চলতি বছরে রাশিয়ার ৪ হাজার ১’শ মুসলামান হজ পালন করতে পারবেন না। সৌদি আরব সারা বিশ্ব থেকে হাজযাত্রীর সংখ্যা শতকরা ২০ ভাগ কমানার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মক্কা শরিফ সংস্করণ, জেদ্দা ও মদিনার বিমানবন্দর সম্প্রসারণ এবং আরাফাত, মিনা ও মুজদালিফার মধ্যকার সড়ক সংস্করণের কারণেই সৌদি সরকার এ নিয়ম ধার্য করেছে।

আর এ কারণেই ২০ হাজার ৫০০ হজযাত্রীর স্থলে মাত্র ১৬ হাজার ৪’শ রুশ পবিত্র ভূমিতে যাওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। যারা প্রথমবার হজ পালন করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন তাদের আগে সুযোগ দেয়া হবে। অত্যন্ত কঠোরভাবে এ নিয়ম মেনে চলা হবে। হজের জন্য নিবন্ধিত রাশিয়ার ৮টি ট্যুর অপারেটর ও ট্রেভেল এজেন্সি যদি এ নিয়ম ভঙ্গ করে তাহলে তাদের হজ্জ সেবা প্রদানের অনুমোদন বাতিল করা হবে।

ফেডারেল পরিষদের উপ-সহকারি ও হজ্জ পরিষদের সভাপতি ইলইয়াস উমাখানোভ বলেছেন, "বর্তমানে অভ্যন্তরীণ তদারকি ছাড়াও রাশিয়ার হজ মিশনের বহির্গত দিক দিয়ে তদারকি করা হবে। যাদের কাছে আগ্রহী ও অপেক্ষামান হজযাত্রীর তালিকা রয়েছে তাও বিবেচনা করা হবে। হজ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের নির্দেশ এটি। সৌদি দূতাবাস এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপণ ইতিমধ্যে প্রচার করেছে এবং আমরা এ সংবাদ রাশিয়ার প্রতিটি মুসলিম কমিউনিটির কাছে পৌঁছে দিয়েছি। যে সব ট্যুর অপারেটর এ নিয়ম ভঙ্গ করবে আমরা কোন ছাড় না দিয়ে হজ প্রক্রিয়া থেকে তাদের বাতিল বলে ঘোষণা করবো।"

কেন্দ্রীয় মুসলিম সংগঠন ও রাশিয়ার বিভিন্ন প্রজাতন্ত্রের মুসলিম কমিউনিটির প্রতিনিধিরা হজ পরিষদের কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত আছেন। গত ২৯ এপ্রিল এসব সংগঠনগুলোর মধ্যে হাজীদের সংখ্যা নির্ধারণ করে দেয়া হয়। যেহেতু হাজীদের সংখ্যা কমিয়ে আনা হয়েছে তাই হজ পরিষদ আবারও মস্কোতে মিলিত হয়েছে। ইলইয়াস উমাখানোভ আরো বলেন, "আমরা প্রতিটি সংগঠন থেকে শতকরা ২০ ভাগ হাজিদের সংখ্যা কমিয়ে এনেছি। তাই, আমাদের প্রতিটি ইসলামিক কমিউনিটির পরিচালকরা বিষয়টি স্বাভাবিকভাবে নিয়েছেন। অবশ্যই, যাদের কাছে সংখ্যা অনেক বেশি তারা এ হ্রাস পাওয়া উপলব্ধি করতে পারবেন।"

অন্যদিকে রাশিয়ার মুফতি পরিষদ থেকে হাজিদের সংখ্যা ৬০০ জনে কমিয়ে দেয়া হয়েছে। সোভিয়েত মুফতি পরিষদের হজ ও উমরা বিষয়ক বিভাগের পরিচালক রাশিদ হাজরত খালিকোভ রেডিও রাশিয়াকে বলেন, "যারা প্রথমবার হজ পালন করতে যাবেন আমরা তাদের প্রাধান্য দিবো, কারণ এ ধরণের নিয়ম রয়েছে। আজকের দিন পর্যন্ত আমাদের প্রতিটি আসন পূরন হয়ে গেছে। আমরা সবাইকে সাথে সাথেই জানিয়ে দিয়েছি যে, কোটা কমিয়ে দেয়া হয়েছে এবং সবাই বিষয়টি বুঝতে পেরেছে। হাজিদের সুবিধার জন্যই সৌদি আরবের মসজিদ, রাস্তাঘাট ও অন্যান্য অবকাঠামোর উন্নয়ন আমাদের মুসলমানরা স্বাগতম জানিয়েছে। তবে সবার কাছে একটি প্রশ্ন তা হচ্ছে, রাশিয়ার জন্য কেন মাত্র ২০ হাজার ৫’শ কোটা বরাদ্ধ দেয়া হয়।"

হজ পরিষদের সূত্র মতে, কোটা কম থাকার কারণে প্রতিবছর ১০ থেকে ১৫ হাজার ইচ্ছুক রুশ মুসলমানরা হজ পালন করতে পারছেন না। তাই সঙ্গত কারণেই কোটা বৃদ্ধি রাশিয়ার মুসলিম উম্মার জন্য কার্যকরী প্রশ্ন হিসেবে পরিনত হয়েছে।