চীনের গণ-মুক্তি ফৌজের সৈনিকরা ভারতের উত্তর-পুবে লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার অঞ্চলে ভারতের দ্বারা বসানো ক্যামেরা সরিয়ে ফেলেছে. এ ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ.কে.অ্যান্টনির প্রথম চীন সফরের কয়েক সপ্তাহ আগে. ভারতের মন্ত্রী চীন সফর করেন গত সপ্তাহে. এ সম্বন্ধে লিখেছে ভারতের “হিন্দু” পত্রিকা, দেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক উত্সকে উদ্ধৃত করে. খবরে বলা হয়েছে যে, ভারতের সৈনিকরা ক্যামেরা বসিয়েছিল চুমার অঞ্চলে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার চৌকির সামনে. ক্যামেরায় চীনা বাহিনীর চলা-ফেরা নথিভুক্ত হওয়ার কথা, কারণ চৌকিটি রয়েছে টিলার উপর এবং সেখান থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরত্ব অবধি দেখতে পাওয়া যায়. উত্স বলেন যে, ভারতীয় পক্ষ হারানো ক্যামেরার কথা তুলেছিল ১৯শে জুন দু দেশের সামরিক প্রতিনিধিদের সাক্ষাতে. পরে চীনা পক্ষ ক্যামেরাটি ফিরিয়ে দেয় অকেজো অবস্থায়. চীন ও ভারতের সেনাবাহিনী সক্রিয়ভাবে টহল দিচ্ছে লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায়, কারণ এপ্রিলে চীনের গণ মুক্তি ফৌজের সৈনিকরা এ রেখা অতিক্রম করে ভারতের নিয়ন্ত্রণাধীন এলাকায় শিবির গড়ে তোলে. এ ঘটনা মীমাংসিত হওয়ার পরে চীন ও ভারত সীমানায় শান্তি বজায় রাখছে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নতির জন্য.