সিরিয়ার বিরোধীপক্ষের জাতীয় কোয়ালিশন আশা করছে যে, বিদেশ থেকে তাদের অস্ত্র সরবরাহ এ সপ্তাহেই শুরু হবে. এ সম্বন্ধে তুরস্কের “হিউরিয়েট” পত্রিকাকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে বলেছেন তুরস্কে জাতীয় কোয়ালিশনের প্রতিনিধি খালেদ হোইয়া. তাঁর কথায়, সিরিয়ার বিরোধীপক্ষ লেবানন ও ইরাক থেকে অস্ত্র পেতে পারবে না এবং আশা করে যে, তা “সরবরাহ করা হবে সিরিয়ার উত্তর ও দক্ষিণ সীমানা হয়ে”. অস্ত্র সরবরাহ “শুরু হতে পারে এ সপ্তাহেই”, অনুমান করেন হোইয়া. তিনি জানান যে, বিরোধীপক্ষ অন্যান্য অস্ত্রের মধ্যে ট্যাঙ্কবিরোধী অস্ত্র এবং আকাশ প্রতিরক্ষার অস্ত্র পাওয়ার আশা করে. পত্রিকাটি উল্লেখ করেছে যে, বিরোধীপক্ষের প্রতিনিধি সঠিক করে বলেন নি, কোন দেশের মাধ্যমে অস্ত্র সরবরাহ করা হবে. গত শনিবার তথাকথিত “সিরিয়ার মিত্র গ্রুপের” ১১টি দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দোহা সাক্ষাতে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন সশস্ত্র বিরোধী পক্ষকে জরুরী সামরিক সাহায্য দেওয়ার. রাশিয়া এ সিদ্ধান্তের নিন্দা করেছে.