মিশরে প্রতিবাদকারীরা রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সির শুধু পদত্যাগই নয়, তাঁর দ্বারা সাধিত সমস্ত অপরাধের তদন্ত করার দাবি করছে. এ সম্বন্ধে রেডিও রাশিয়াকে বলেছেন মিশরের “তাগাম্মু” পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য শরিফ ফৈয়াদ. তাঁর মতে, মিশরের জনগণের জন্য, যারা রাস্তায় বের হয়েছে, একমাত্র গ্রহণযোগ্য মীমাংসা হল “মুর্সি এবং তাঁর গোটা সরকারের পদত্যাগ”. আর সেনাবাহিনী, উক্ত ক্ষেত্রে, কর্তৃপক্ষকে যেকোনো এক মীমাংসা খোঁজারই প্রস্তাব করছে না, যেন বলছে: “আমাদের অন্য উপায় নেই, নিজেদের পদ ত্যাগ করুন”. ফৈয়াদ মনে করেন, মুর্সির সরকারের পদত্যাগের পর সেনাবাহিনী মুর্সির মন্ত্রী পরিষদ এবং “ভাই মুসলমান” আন্দোলনের সমস্ত অপরাধ প্রকট করার জন্য আদালতী তদন্তের প্রয়োজনীয়তার কথা ঘোষণা করবে. নিজের তরফ থেকে “বিপ্লব রক্ষার কমিটিগুলির কোয়ালিশন” নামে আন্দোলনের নেতৃত্বকারী আহমেদ সালা মনে করেন যে, মিশরে মুর্সির হাতে আর শাসন ক্ষমতা নেই. বেতারকেন্দ্রকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে তিনি উল্লেখ করেন যে, মুর্সির নীতির প্রতি জনসাধারণের অসন্তোষ সর্বোচ্চ মানে গিয়ে পৌঁছেছে. কর্তৃপক্ষ যদি মিছিলকারীদের বিরুদ্ধে বল প্রয়োগ করে, তাহলে দ্বিতীয় বিপ্লব এড়ানো সম্ভব হবে না, বলেন তিনি.