সিরিয়ার সঙ্ঘর্ষে তেহেরানের হস্তক্ষেপ সম্বন্ধে সৌদি আরবের বিবৃতির উত্তরে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এর-রিয়াদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে সিরিয়ার তত্পর সন্ত্রাসবাদকে সাহায্য করার. এ সম্বন্ধে বলেছেন ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সরকারী প্রতিনিধি আব্বাস আরাগচি. তাঁর কথায়, “সৌদি আরব সিরিয়ায় সন্ত্রাসবাদীদের বিভিন্ন ধরণের হালকা ও ভারী অস্ত্রশস্ত্র জোগাচ্ছে আন্তর্জাতিক বিধানের মান লঙ্ঘন করে”. তিনি আরও উল্লেখ করেন যে, সৌদি আরব বাহরেনে “সশস্ত্র অনুপ্রবেশ” করেছে. এর প্রাক্কালে সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সৌদ আল-ফৈজল মার্কিনী পররাষ্ট্র সচিব জন কেরির সাথে জিদ্দায় মিলিত সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন যে, রাষ্ট্রপতি বাশার আসদের সরকারকে ইরান এবং লেবাননের “হেজবোল্লা” দল যে সাহায্য দিচ্ছে,তাতে তাঁর দেশ “চুপ করে থাকতে পারে না”. আল-ফৈজল আন্তর্জাতিক জনসমাজকে আহ্বান জানিয়েছেন সিরিয়ার শাসনকে যেকোনো অস্ত্র সরবরাহ নিষেধ করার এবং বাশার আসদের শাসনকে বেআইনী হিসেবে ঘোষণা করার. আরাগচি, নিজের তরফ থেকে, জোর দিয়ে বলেন যে, সৌদি আরব “পরিণত হয়েছে সন্ত্রাসবাদীদের সহায়কে, যারা সিরিয়ার জনগণকে হত্যা করছে”. তিনি আশা প্রকাশ করেন যে, সৌদি আরব সিরিয়ায় রক্তক্ষয় বন্ধ করায় সহায়তা করার উদ্দেশ্যে “কনট্যাক্ট গ্রুপের” বিন্যাসে ফিরে আসবে.