পাকিস্তানের বৃহত্তম বিরোধী রাজনৈতিক পার্টি – পাকিস্তান পিপলস পার্টি দেশে রাষ্ট্রপতির নির্বাচন বয়কট করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে, যা নির্ধারিত হয়েছে এ বছরের ৩০শে জুলাই. এ সম্বন্ধে শুক্রবার ইসলামাবাদে এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছেন পাকিস্তান পিপলস পার্টির নেতৃবৃন্দ. পাকিস্তান পিপলস পার্টি থেকে রাষ্ট্রপতি পদের প্রার্থী রজা রাব্বানি দেশের কেন্দ্রীয় নির্বাচনী কমিশনে নথিভুক্ত প্রার্থী-তালিকা থেকে নিজের নাম ইতিমধ্যে সরিয়ে নিয়েছেন. বিশ্লেষকদের মতে, পাকিস্তান পিপলস পার্টির নেতৃবৃন্দ এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে বাধ্য হয়েছে পার্টির জনপ্রিয়তা অতিমাত্রায় কমে যাওয়া উপলক্ষে. ২০০৮-২০১৩ সালে শাসন ক্ষমতায় থাকা কালে বহু সংখ্যক দূর্নীতির কাণ্ড এবং অ-ফলপ্রসূ স্বরাষ্ট্র ও পররাষ্ট্র নীতির জন্য পার্টি ভীষণভাবে মর্যাদা হারিয়েছে. এইভাবে, পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতির পদের জন্য নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক পার্টি ও আন্দোলনের ২২ জন প্রতিনিধি. রাষ্ট্রপতির নির্বাচনে জয়লাভের সবচেয়ে বেশি সুযোগ আছে ক্ষমতাসীন পাকিস্তান মুসলিম লীগ পার্টির প্রার্থী, সিন্ধ প্রদেশের প্রাক্তন গভর্নর মামনুন হুসেইনের.