পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ভোট গ্রহণ চলছে। দেশটির সংবিধান অনুযায়ী পাকিস্তানের পার্লামেন্টের উচ্চ ও নিম্নকক্ষ এবং প্রাদেশিক পরিষদের সদস্যরা আগামী পাঁচ বছরের জন্য নতুন রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত করবেন।

পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ সিনেট, নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদ, পাঞ্জাব, সিন্ধু, খাইবার পাখতুনখোয়া ও বেলুচিস্তানের প্রাদেশিক পরিষদের এমপিরা ভোট দিয়ে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন করবেন।

বিরোধী দলগুলো আজকের নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে। প্রধান বিরোধী দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) এই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে না।

প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের ক্ষমতাসীন দল পাকিস্তান মুসলিম লিগ (পিএমএল-এন) মনোনীত প্রার্থী মামনুন হুসাইন স্পষ্টতই এগিয়ে রয়েছেন বলে বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন। মামনুন প্রভাবশালী ব্যাবসায়ী ও সিন্ধু প্রদেশের সাবেক গভর্নর ছিলেন।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের সুপ্রীম কোর্ট নির্বাচনের পূর্বনির্ধারিত তারিখ ৬ আগস্টের পরিবর্তে ৩০ জুলাই ঘোষণা দেন।

রাষ্ট্রপতি নির্বাচন উপলক্ষে পার্লামেন্টে কঠোর গোপনীয়তা বজায় রাখা হবে। এমপিরা মোবাইল ফোন বা ক্যামেরা সঙ্গে নিতে পারবেন না। এছাড়া যে কোন সম্ভাব্য হামলা প্রতিরোধে রাজধানী ইসলামাবাদে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।