রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ বছরের শেষ পর্যন্ত গোলান মালভূমিতে সিরিয়া ও ইস্রাইল-কে বিভাজিত করা এলাকায় শান্তি বাহিনীর অবস্থানের মেয়াদ বাড়িয়েছে, এবং এ বাহিনীকে সুদৃঢ় করার একসারি ব্যবস্থা নিরূপণ করেছে. বৃহস্পতিবার গৃহীত সিদ্ধান্তে, রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ সিরিয়ার বিরোধীপক্ষের কাছে দাবি জানিয়েছে এ অঞ্চলে সামরিক ক্রিয়াকলাপ বন্ধ করার. শান্তি বাহিনীর মোট সৈন্য সংখ্যা সর্বাধিক ১২৫০ জন পর্যন্ত বাড়ানো হবে, যা সিরিয়া ও ইস্রাইলের মাঝে ১৯৭৪ সালের অগ্নি সংবরণের চুক্তির প্রটোকলে অনুমিত. রাষ্ট্রসঙ্ঘে রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি ভিতালি চুরকিন বলেন, “আমাদের জন্য মূলনীতিগত গুরুত্বের বিষয় হয়ে ওঠে সিদ্ধান্তের বয়ানে এ কথা অন্তর্ভুক্ত করা যে, বিভাজনের এলাকায় সশস্ত্র বিরোধীপক্ষের সামরিক সক্রিয়তা যেন না থাকে”. গোলান মালভূমিতে রাষ্ট্রসঙ্ঘের বাহিনীকে সুদৃঢ় করার এবং তার প্রতিরক্ষা ক্ষমতা বৃদ্ধির ব্যবস্থায় অনুমিত আছে যে, “চৌকিগুলিকে অতিরিক্তভাবে মজবুত করা হবে, বাহিনীর টহল নিরাপত্তার সর্বনিম্ন মান পর্যন্ত কমানো হবে, আর সামরিক কর্মীরা আরও গুরুতর অস্ত্রসজ্জা পাবে”.