বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র জেই কার্নি বলেছেন, যে স্নোডেনের ব্যাপারে রাশিয়ার অবস্থান ওয়াশিংটনের কাছে বোধগম্য. কার্নি এই মুহুর্তে মার্কিনী রাষ্ট্রপতির আফ্রিকা সফরের সহচর. তিনি বলেছেন - আমরা রাষ্ট্রপতি পুতিনের সাথে একমত, যে "স্নোডেনের ঘটনা যেন কোনোভাবেই আমাদের দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কে কুপ্রভাব না ফেলে". কার্নি আরও উল্লেখ করেছেন - "আমরা খুব ভালোমতন বুঝতে পারছি, যে গন্তব্যস্থান হিসাবে রাশিয়াকে বেছে নিয়ে মিস্টার স্নোডেন রাশিয়ার জন্য এমন সমস্যা পাকিয়েছেন, বাধ্য হয়েই যার জট খুলতে হবে রাশিয়াকেই"

     ওয়াশিংটন স্নোডেনকে তাদের হাতে প্রত্যার্পণের দাবীতে নাছোড়বাঁধা. যদিও দুই দেশের মধ্যে তত্সংশ্লিষ্ট চুক্তি নেই, তবু ওয়াশিংটন অতীতে বহুবার রাশিয়ার আবেদনক্রমে অপরাধীদের প্রত্যার্পণ করেছে - এই যুক্তিতে রাশিয়ার পক্ষ থেকে প্রতিদানের প্রত্যাশা করছে.

     এডওয়ার্ড স্নোডেন মে মাসে হংকংয়ে পালিয়েছিল. তারপর সে মার্কিনী গোয়েন্দা বিভাগের ইন্টারনেটে নজরদারীর তখ্য ফাঁস করেছিল. আজ পাঁচ দিন ধরে স্নোডেন মস্কোর শেরেমেতেভা-২ বিমান বন্দরের ট্র্যানজিট জোনে রয়েছে, কারণ আমেরিকা তার পাসপোর্ট বাতিল করেছে.