উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রপ্রধান কিম চেন ঈন বৃহস্পতিবার ১৯৫০-১৯৫৩ সালে কোরীয় যুদ্ধে নিহত কোরীয় গণ বাহিনীর যোদ্ধাদের স্মৃতি-সমাধিস্থলের পুনর্গঠন শেষ হওয়া উপলক্ষে সমারোহে অংশগ্রহণ করেন. দেশ মুক্তি যুদ্ধে বিজয়ের ৬০তম বার্ষিকীর প্রতি উত্সর্গীত এ সমারোহে আমন্ত্রণ করা হয়েছিল প্রাক্তন চীনা স্বেচ্ছাসেবীদের, যারা উত্তর কোরিয়ার পক্ষে লড়াই করেছিল. এ সমারোহে তাছাড়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে দুজন কোরীয় যুদ্ধের প্রবীণ যোদ্ধা উপস্থিত ছিলেন. বিজয় দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য পিয়ংইয়ংয়ে পৌঁছেছেন আরব সমাজতান্ত্রিক পুনরুত্থান পার্টির (“বাআস” পার্টির) সহকারী সাধারণ সম্পাদক আব্দাল্লা আল-আখমারের নেতৃত্বে সিরিয়ার প্রতিনিধিদল. চীনের উপ-সভাপতি লি ইউয়ানচাও-র নেতৃত্বে চীনের সরকারী প্রতিনিধিদলের উত্তর কোরিয়ায় পৌঁছোনোর অপেক্ষা করা হচ্ছে. চীনকে উত্তর কোরিয়ার মুখ্য মিত্রদেশ এবং বাণিজ্যিক-অর্থনৈতিক শরিক বলে বিবেচনা করা হয়.