শুরু করছি আমাদের নিয়মিত পাক্ষিক অনুষ্ঠান - 'রাশিয়ার আদ্যোপান্ত'.

     এই অনুষ্ঠানে আমরা আপনাদের পাঠানো প্রশ্নাবলীর ভিত্তিতে রাশিয়া সম্পর্কে বিষদে জানিয়ে থাকি.

     তাই ভারত, বাংলাদেশ, পাকিস্তান, মরিশাসের বাসিন্দা আমাদের নিয়মিত শ্রোতা ও পাঠকদের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি যত বেশি সম্ভব প্রশ্ন পাঠানোর আমাদের দেশ সম্পর্কে. আজ আমরা উত্তর দেব নিম্নোক্ত প্রশ্নগুলিরঃ

     পাকিস্তানের শেখপুর থেকে আমাদের নিয়মিত শ্রোতা নাবিদ আব্বাস জানতে চেয়েছেন - তাতারস্তান প্রজাতন্ত্রের আয়তন কত? বাসিন্দাদের মধ্যে শতকরা কত ভাগ মুসলমান ও কত মসজিদ আছে সেখানে?

     রাশিয়া কোন কোন পণ্যদ্রব্য বিদেশে রপ্তানি করে  -   জানতে চান ভারতের পাটনা থেকে গীতা শর্মা ও পাকিস্তানের পঞ্জাব প্রদেশ থেকে আমির মঞ্জুর.   

     অতএব শুরু করছি পাকিস্তানবাসী নাভিদ আব্বাসের প্রশ্নের উত্তরে তাতারস্তান প্রজাতন্ত্রের বর্ণনা. এই প্রজাতন্ত্র রুশ ফেডারেশনের মধ্যাঞ্চলে দুটি বড় নদী ভোলগা ও কামার সঙ্গমস্থলে অবস্থিত. ভৌগলিক আয়তন প্রায় ৬৮ হাজার বর্গ কিলোমিটার. আয়তনের দিক দিয়ে তাতারস্তান ডেনমার্ক, লাটভিয়া, লিথুয়ানিয়ার মতো ইউরোপীয় দেশগুলির চেয়ে বড়.  ভোলগা নদীর তীরবর্তী অন্যতম সুদৃশ্য শহর কাজান তাতারস্তানের রাজধানী.

     জনসংখ্যা ৪০ লক্ষের কাছাকাছি. তাতার ও রুশী ছাড়াও এই প্রজাতন্ত্রের ভূখন্ডে প্রায় ১২০টি জাতির লোক বসবাস করে. ষোড়ষ শতাব্দীর মাঝামাঝি পর্যম্ত ঐ ভূখন্ড ছিল কাজানি খান সাম্রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত. ইভান দ্য টেরিবল মস্কোর সিংহাসনে আসীন থাকাকালে রুশী যোদ্ধারা ঐ সাম্রাজ্য জয় করে রুশ সাম্রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত করেছিল.

     রাশিয়ার এই অঞ্চলে দশম শতাব্দী থেকেই ছিল সুন্নী মুসলমানদের বসবাস. রাশিয়ার সাথে সংযুক্ত হওয়ার পরেই কেবলমাত্র সেখানে অর্থোডক্স খ্রীশ্চান ধর্মের উদয় হয়. এখন সেখানকার বাসিন্দাদের মোটামুটি অর্ধেক মুসলমান ও অর্ধেক খ্রীশ্চান. ধর্মগত কারণে সেখানে কোনদিন বিবাদ হয়নি.

    দুই ধর্মের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের প্রতীক - কাজানের ক্রেমলিন. সেখানে কুল শরিফ মসজিদের পাশেই অবস্থিত অর্থোডক্স খ্রীশ্চান ক্যাথেড্রাল. মানুষজন একসাথেই পালন করে যেমন মুসলিম, তেমনই খ্রীশ্চান উত্সবাদি.

    তাতারস্তানের শহর ও গঞ্জে মোট ১৩০০ মসজিদ আছে, গোটা রাশিয়ায় এদের সংখ্যা প্রায় সাত হাজার. ধর্মান্তরিত হওয়া  সেখানে মামুলি ব্যাপার - সেটা প্রত্যেক নাগরিকের নিজস্ব পছন্দের ব্যাপার.

    মুলতঃ কখন কেউ এক ধর্ম ছেড়ে অন্য ধর্ম গ্রহণ করে?

    বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার সময়. যদি পাত্র মুসলিম ধর্মের আচার অনুযায়ী বিবাহ করার ব্যাপারে অনড় থাকে, তাহলে পাত্রী ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে. আর দয়িতদয়িতাদের মধ্যে কেউ যদি নাছোড়বাঁধা হয় অর্থোডক্স খ্রীশ্চান রীতি  মেনে বিয়ে করার জন্য,  তাহলে অন্যজন ধর্মান্তরিত হয়.  আর তাদের সন্তানরা নিজেরাই বেছে নেয় তাদের ধর্ম.

    শুধুমাত্র তাতারস্তানেই নয়, রাশিয়ার সর্বত্র তাতারদের বাস. বহু শতক ধরেই রাশিয়ায় একটা কথা চালু আছেঃ যদি কোনো রুশীকে খোঁড়ো, নির্ঘাত তার  মধ্যে তাতারের সন্ধান পাবে. এর কারণ দুই শতাব্দী ব্যাপী সর্বাত্মক তাতার-মোঙ্গল আধিপত্য. তাদের বশবর্তী স্লাভিয়ানরা বাধ্য হয়েছিল তাতারদের সাথে দেহমিলনে. তাই বহু রুশীর ধমনীতে আছে তাতার রক্ত.

