সি.আই.এ কয়েক বছর ধরে বৈদ্যুতিন ডাক ব্যবস্থার প্রতি নজর রাখত, সারা পৃথিবীতে তথ্য সংগ্রহ করত, লিখেছে বৃটিশ পত্রিকা “গার্ডিয়ান” এডওয়ার্ড স্নোডেনের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যের উদ্ধৃতি দিয়ে. তথ্য সংগ্রহ করা হত প্রতি তিন মাসে বিশেষ কর্মসূচির কাঠামোতে, যে কর্মসূচি মার্কিন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামার প্রশাসনের দ্বারা অনুমোদিত, উল্লেখ করেছে পত্রিকাটি. পত্রিকাটি তার হাতে থাকা একটি গোপন দলিল উদ্ধৃত করে লিখেছে, “এজেন্সি ব্যাপক হারে সংগ্রহ শুরু করে বৈদ্যুতিন ডাক থেকে প্রাসঙ্গিক তথ্যাবলি, এবং মার্কিনী নাগরিক সংক্রান্ত, এবং তাছাড়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত বলে অনুমান করা নাগরিকদের সংক্রান্ত তথ্যাবলি বিশ্লেষণ করে”. পরবর্তীতে সি.আই.এ বিদেশেও তথ্য সংগ্রহ করতে থাকে. পত্রিকাটি উল্লেখ করেছে, সীমিতকরণ প্রসারিত ছিল শুধু চিঠির মর্ম পাঠে. তাছাড়া, প্রাপ্ত সমস্ত তথ্য সংরক্ষিত রাখা হয় বিশেষ মহাফেজখানায়. পত্রিকাটির তথ্য অনুযায়ী, ওয়াশিংটনে এমন কর্মসুচির অস্তিত্ব স্বীকার করা হয়েছে, এ কথা উল্লেখ করে যে, তা বন্ধ করা হয় ২০১১ সালে. মার্কিনী রাষ্ট্রপতির প্রশাসনের প্রতিনিধি শন টার্নার পত্রিকাকে বলেন, “বৈদ্যুতিন ডাকের প্রাসঙ্গিক তথ্যাবলির সংগ্রহ শেষ হয় ২০১১ সালে সঙ্গতির অভাবের জন্য এবং সে সময় থেকে তা পুনরারম্ভ করা হয় নি”.