বো সিলাই মামলা চিনে বিগত সময়ে দুর্নীতি নিয়ে সবচেয়ে বেশী শোরগোল তোলা বিচার প্রক্রিয়া. জুলাই মাসের শেষে ঝিনান শহরের অভিশংসক দপ্তর চিনের চুনশিন মহানগরীর প্রাক্তন দলনেতাকে সরকারি ভাবে দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহার নিয়ে অভিযোগ করেছে. অংশতঃ, তদন্তের ধারণা অনুযায়ী বো সিলাই নিজের বন্ধু ব্যবসায়ী সুই মিন ও দালিয়ান ইন্টারন্যাশনাল নামের কোম্পানীর ডিরেক্টর তান সিয়াওলিনের কাছ থেকে পঁয়ত্রিশ লক্ষ ডলার ঘুষ নিয়েছেন. রাজনীতিবিদ এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন.

গণ প্রজাতান্ত্রিক চিনের প্রাক্তন বাণিজ্য মন্ত্রী ২০০৭ সালের শেষে চুনশিন শহরের দলীয় সংগঠনের নেতা হয়েছিলেন আর খুবই দ্রুত দেশের এক অত্যন্ত জনপ্রিয় রাজনীতিবিদ হিসাবে পরিচিত হয়েছিলেন. তাঁর রাজনীতিতে বাজারের নীতি জনগনের সামাজিক সুরক্ষা বেশী করে যোগ করা হয়েছিল, আর তার সঙ্গেই সক্রিয় ভাবে দুর্নীতির সঙ্গে লড়াই. চিনের একজন সবচেয়ে বেশী সম্ভাবনাময় রাজনৈতিক নেতা হিসাবে বো সিলাইয়ের সম্বন্ধে ধরে নেওয়া হয়েছিল তাঁর অবশ্যম্ভাবী ক্যারিয়ারের উন্নতি. ধরা হয়েছিল যে, চিনের কমিউনিস্ট পার্টির অষ্টাদশ অধিবেশনের পরে তিনি দেশের পলিটব্যুরোর স্থায়ী কমিটিতে জায়গা পাবেন. বো সিলাইয়ের জনপ্রিয়তা বাড়ার পক্ষে কাজ করেছিল তাঁর ব্যক্তিগত আকর্ষণের ক্ষমতা নিঃসন্দেহে, এই কথা রেডিও রাশিয়াকে উল্লেখ করে চিনের রাজনীতিবিদ ও লস অ্যাঞ্জেলেস শহরের ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ডঃ ঝান সিন বলেছেন:

“বো সিলাই – রাজনৈতিক মঞ্চে খুবই বিশিষ্ট খেলোয়াড়, এটা যেমন তাঁর মন্তব্য সম্বন্ধে বলা যেতে পারে, তেমনই পারে তাঁর ব্যক্তিগত বিশেষত্ব নিয়েও. তাঁর প্রতি সব সময়েই মনোযোগ নিবদ্ধ ছিল: তা তিনি যখন কেন্দ্রীয় দপ্তরে কাজ করেছেন, তেমনই যখন বিভিন্ন পদে থেকেছেন. তাঁর খুবই উজ্জ্বল ব্যক্তিগত ভাবে আকর্ষণের ক্ষমতার জন্য তাঁর একটা নির্দিষ্ট রকমের সমর্থনের ভিত্তি তৈরী হয়েছিল. এখানে আমি কোনও পূর্বাভাস দিতে যাবো না, শুধু যেটা স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে, তা নিয়েই বলবো – বো সিলাইয়ের মামলার প্রতি বিশাল আগ্রহ শুধু বিভিন্ন রাজনৈতিক গোষ্ঠীই দেখাচ্ছে না, বরং সব মিলিয়ে চিনের সমাজও দেখাচ্ছে”.

গত বছরের ফেব্রুয়ারী মাসে এই স্ক্যান্ডাল শুরু হয়েছিল. এই রাজনীতিবিদের এক ঘনিষ্ঠ সহযোগী চুনশিন শহরের পুলিশের প্রধান ভান লিঝ্যুন আমেরিকার দূতাবাসে আশ্রয় খুঁজতে যাওয়ার অসফল প্রচেষ্টার পরে গ্রেপ্তার হয়েছিল. তদন্তের সময়ে চিনে ব্রিটেনের নাগরিক নিল হেইউড হত্যা নিয়ে তথ্য প্রকাশ হয়ে পড়ে, যিনি আবার এই বো পরিবারের খুব কাছের বন্ধু ছিলেন. গোয়েন্দারা প্রমাণ করেছিল যে, এই বিদেশীকে বিষ দিয়ে হত্যা করেছিল বো সিলাইয়ের স্ত্রী – গু কাইলাই. এই মহিলাকে দুই বছর পরে কার্যকরী হবে এমন মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছিল.