    রাশিয়ার বাইরেও বহু তাতার বসবাস করে. এপ্রিল মাসে বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে ইউরোপীয় তাতারদের জোট গঠন করা হয়েছে. ১৫টি দেশের তাতার সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিরা সেখানে যোগ দিয়েছেন. আর সবমিলিয়ে রাশিয়ার বাইরে ৩০ হাজার তাতার বসবাস করে.

    আর তাতারস্তানের প্রসঙ্গ শেষ করার আগে আপনাদের স্মরণ করিয়ে দিতে চাই, যে ভারত ও পাকিস্তানবাসীরা খুব ভালো করেই  অবহিত  তাতারস্তানে উত্পাদন করা ভারী মালবাহী গাড়ি, বাস, ট্রেকার, বুলডোজার ইত্যাদি সম্পর্কে. তার উত্পাদক তাতারস্তানে অবস্থিত কামাজ কারখানা.

    ভারতে কামাজের উত্পাদিত গাড়ি জোড়া দেওয়া হয় কামাজ ভেকট্রা মোটরস লিমিটেড নামক শিল্প প্রতিষ্ঠানে আর পাকিস্তানে বিবোজী সার্ভিসেস লিমিটেড নামক প্রতিষ্ঠানে.

    আর এবার একটু জিরিয়ে নিন, শুনুন একটি গান. 

    'রাশিয়ার  আদ্যোপান্ত'  অনুষ্ঠান আপনারা পড়ছেন বা শুনছেন রেডিও রাশিয়ার সাইটে বা বেতার তরঙ্গে.  এবার আসছি দ্বিতীয় প্রশ্নের উত্তরেঃ ভারত থেকে গীতা শর্মা ও পাকিস্তান থেকে আমির মঞ্জুর জানতে চেয়েছেন, যে রাশিয়া থেকে কোন কোন পণ্যদ্রব্য বিদেশে রপ্তানি করা হয়.

    আমরা খুঁজে পেয়েছি ৩৯টি সেরকম আর্টিকেল, যার মধ্যে প্রথম স্থানে রয়েছে কাঁচা অশুদ্ধ খনিজ তেল, বিভিন্ন পেট্রোলিয়াম জাত পদার্থ ও প্রাকৃতিক গ্যাস. তার ঠিক নীচেই রয়েছে হেভি মেশিন্যারিজ, যার মধ্যে সামরিক সামগ্রীও রয়েছে.

     গাড়িও কি বিদেশে রপ্তানি করা হয়?

     হ্যাঁ, তোলিয়াত্তি  শহরের মোটরনির্মাতারা   'লাদা কালিনা'  মডেলের গাড়ি  বিদেশে বিক্রি করে আর তাতারস্তান  প্রজাতন্ত্রে  অবস্থিত নাবেরেঝনিয়ে  চেলনি থেকে কামাজ কারখানার বাস, ট্রাক, বুলডোজার ইত্যাদি রপ্তানি করা হয়, যে সম্পর্কে আমরা একটু আগেই জানিয়েছি.

      বিশাল পরিমাণে রপ্তানি করা হয় ধাতব কারখানাগুলিতে উত্পাদিত বিভিন্ন নিরেট ধাতু ও ধাতব সামগ্রী. রপ্তানির তালিকায় আরও আছে জৈব সার, বিদ্যুত শক্তি, কাঠ, সেলুলোজ, প্লাই উড ইত্যাদি.

      আর কৃষি পণ্যের কথা বলতে গেলে, জানাই যে রাশিয়া থেকে  বিদেশে রপ্তানি করা হয় প্রধানতঃ গম, বাজরা ও ভুট্টা. গত বছর মোট ১,৫ কোটি টন দানাশস্য রপ্তানি করা হয়েছিল, যার মধ্যে গমের পরিমাণ ছিল ১,১ কোটি টন.

     রাশিয়া থেকে রপ্তানিকৃত দ্রব্যের তালিকায় সবশেষ স্থানে আছে সূতী কাপড়. আমাদের দেশে তুলো জন্মায় না, তাই উত্পাদকরা আমদানীকৃত তুলো দিয়ে মাল বানায়.

     তবে রাশিয়ায় চাষ করা হয় তসরের. রাশিয়ার তসরের চাহিদা রয়েছে সারা ইউরোপে. বছরের পর বছর ধরে তসরের রপ্তানির পরিমাণ ক্রমাগত বেড়েই চলেছে.  

     'রাশিয়ার আদ্যোপান্ত' অনুষ্ঠানটি এবারের মতো এখানেই শেষ করছি. আমরা আপনাদের কাছ থেকে  রাশিয়া সম্পর্কে নতুন নতুন প্রশ্নের অপেক্ষায় থাকবো. আমাদের ঠিকানাঃ Department of broadcasting to India & Pakistan, Voice of Russia, 25 Pyatnitskaya street, Moscow- 115326, Russia.  ইন্টারনেটে আমাদের কাছে লেখার ঠিকানা -  letters@ruvr.ru