স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানী জিগফ্রিড হেকের ভিয়েনা শহরে পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষা সর্বজনীন ভাবে নিষিদ্ধকরণ সংক্রান্ত এক সেমিনারে বক্তৃতা দিতে গিয়ে বলেছেন যে, তাঁর তিন বছর আগে এই দেশে যাওয়া ও সেখানে পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষার উপযুক্ত বলে সন্দেহ হওয়া দুটি বিশেষ সুড়ঙ্গ দেখতে পাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে তিনি মনে করেন যে, উত্তর কোরিয়া এই ধরনের অস্ত্র পরীক্ষার জন্য সম্পূর্ণ ভাবেই তৈরী আছে. এই দুটি সুড়ঙ্গের মধ্যে একটি খুবই গুরুতর সন্দেহের সৃষ্টি করেছে. তারা এটা করছে না শুধু চিনের পক্ষ থেকে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া ও অসন্তোষের কথা ভেবে.

২০০৫ সালে উত্তর কোরিয়া নিজেদের পারমাণবিক অস্ত্র সম্বলিত রাষ্ট্র বলে ঘোষণা করেছিল. তারা ২০০৬, ২০০৯ ও ২০১৩ সালে ভূগর্ভে পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষা করেছে. এটা সারা বিশ্ব সমাজের আপত্তির কারণ হয়েছে ও রাষ্ট্রসঙ্ঘের তরফ থেকে নিরাপত্তা পরিষদ বেশ কিছু নিষেধাজ্ঞা নিয়েছে এই দেশ সম্পর্কে, যাতে তারা এই ক্ষেত্রে পরীক্ষা নিরীক্ষা সম্পূর্ণ ভাবেই বন্ধ করে দেয়.