পাকিস্তানের কিশোরি ও ইন্টারনেটে ব্লগ লেখিকা মালালা ইউসুফজাই গতকাল নিজের ১৬ বছরের জন্মদিনে নিউইয়র্কে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সভায় বক্তৃতা দিয়েছে. এই দিনকে রাষ্ট্রসঙ্ঘ মালালা দিবস বলে ঘোষণা করেছে. গত বছরের অক্টোবর মাসে, তার মাথায় সন্ত্রাসবাদীরা গুলি করার পরে এটা তার প্রথম প্রকাশ্য অনুষ্ঠান.

মালালা ইউসুফজাই রাষ্ট্রসঙ্ঘে বলেছে যে, সন্ত্রাসবাদের হুমকি তাকে থামাতে পারবে না. নিজের বক্তৃতায় সে ছোটদের লেখাপড়া করার অধিকার রক্ষা নিয়ে বলেছে. সে একই সঙ্গে শিশু ও নারীদের অধিকার রক্ষা নিয়েও বলেছে.

রাষ্ট্রসঙ্ঘের এই অধিবেশনে প্রায় ৮৫টি দেশের ৫০০ যুব নেতা ও নেত্রী উপস্থিত ছিল. তাদের সঙ্গে ছিলেন রাষ্ট্রসঙ্ঘের মহাসচিব বান কী মুন ও প্রাক্তন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ও বর্তমানে রাষ্ট্রসঙ্ঘে গ্রেট ব্রিটেনের স্থায়ী প্রতিনিধি গর্ডন ব্রাউন.

মালালা ইউসুফজাই ইন্টারনেটে ব্লগ বিখে বিখ্যাত হয়েছিল, যেখানে সে ছেলেদের মতই মেয়েদের জন্যও নিজের দেশে পড়াশোনা করার অধিকার চেয়েছিল. পাকিস্তানে তাকে হত্যা করার প্রচেষ্টার পরে, সে এখন ব্রিটেনে থাকে, যেখানে তার চিকিত্সা হয়েছিল.