ওবামার সংবাদ সম্মেলনের দিনেই একই সময়ে শহরের অন্য প্রান্তে শান্তিপূর্ণ ও গঠনমূলক বৈঠক অনুষ্ঠান হয় দুই দেশের পররাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষামন্ত্রীদের।

 ওবামার সংবাদ সম্মেলনে রুশ-মার্কিন দ্বিপাক্ষীক সম্পর্কে কুয়াশায় ঢাকা পরেছে স্নোডেনের ইস্যু নিয়ে। যদিও বারাক ওবামা রুশ রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের সাথে বৈঠক বাতিল করেছেন কিন্তু রাশিয়ার সাথে সব ক্ষেত্রে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে যুক্তরাষ্ট্র আগ্রহী বলে জানিয়েছেন। তবে ওয়াশিংটন আপাতত মস্কোর সাথে সম্পর্কে একটা স্বল্প বিরতি দিয়েছে। সংবাদ সম্মেলনের শেষের দিকে ওবামা ঘোষণা করেন, সোচিতে শীতকালিন অলিম্পিক গেমস বয়কট করার চিন্তা যুক্তরাষ্ট্রের নেই।

 তবে কুয়াশা এখনো কাটছে না। যখন মার্কিন রাষ্ট্রপতি তাঁর সংবাদ সম্মেলন শেষ করেছেন আর ওবামা প্রশাসনের উচ্চপদস্থ এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বার্তাসংস্থা রয়টার্স জানায়, হোয়াইট হাউস মার্কিন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা ও রুশ রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের মধ্যে বৈঠক আয়োজনে করতে প্রস্তুত রয়েছে। তবে তা হতে পারে শুধুমাত্র নির্ধারিত কর্মসূচি বিবোচনা স্বাপেক্ষে।

 ওবামার সংবাদ সম্মেলন শুরু হওয়ার আগেই ওয়াশিংটনে সেরগেই ল্যাভরোভ ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী সেরগেই শাইগু মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী চাইক হেগেল ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির সাথে ২+২ ফরম্যাট বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উভয় পক্ষ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মতামত বিনিময় করে। আর স্নোডেন ইস্যু নিয়ে কোন আলোচনা হয়নি। ল্যাভরোভ বলেন, রুশ ও মার্কিন রাষ্ট্রপতিদের সম্ভাব্য সাক্ষাতকার উপলক্ষ্যে একসারি দলিলপত্র তৈরী করেছে। দ্বিপাক্ষীক ব্যবসা-বানিজ্য সংক্রান্ত সম্পর্ক আরো বাড়ানোর বিষয়ে অধিক গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ল্যাভরোভ বলেন, “রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে কোন ঠান্ডাযুদ্ধ নেই। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক সিআইএ কর্মকর্তা এডওয়ার্ড স্নোডেনকে একটি অস্বাভাবিক চিত্রপট। আমরা বুঝতে পারছি, এই ইস্যু নিয়ে অনেক বেশি আবেগ কারছে। তবে তা আমাদের উভয় দেশের সম্পর্কে ফাটল ধরাতে পারবেন না। আমাদের সম্পর্ক আবার পিছনে চলে গেছে এমন কোন সংকেত আজকের বৈঠক শেষে আমি দেখছি না। স্নোডেনকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেওয়ার ক্ষেত্রে মস্কো আমাদের আইন ও আন্তর্জাতিক বিধি নিষেধ অনুসরণ করেছে। পুতিন-ওবামা বৈঠক স্থগিত করা হয়েছে কিন্তু গণমাধ্যমে একে বাতিল বলে উল্লেখ করা হচ্ছে। আমরা আশাবাদি, রাষ্ট্রপতি ওবামার কাছে যে আমন্ত্রপত্র রয়েছে তা আগামীতে ব্যবহার করা হবে।

 মার্কিন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা স্বীকার করেছেন যে, রাশিয়ার সাথে যে মতপার্থক্য বিরাজ করছে তা সংলাপ অনুষ্ঠিত না হওয়ার কারণ নয়। ওবামা বলেন, “আমি মনে করি সর্বশেষ ঘটনা অর্থাত স্নোডেন ই্যসু দুই দেশের ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গির একটি উদাহরণ। আমরা গত কয়েকমাস ধরেই সিরিয়া বিষয়ে ও মানবাধিকার রক্ষা নিয়ে রাশিয়াকে পর্যবেক্ষণ করছি। আমাদের একটি বিরতি দরকার এবং আমরা দেখতে চাইই যে, রাশিয়া কোথায় যাচ্ছে। আমরা যুক্তরাষ্ট্রের জন্য মঙ্গলজনক এমন কিছুই করবো এবং বিশ্বাস করছি তা রাশিয়ার জন্য ভাল হবে। তবে কিছু মতানৈক্যের অভাব রয়েছে এবং আমাদের তা গোপান রাখার সুযোগ নেই। এটি সাধারণ একটি বিষয়।

 একই সাথে ওবামা আগামী ২০১৪ সালে শীতকালিন অলিম্পিক গেমস বয়কট করার প্রয়োজনীতা নেই বলে মনে করছেন। মার্কিন কংগ্রসের একটি অংশ ও মার্কিন সমকামিরা ওবামাকে ওই আহবান জানায়।

উল্লখ্য, গত ৩ মাসে এটিই ছিল ওবামার প্রথম সংবাদ সম্মেলন।

 হোয়াইট হাউসের প্রচারণা বিভাগ এখন চেষ্টা করছে রাশিয়ার সাথে ভাল সম্পর্ক বজায় রাখার। তবে তা নিয়মিত নানা চিত্রপটের অবতারণা করে ঠান্ডা যুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। এ ধরণের একটি আভাস ওবামার সংবাদ সম্মেলনে পাওয়া যায়। এমনকি ওবামা উল্লেখ করেছেন, তিনি সবসময়ে রাষ্ট্রপতি পুতিনকে সম্পর্ক উন্নয়নে সামনের দিকে, পিছনে নয় সে বিষয়ে সাহায্য করার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু সব সময়ে তা হয়ে ওঠে না। তাছাড়া, মার্কিন স্বার্থ নষ্ট করে এমন কোন বিষয় হলে তাতে ব্যাঘাত ঘটানো হোয়াইট হাউসের একটি চিরাচরিত বদ অভ্যাস।

 তবে সাম্প্রতিক পরিস্থিততে ঠান্ডা যুদ্ধের প্রসঙ্গ এক অর্থে অমলুক একটি ঘটনা। একে আইনি পরিপন্থি বলে উল্লখ করেছেন স্বয়ং সাবেক মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার(সিআই) কর্মকর্তা এ্যাডয়োর্ড স্নোডেন যিনি ইতিমধ্যে রাশিয়ায় এক বছরের জন্য রাজনৈতিক আশ্রয় পেয়েছেন।

অবশ্য, বারাক ওবামা সিআই’র কিছু সংস্করণের ঘোষণা দেন। তবে তাঁর সংবাদ সম্মেলনের ওই দিনই লন্ডনভিত্তিক গার্ডিয়ান পত্রিকা স্নোডেনের নাম উল্লেখ করে ইন্টারনেটের ওপর নজরদারি ও টেলিফোনে আড়িপাতাসংক্রান্ত যুক্তরাষ্ট্রের গোপন কর্মসূচির কিছু তথ্য প্রকাশ করেছে ।