লন্ডনে ইকোয়েডরের দূতাবাসে গোপন মাইক্রোফোন খুঁজে পাওয়া গেছে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিকার্ডো পাতিনিও-র উদ্ধৃতি দিয়ে বুধবার জানিয়েছে “তেলেগ্রাফো” পত্রিকার ইন্টারনেট-পোর্টাল. পত্রিকাটির তথ্য অনুযায়ী, এ যন্ত্র পাওয়া গেছে রাষ্ট্রদূতের কাজের ঘরে. লন্ডনে ইকোয়েডরের দূতাবাসে ২০১২ সালের জুন মাসের মাঝামাঝি থেকে রয়েছে কেলেঙ্কারী জাগানো “উইকিলিক্স” সাইটের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান আসাঞ্জ. আগস্টে ইকোয়েডর তাকে আশ্রয় দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে, কিন্তু গ্রেট-বৃটেনের কর্তৃপক্ষ তাকে সুইডেনের হাতে সমর্পণ করতে বদ্ধপরিকর, আর সুইডেন আসাঞ্জ-কে পাঠিয়ে দিতে পারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে, যেখানে তার মৃত্যুদণ্ড হতে পারে. সাংবাদিক নিজে তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ চূড়ান্তভাবে অস্বীকার করেছে, এবং তাকে “নোংরা অভিযানের” অংশ বলে অভিহিত করেছে, যা “উইকিলিক্সের” বিরুদ্ধে চালানো হচ্ছে আফগানিস্তানে ও ইরাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক অভিযান সংক্রান্ত গোপন তথ্যাবলি প্রকাশের পরে.