ট্রপতি প্রস্তাব করেছেন যে, একটি সারা রাশিয়া জোড়া কাজের বাজারের সাইট তৈরী করা দরকার, যাতে অন্য শহর, এলাকায় যারা কাজ করতে যেতে তৈরী, তাদের সুবিধা হয় ও সেখানেও তাদের জন্য পরিস্থিতি ভাল করা হয়.

অভিবাসন

বিদেশীদের রাশিয়াতে থাকার সময়সীমা নির্দিষ্ট হওয়া উচিত্ আর যারা এই আইন লঙ্ঘণ করবে, তাদের এই দেশে ঢোকা বন্ধ করা দরকার. তিনি বলেছেন দেশের ব্যক্তিগত কর্মদাতা ও কোম্পানীরা বিদেশে থেকে আসা লোকদের কাজের অনুমতি পত্র (পেটেণ্ট) থাকলে কাজ দিতে পারবেন.

আঞ্চলিক উন্নয়ন

সাইবেরিয়া ও সুদুর প্রাচ্যের এলাকায় সমস্ত একবিংশ শতক ধরেই বিশেষ সুবিধা করে দিতে হবে. রাষ্ট্রপতি প্রস্তাব করেছেন এই এলাকায় নানা রকমের দ্রুত অর্থনৈতিক অগ্রগতির উপযুক্ত অঞ্চল সৃষ্টির জন্য. সেই সব অঞ্চলে নতুন সমস্ত কল কারখানার জন্য বেশ কয়েক রকমের কর বছর পাঁচেকের জন্য নেওয়া হবে না.

অফশোর অর্থনীতি

রাশিয়ার সেই সমস্ত কোম্পানী, যারা দেশের বাইরে নথিভুক্ত, তারা রাষ্ট্রের সহায়তা পেতে পারবে না, তাছাড়া তাদের উপরে রাশিয়ার আইন অনুযায়ী কর বসানো দরকার, বলেছেন পুতিন. রাশিয়ার অর্থনীতি অফশোর থেকে ফিরে আসা এখনও কম দেখা যাচ্ছে, রাষ্ট্রপতি উল্লেখ করেছেন.

পররাষ্ট্র নীতি, সিরিয়াতে পরিস্থিতি

রাশিয়া সিরিয়ার সঙ্কট মেটানোর জন্য একবারও নিজেদের জাতীয় স্বার্থ সঙ্কটের মুখে ফেলে নি. সিরিয়া ও ইরানের উদাহরণ দেখিয়ে দিয়েছে যে, যে কোন রকমের বিরোধ শক্তি প্রয়োগ না করেই সমাধান করা যেতে পারে.

রুশ প্রজাতন্ত্রের বিশ্বে অবস্থান

পুতিন বলেছেন, রাশিয়া চেষ্টা করবে বিশ্বে নেতৃস্থানীয় জায়গায় থাকার, তবে কোন রকমের সর্ব বৃহত্ রাষ্ট্র হওয়ার উপাধি পাওয়ার জন্য চেষ্টা করবে না.

ইউরো-এশিয়া অর্থনৈতিক সঙ্ঘ

রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি জাতীয় সভাকে ইউরো-এশিয়া অর্থনৈতিক সঙ্ঘ চুক্তি গুরুত্ব দিয়ে আলোচনা করতে বলেছেন. পুতিন আশা করেছেন যে, ২০১৪ সালের ১লা মের মধ্যেই এই চুক্তির বয়ান নিয়ে সমঝোতা হয়ে যাবে রাশিয়া, বেলোরাশিয়া ও কাজাখস্থানের পার্লামেন্টে.

পারিবারিক মূল্যবোধের সুরক্ষা

ভ্লাদিমির পুতিন ঘোষণা করেছেন যে, তিনি এর পরেও ঐতিহ্যবাহী পারিবারিক মূল্যবোধকে রক্ষার অবস্থান থেকেই কাজ করবেন.

ইউক্রেনের সঙ্গে সহযোগিতা

রাশিয়া তৈরী রয়েছে ইউক্রেনের সঙ্গে বিশেষজ্ঞ স্তরে শুল্ক সঙ্ঘ নিয়ে আলোচনা করতে. কিন্তু তা সম্ভব যদি শুধু কিয়েভের একসঙ্গে কাজ করার ইচ্ছা থাকে, তাহলেই. আমরা কাউকেই কিছু জোর করে চাপিয়ে দিই না.

সামরিক ক্ষমতা

ভ্লাদিমির পুতিন বলছেন, কারও মনেই যেন রাশিয়াকে সামরিক ক্ষমতায় অতিক্রম করে যাওয়ার কল্পনাও না থাকে, আমরা এটা কখনোই হতে দেবো না. রাশিয়া সব সময়েই এই চ্যালেঞ্জের উত্তর দেবে – তা যেমন রাজনৈতিক ভাবে, তেমনই প্রযুক্তির দিক থেকেও.

আসন্ন সময়ে রাশিয়ার সমস্ত সামরিক শিল্প নানা রকমের বরাত পেয়ে কাজ করতেই থাকবে, এই কাজের জন্য সরকার ২৩লক্ষ কোটি রুবল নির্ণয় করেছে বলে রাষ্ট্রপতি জানিয়েছেন.

পুতিন আহ্বান করেছেন সামরিক প্রস্তুতির ব্যবস্থা আবার করে বিবেচনা করে দেখতে ও উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রদের এই প্রশিক্ষণ পেয়ে বিশেষজ্ঞ হওয়ার সুবিধা করে দিতে.

রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি আরও বলেছেন যে, দেশের ইতিহাসে এই প্রথম সামরিক বাহিনীর কর্মীদের বাসস্থানের সমস্যা সম্পূর্ণ ভাবে সমাধান করা হতে চলেছে.

এক ঘন্টা দশ মিনিট ধরে চলা ভাষণের সময়ে ৩৪ বার উপস্থিত সকলে করতালি দিয়ে তাঁর ভাষণকে স্বাগত জানিয়েছেন. যাঁরা শুনেছেন, তাঁরা বিশেষ করে অর্থনীতির ক্ষেত্রে অফশোর কোম্পানী নিয়ে ঘোষণা, সামাজিক নিয়ন্ত্রণের পরিকল্পনা ও সামরিক শিল্পের উত্কর্ষের বিষয় নিয়ে ভাষণের প্রশংসা করেছেন.