বো সিলাই ২০১২ সালের মার্চ মাসে চুনশিন শহরের দলীয় সম্পাদকের পদ থেকে বরখাস্ত হয়েছিলেন, এপ্রিল মাসে তাঁকে চিনা কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে বিতাড়িত করা হয়েছিল. তাঁর প্রতি সরকারি ভাবে দালিয়ান শহরের মেয়রের পদে কাজ করার সময়ে দলের নিয়ম ভঙ্গের অপরাধের দোষ দেওয়া হয়েছিল. তারপরে এই রাজনীতিবিদকে দল থেকেই বাদ দিয়ে সারা চিন জনতা প্রতিনিধি সভার সদস্য তালিকা থেকে বাতিল করে দেওয়া হয়. এই ভাবেই তিনি শেষ অবধি বিচারের ও তদন্তের বিষয়ে বাধা হওয়ার মতো সমস্ত রকমের সুযোগ থেকেই বঞ্চিত হয়েছিলেন.

বো সিলাইয়ের জন্য একটা খারাপ উপকারই করেছিল তাঁর রাজনৈতিক দৃষ্টিকোণ. তিনি বিখ্যাত ছিলেন অপরাধের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে লড়াইয়ের জন্য ও মাও সে তুংয়ের সময়ের পুরনো কমিউনিস্ট মূল্যবোধকে ফিরিয়ে আনার চেষ্টার জন্য. ফলে তাঁর জনপ্রিয়তা ও উচ্চাকাঙ্ক্ষা দলের ভিতরেই তাঁর শত্রুর সংখ্যা বাড়িয়ে তুলেছিল, এই রকম মনে করে রাশিয়ার “হায়ার স্কুল অফ ইকনমিক্সের” প্রাচ্য গবেষণা বিভাগের প্রধান আলেক্সেই মাসলভ বলেছেন:

“এটা শুধু দুর্নীতির সঙ্গেই ততটা লড়াই নয়, যতটা চিনের কমিউনিস্ট পার্টির বিভিন্ন গোষ্ঠীবদ্ধতার সঙ্গে. বো সিলাই সেই ঐতিহ্যকেই ফিরিয়ে এনেছেন, যা মনে হয়েছিল যে, অনেকদিন আগেই শেষ হয়ে গিয়েছে – বিভিন্ন অংশ থাকা ও তাতে আলাদা করে নেতার উপস্থিতি, যারা নিজেদের চারপাশে জনগনকে সংঘবদ্ধ করে থাকেন. কোন সন্দেহ নেই যে, বো সিলাইয়ের নামে দুর্নীতির অভিযোগ তোলা হয়েছে. কিন্তু সি জিনপিন যেমন বলেছেন, দুর্নীতি দেশের নেতৃত্বের সর্ব্বোচ্চ স্তরে কাজকর্মের একটা অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে. অনেকেই ও তাদের মধ্যে সাধারণ চিনের জনতা, বিশ্বাস করেন না যে, এটা দুর্নীতির বিরুদ্ধে মামলা বা দুর্নীতি পরায়ণ লোকের বিরুদ্ধে মামলা বলে. বেশীর ভাগ লোকই বলে থাকেন যে, এখানে কথা হচ্ছে একটা রাজনৈতিক প্রক্রিয়ার”.

চিনের সংবাদ মাধ্যম এই সময়ের মধ্যেই বো সিলাইয়ের আত্মীয় স্বজনের সাক্ষাত্কার প্রকাশ করেছে. শিরোনাম থেকেই তার বিষয় বস্তু সম্বন্ধে বোঝা যায়: “বো সিলাইয়ের পতন তাঁর স্ত্রীর লোভের কারণেই”. পশ্চিমের সাংবাদিকরা বিশ্বাস করেন যে, বর্তমানের প্রক্রিয়া – এটা কমিউনিস্ট পার্টির ভেতরেই একটা হেরে যাওয়া রাজনৈতিক লড়াইয়ের পরিণাম. পর্যবেক্ষকরা এই রকমের একটা পূর্বাভাসই দিচ্ছেন: বো সিলাই অপরাধী সাব্যস্ত হবেন, তবে তাঁকে জেলে ভরা হবে না – তাঁর বয়স এখন অনেক হয়েছে. আর এই বিচার অন্যান্য বিরোধীদের জন্য একটা শিক্ষা হবে.