১৯২৮ সালে আমস্টারডাম গ্রীষ্ম অলিম্পিকের সময়ে অলিম্পিকের আগুন জ্বালানোর ঐতিহ্য শুরু হয়েছিল. আর অলিম্পিকের আগুন নিয়ে মশাল দৌড় প্রথমবার হয়েছিল ১৯৩৬ সালের বার্লিন অলিম্পিকের সময়ে – গ্রীসের অলিম্পিয়া থেকে জার্মানীর রাজধানীতে তখন মশাল নিয়ে দৌড়ে এসেছিলেন সারা ইউরোপ হয়ে তিন হাজার দৌড়বীর. ১৯৫০ সালে গ্রীস থেকে এই দৌড় শুরু করার বদলে যে দেশে অলিম্পিক হচ্ছে, তার রাজধানী থেকে দৌড়ের ঐতিহ্য শুরু হয়েছিল. রাজধানী অবধি আগুন নিয়ে আসা হত বিমানে, তারপর তা দৌড়বীর লোকদের হাতে হাতে সারা দেশে ঘুরত. ২০০৪ সালে অলিম্পিকের আগুন একবার মাত্র সারা পৃথিবী ঘুরে এসেছিল, এটা হয়েছিল গ্রীসের অলিম্পিকের আগে.

২. সোচী অলিম্পিক মেডেলের সংখ্যায় রেকর্ড করবে. খেলোয়াড়রা নিজেদের মধ্যে ৯৮ সেট পুরস্কার নিয়ে প্রতিযোগিতায় নামবেন, তার মধ্যে আবার কয়েকটিতে অলিম্পিকের ইতিহাসে প্রথমবার. ৯টি নতুন ধরনের খেলা হবে স্কি যারা করেন তাদের জন্য, ৮টি- যারা ফ্রি স্টাইল ও স্নো বোর্ড করেন তাদের জন্য. সোচীতে প্রথম বিশ্ব ইতিহাসে ট্রাম্পলিন জাম্পে মহিলাকে পদক দেওয়া হতে চলেছে – আগে এই ধরনের খেলা ছিল শুধু পুরুষদের জন্যই. ফিগার স্কেটিংয়ের দলগত প্রতিযোগিতা, ববস্লে করে রিলে রেস আর বিয়াথলন প্রতিযোগিতায় মিক্সড রিলে রেস হবে এই প্রথমবারই.

এই প্রতিযোগিতাগুলো অলিম্পিকের সোচীর দুটো বিশেষ এলাকাতে করা হতে চলেছে, সমুদ্র তীরের এলাকায় প্রতিযোগিতা আয়োজন করা হয়েছে ২৯সেট মেডেলের জন্য, তার মধ্যে অলিম্পিকের হকি টুর্নামেন্টও থাকছে. আর পাহাড়ে রয়েছে সমস্ত স্কি, বিয়াথলন ও ববস্লে করার রাস্তা – সেখানে ৬৯সেট মেডেলের জন্য প্রতিযোগিতা হতে চলেছে.