SAR-400 হচ্ছে দুই হাত-ম্যানিপুলেটর লাগানো রোবট. রোবটটি মানুষের সব গতিবিধি নকল করতে পারে, আওয়াজের প্রতিধ্বনিও করতে সক্ষম. পশ্চিমী প্রযুক্তি থেকে রুশী প্রযুক্তির ফারাক হচ্ছে, যে রোবটের শুধুমাত্র স্বরক্ষেপ এবং ছবিই পেশাদারদের পাঠানো হবে না, তার শারিরীক অনুভূতিও ধরা পড়বে. ম্যানিপুলেটরের দস্তানা থেকে এই সেন্সর রি-এ্যাকশনের খাঁটি চিত্র পাওয়া যায়. কিবোর্গের হাত ২১টা এবং তার কব্জি ২৮ টা বিভিন্ন কাজ করতে সক্ষম, যেগুলো পৃথিবীতে বসে অপেরাটরেরা ধরতে পারবে এবং সেই অনুযায়ী নির্দেশ পৌঁছে দিতে পারবে.

রোবটটাকে পরিচালনা করা যাবে যেমন কাছ থেকে, তেমনই দূরত্ব থেকেও. এমনকি যদি সে চাঁদে বা মঙ্গল গ্রহেও থাকে. SAR-400 বানানো হয়েছে বিশেষ করে উন্মুক্ত মহাকাশে কাজ করার জন্য. ও এমন সব কাজ করতে সক্ষম, যেমন মহাজাগতিক যান লোড বা আনলোড করা, স্যাটেলাইটগুলোর উপর নজর রাখা, প্রয়োজনে তাদের টুকটাক মেরামতি করা. উপরন্তু রুশী এ্যানড্রয়েড উদ্ধারকার্য করতে সক্ষম সেই অবস্থায়, যখন মানুষ মানুষকে সাহায্য করতে অপারগ. যেমন, যদি খোলা মহাকাশে কোনো মহাকাশচারী আহত হন বা জ্ঞান হারিয়ে ফ্যালেন.

এই মুহুর্তে বিজ্ঞানীরা প্রথম রোবট-এ্যানড্রয়েডটিকে নিয়ে নিরীক্ষা করছেন. এইরকম প্ল্যান আছে যে, আগামী ২ বছরের মধ্যে ওকে আন্তর্জাতিক মহাকাশ কেন্দ্রে পাঠানো হবে. ও হবে রাশিয়ার মহাকাশচারীদের এক বড় সহায়ক. ভবিষ্যতে ওকে চাঁদ ও মঙ্গলগ্রহ অভিযানেও কাজে লাগানো যাবে.