অধিবেশনের আগে দিমিত্রি মেদভেদেভ কৃষ্ণ সাগরের তীরে অলিম্পিক পার্ক পর্যবেক্ষণ করেছেন. প্রধানমন্ত্রী তুষার প্রাসাদে গিয়েছেন, যেখানে আইস হকি প্রতিযোগিতা হবে, আইস স্কেটিং সেন্টার ও তারই সঙ্গে তৈরী হতে যাওয়া হোটেল কমপ্লেক্স দেখেছেন. রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেছেন বেশীর ভাগ খেলাধূলার জায়গারই উঁচু মানের তৈরী থাকার কথা ও মন করিয়ে দিয়েছেন যে, সমস্ত কিছুই সময়মতো হয়ে যাওয়ার দরকার রয়েছে. তিনি এই প্রসঙ্গে বলেছেন:

“এই সব কাজ শেষ হওয়া নিয়ন্ত্রণ করার দরকার, কিছু ক্ষেত্রে প্রয়োজন পুরস্কৃত করা, আর যেখানে দরকার, সেখানে – প্রয়োজনে জরিমানা করা, সেই সব ক্ষেত্রে, যখন ঠিকাদার সংস্থাগুলো সময়ের গণ্ডী ও শর্ত লঙ্ঘণ করে, যা চুক্তিতেই রয়েছে. শেষ হওয়ার জন্য একেবারেই কম সময় রয়েছে. সমস্ত প্রশ্নই সমাধান হওয়া দরকার ও এই সব জায়গা গুলি প্রয়োজনীয় গুণমান অনুযায়ী হস্তান্তর করা দরকার”.

দিমিত্রি মেদভেদেভ একই সঙ্গে মনোযোগ দিয়েছেন সোচী শহর এই অলিম্পিকের জন্য কি রকমের তৈরী তার দিকে. বিশেষ করে মনোযোগ দেওয়া হচ্ছে নিরাপত্তার প্রশ্নে ও সমস্ত জরুরী কালীণ পরিষেবা গুলির পারস্পরিক সহযোগিতা করে কাজ করা নিয়ে. মুখ্য উদ্দেশ্য – যাতে সোচী শহরে আসা ব্যাপারটা হয় আরামের আর নিরাপদ.

নিজের পক্ষ থেকে সোচী – ২০১৪ আয়োজক কমিটির প্রধান দিমিত্রি চেরনিশেঙ্কো বলেছেন যে, গত সিজনে অলিম্পিকের জন্য তৈরী জায়গাগুলোতে প্রায় সত্তরটা পরীক্ষা মূলক প্রতিযোগিতা হয়েছে. এই সব প্রতিযোগিতার আয়োজন, যেমন খেলোয়াড়দের কাছ থেকে, তেমনই আন্তর্জাতিক খেলাধূলার সংস্থাগুলোর বিশেষজ্ঞদের কাছ থেকে প্রভূত প্রশংসা পেয়েছে. এখন এই খেলায় যারা অংশ নিতে যাচ্ছেন, তাঁদের নথিভুক্ত করার কাজ চলছে. যেমন আশা করা হয়েছে যে, সোচীতে বিশ্বের আশিটি দেশ থেকে ছয় হাজারেরও বেশী খেলোয়াড় আসবেন. এখনই এই খেলার উদ্বোধনী ও সমাপ্তি অনুষ্ঠানের সূচী তৈরী হয়ে গিয়েছে.

৬ই অক্টোবর অলিম্পিকের আগুন মস্কো আসবে ও অলিম্পিকের ইতিহাসে সবচেয়ে দীর্ঘ ও বেশী সময়ের মশাল দৌড়ের শুরু ঘোষণা করা হবে, তাই নিয়ে দিমিত্রি চেরনীশেঙ্কো বলেছেন:

“১২৩ দিন, ৬৫ হাজার কিলোমিটার – এটা দেড় বার বিষুবরেখাকে প্রদক্ষিণ করে আসা, প্রায় তিন হাজার জনপদ ঘোরা. আমরা সেই ধরনের ইন্টারেস্টিং প্রোজেক্ট প্রস্তুত করেছি, যেমন, এই আগুনের উত্তর মেরু ঘুরে আসা. আমরা রসকসমস সংস্থার সাথে চুক্তি করেছি যে, অলিম্পিকের মশাল উন্মুক্ত মহাকাশেও বের হবে”.

সোচী শহরের অধিবেশনে দিমিত্রি মেদভেদেভ উল্লেখ করেছেন যে, কাজানের গ্রীষ্ম ইউনিভার্সিয়াডের অভিজ্ঞতাও কাজে লাগাতে হবে. তাঁর কথামতো, সেখানে কাজ করা হয়েছে খুবই উঁচু দরের.