রবিবারে মুহাম্মেদ মুর্সির বহু লক্ষ বিরোধী সারা দেশ জুড়ে সমাবেশ ও মিছিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যাতে তারা দেশের কর্ণধারের প্রতি নিজেদের অনাস্থা প্রকাশ করতে পারে ও তার পদত্যাগ দাবী করতে পারে. “আল-আখরাম” নামের সংবাদপত্র জানিয়েছে যে, বহু শত মানুষ ইতিমধ্যেই দেশের প্রধান চত্বরে হাজির হচ্ছেন. বর্তমানের রাষ্ট্রপতির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের বর্ষপূর্তি উপলক্ষে এই গণ মিছিল হচ্ছে.

এর আগে শনিবারে “আদ-দুস্তুর” দলের নেতা মুহাম্মেদ আল-বরাদেই ঘোষণা করেছেন যে, ইজিপ্টের রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সির সমস্ত বিরোধী দেরই দেশের শহরগুলির রাস্তায় বের হওয়া উচিত্, যাতে দেশের প্রধান বাধ্য হন সময়ের আগেই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ঘোষণা করতে. নোবেল শান্তি পুরস্কার প্রাপ্ত প্রাক্তন আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংস্থার প্রধান ঘোষণা করেছেন যে, দেশের পতন অনিবার্য, কারণ বর্তমানের প্রশাসন সম্পূর্ণ ভাবেই অযোগ্য.

৩০শে জুন প্রতিবাদ কার্যের উদ্যোগী হয়েছে দেশের যুব আন্দোলন “আত-তামার্রুদ”, যারা ইতিমধ্যেই মুর্সির বিরুদ্ধে ২কোটি ২০লক্ষ স্বাক্ষর সংগ্রহ করতে পেরেছে. দেড় মাস ধরে করা নিজেদের কাজের ফলাফল এই আন্দোলনের নেতারা ঠিক করেছে দেশের বিচার প্রশাসনের হাতে তুলে দেওয়ার, যাতে রাষ্ট্রপতিকে তাঁর পদত্যাগ করার প্রক্রিয়ার মধ্যে ঠেলে দেওয়া যায়. বিরোধীরা মুর্সির বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন যে, তিনি দেশ চালাচ্ছেন “মুসলমান ভাইদের” স্বার্থের কথা চিন্তা করে আর দেশে একটা স্বৈরতন্ত্রী শাসন কায়েম করছেন.

এরই মধ্যে সংবাদ মাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী শনিবারে রাষ্ট্রপতি মুর্সির সমর্থক ও বিরোধীদের মধ্যে সংঘর্ষে ৮জন নিহত হয়েছেন. ২৬শে জুন থেকে এই ধরনের সংঘর্ষে ক্ষতিগ্রস্তদের সংখ্যা ৬০০ ছাড়িয়েছে.