ভারত সরকারের মন্ত্রী পরিষদের নিরাপত্তা সংক্রান্ত কমিটি চীনের সাথে সীমানার বিতর্কিত অংশে (বাস্তবিক নিয়ন্ত্রণ রেখায়) অতিরিক্ত ৫০ হাজার সৈনিক মোতায়েন অনুমোদন করেছে. কর্তৃপক্ষ এজন্য ৬৫ হাজার কোটি টাকা ( ১০০০ কোটি ডলারের উপর) বরাদ্দ করবে, জানিয়েছে “পি.টি.আই” সংবাদ এজেন্স. বাহিনী পাঠানো হবে পশ্চিমবঙ্গ, বিহার, আসাম এবং জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যে. তাছাড়া, সেনাবাহিনী সীমানার কাছে পাঠাবে সামরিক-পরিবহণ বিমান “এস-১৩০” (এস-১৩০জে সুপার হার্কিউলিস).সৈন্য প্রেরণে কত সময় লাগবে, তা জানানো হয় নি. আগে জানানো হয়েছিল যে, এপ্রিলের মাঝামাঝি বাস্তবিক নিয়ন্ত্রণ রেখায় (ভারত ও চীনের মাঝে বিভাজন রেখা, যা প্রকৃতপক্ষে সীমানা হয়ে দাঁড়িয়েছে) আরও একটি ঘটনা ঘটেছে. চীনা সৈনিকরা ১৫ই এপ্রিল ভারতীয় ভূভাগের ১৯ কিলোমিটার গভীরে অনুপ্রবেশ করে জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যের লাদাখ অঞ্চলের দৌলত-বেগ-ওলদি এলাকায়, এবং সেখানে তাঁবুর শিবির পাতে. একসারি আলাপ-আলোচনার পরে পক্ষদ্বয় নিজেদের আগের জায়গায় সৈন্যবাহিনী ফিরিয়ে আনে এবং সেখানে স্থিতাবস্থা পালনে ফিরে আসার ব্যাপারে সমঝোতায় আসে.