সিরিয়ায় রাশিয়ার সামরিক কর্মী আর নেই – রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রাশিয়ার সামরিক কর্মীরা সিরিয়ার তারতুস শহরে বৈষয়িক-প্রযুক্তিগত সরবরাহের কেন্দ্র ছেড়ে গেছে. এখন রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের কোনো কর্মী এখন সিরিয়ায় নেই. তারতুস কেন্দ্রের স্ট্র্যাটেজিক অথবা সামরিক গুরুত্ব নেই, লন্ডনে প্রকাশিত আরবী আল-হায়াত্ পত্রিকাকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে বলেছেন রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী মিখাইল বগদানোভ. রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক উত্স এ খবর সমর্থন করেছেন ভেদোমস্তি পত্রিকায়. তারতুসে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সামরিক বা বেসামরিক কর্মী নেই, আর সিরিয়ার সৈন্যবাহিনীতে রাশিয়ার সামরিক উপদেষ্টাও নেই, জানান তিনি. প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের উত্স বলেন যে, সিরিয়া থেকে সামরিক কর্মীদের অপসারণের সিদ্ধান্ত গৃহযুদ্ধের পরিবেশে তাদের বিপদে না ফেলার প্রয়াসের সাথে জড়িত. তাছাড়া, স্পষ্ট যে, রাশিয়ার কর্মীদের সাথে জড়িত যেকোনো ঘটনা প্রতিকূল রাজনৈতিক প্রতিধ্বনি তুলবে. এদিকে সোমবার সাইপ্রাসের পররাষ্ট্রমন্ত্রী “রেডিও রাশিয়াকে” প্রদত্ত ইন্টারভিউতে এ সম্ভাবনা বাদ দেন নি যে, প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে রাশিয়ার সাথে যে চুক্তি প্রস্তুত করা হচ্ছে তা অনুযায়ী, রাশিয়ার বিমানবাহিনী সাইপ্রাসের পাফোসে বিমানবন্দর ব্যবহার করতে পারবে. বর্তমানে রাশিয়ার নৌবাহিনীর জাহাজের অধিকার আছে সাইপ্রাসের লিমাসোল বন্দরে ঢোকার রসদ ভরার জন্য. প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের উত্স বলেন যে, এখানে সামরিক ঘাঁটি তৈরীর কথা উঠছে না. রাশিয়া পাফোস বিমানবন্দর ব্যবহার করতে পারবে নিজের সামরিক-পরিবহণ বিমান নামার এবং সার্ভিসের জন্য, তাতে কর্মীদল বদলের জন্য অথবা রাশিয়ার ভূমধ্যসাগরীয় নৌবাহিনীর জন্য ছোট-খাটো যন্ত্রাংশ পৌঁছে দেওয়ার জন্য, আর নৌবাহিনীর জাহাজ লিমাসোল বন্দরে ঢুকতে পারবে.