প্যারিসের থেকে দক্ষিণে বেরতেনই-স্যুর-অর্জ নামের জায়গায় বিকেল পাঁচটার পরে একেবারে পিক আওয়ারে একটা লোকাল ট্রেন প্যারিস থেকে লিমোজ যাওয়ার পথে রেল লাইন চ্যুত হয়েছে, ট্রেনে যাত্রী ছিল প্রায় ৩৭০ জন, ফলে ৬ জনের ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয়েছে, ৯ জন অত্যন্ত আশঙ্কাজনক অবস্থায় ও আরও ১২ জন খুবই কঠিন অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন. এছাড়া অনেকেই নানা রকমের চোট ও আঘাত পেয়েছেন. গত ২৫ বছরের মধ্যে ফ্রান্সে এত বড় ট্রেন দুর্ঘটনা হয় নি বলে “ফ্রান্স ২৪” টেলিভিশন চ্যানেলে বলা হয়েছে. রাষ্ট্রপতি ফ্রান্সুয়া অল্যান্দ শুক্রবার সন্ধ্যায় এই দুর্ঘটনার জায়গায় এসেছিলেন ক্ষতিগ্রস্তদের ও ত্রাণ কর্মীদের মানসিক ভাবে সহায়তা দিতে.

সংবাদ মাধ্যমের খবরে ট্রেনটি দুই ভাগে ভাগ হয়ে গিয়েছে, অন্তত দুটি কামরা এখানের স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে ধাক্কা খেয়ে তার ছাউনিতে আটকে গিয়েছে. এই শহরে লোকাল ট্রেনটির দাঁড়ানোর কথাই ছিল না. সরকারের প্রতিনিধিরা ঘোষণা করেছেন যে, আপাততঃ এই বিপর্যয়ের কারণ জানা যায় নি, এর আগে ফ্রান্সে ২০০২ সালে আরও একটি ট্রেন দুর্ঘটনায় ১২ জনের মৃত্যু হয়েছিল. ১৯৮৮ সালে প্যারিসে একটি সবচেয়ে ভয়ঙ্কর ট্রেন দুর্ঘটনা ঘটেছিল, তখন লিওন স্টেশনে দুটি লোকাল ট্রেনের সংঘর্ষে ৫৬ জনের মৃত্যু হয়েছিল.

এই দুর্ঘটনার ফলে প্যারিস থেকে দেশের দক্ষিণে ট্রেন চলাচল ব্যাহত হয়েছে ও তা কখন আবার ঠিকমতো চালু হবে, তা কেউই বলছে না.