প্রতিযোগিতাটির ফাইন্যালের আসর বসেছিল গত সপ্তাহে কাতারের রাজধানী দোহায়. বিশেষজ্ঞরা বলেন যে, এই পুরস্কারটির মর্যাদা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্রে ‘অস্কার’ পাওয়ার সমতূল্য. এখানে উল্লেখ্য যে, গত তিন বছর ধরেই মস্কোর এই হোটেলটি বিশ্বসেরার স্বীকৃতি পাচ্ছে. ১৯৯৩ সালে এই প্রতিযোগিতা শুরু হওয়ার পর থেকেই এই শিরোপা অর্জন করার জন্য পর্যটনশিল্পের সেরা সেরা হোটেলগুলির মধ্যে ক্ষুরধার প্রতিদ্বন্দিতা হয়. তাই অযোগ্য পাত্রকে এই পুরস্কার দেওয়া যেতে পারে না. পর্যটনশিল্পের অগ্রসারির বিশেষজ্ঞরা বিজয়ীকে বাছাই করেন এবং বিজয়ী হোটেলটি তার পরবর্তী বছর জুড়ে ‘ডব্ল্যুটিএ’ তকমাটি তাদের উত্কর্ষতার প্রমাণস্বরুপ সর্বত্র ব্যবহার করার অধিকার পায়. অর্জিত ফলাফলে রীতিমতো গৌরববোধ করছেন রাশিয়ার ট্যুর অপারেটরদের কো-অর্ডিনেশন কমিটির আধিকারিক ভ্লাদিমির কোনতোরোভিচ. –

বাস্তবিকই মস্কোয়, সেন্ট-পিটার্সবার্গে হোটেলগুলি অতি উত্কর্ষমানের. যেমন তাদের ভবনগুলির সৌন্দর্য, তেমনই তাদের আরামদায়ক স্যুইট ও রুমগুলি ও পরিষেবার সুউচ্চ মান. তাই এই শিরোপাপ্রাপ্তি আমাকে একেবারেই বিস্মিত করেনি. পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে উপযুক্ত হোটেলকেই, তদুপরি এই গত ২ বছর ধরে এই হোটেলে ৮০ শতাংশ রুমই ভর্তি থাকে, যেটা খুব ভালো সূচক.

আজকের দিনে মস্কোর পাঁচতারা হোটেলগুলির মধ্যে রাডিসন রয়্যাল হোটেলে সবচেয়ে বেশিসংখ্যক ডিলাক্স স্যুইট(প্রায় ৫০০টি)এবং ৩৮টি আলাদা এ্যাপার্টমেন্ট, যাদের আয়তন ৩৮০ বর্গ মিটার পর্যন্ত. ওখানে সব স্যুইট দীর্ঘকাল ধরে বসবাসের উপযুক্ত. হোটেল চত্বরটির মধ্যে ইতালিয়ান, ইরানি, ভূমধ্যসাগরীয় কুইজিনের রেস্তোঁরা, ককটেল-বার, স্পা, টার্কিশ বাথ ও বাচ্চাদের আমোদপ্রমোদের জন্য আলাদা জায়গা আছে. মানে সম্পদশালী অতিথিদের দীর্ঘদিন ঐ হোটেলে থাকার জন্য সব সুযোগসুবিধাই ওখানে মজুত রয়েছে. মস্কোর পর্যটনশিল্প ও হোটেল ব্যবসা সংস্থার সভাপতি সের্গেই শ্পিলকো এই হোটেলটিকে অনন্যসাধারণ বলে অভিহিত করছেন. –

শুধুমাত্র বিজনেসের কাজে আসা অতিথিদের জন্যই নয়, সবমিলিয়ে. কেবলমাত্র স্থাপত্যশিল্পের দিক থেকেই নয়. আর কোথায় আপনারা পাবেন হোটেলের নিজস্ব ফেরীঘাট ও একগাদা নিজস্ব লঞ্চ, যেগুলোতে ড্রেজার বসানো আছে এবং তাই শীতকালে পর্যন্ত বরফ কেটে মস্কোভা নদীদের পর্যটকদের প্রমোদভ্রমণ করাতে পারে? উপরন্তু হোটেলে সোশ্যালিস্ট রিয়ালিজম ধারার বিশাল চিত্রের ও ভাস্কর্যের সংগ্রহ আছে. ওখানে এমনকি হোটেলের ছাদে আচ্ছাদনের ঘেরাটোপে দু’জনের জন্য রেস্তোঁরা পর্যন্ত আছে.

৩৪ তলা হোটেল ভবনটির উচ্চতা ২০০ মিটার. এটাকে সোভিয়েত আমলে নির্মিত অন্যতম সেরা স্থাপত্যকীর্তি হিসাবে গণ্য করা হয়. সেসময় বাছাই করা দেশের সেরা ২ হাজার উচ্চশিক্ষিত পেশাদার স্থপতি ঐ ভবনটি নির্মাণ করেছিলেন. অসংখ্য মিস্ত্রীদের কথা না হয় বাদই দিলাম. তাই এমন জমকালো ভবনটি সারা দুনিয়ার চিত্র ও চলচ্চিত্রশিল্পীদের আকৃষ্ট না করে পারেনি. এখানে বিশ্ববিখ্যাত হলিউডের অনেক ফিল্মেরও শ্যুটিং হয়েছে.