উত্তর আয়ারল্যান্ডে সিরিয়ার সঙ্কট ‘জি-৮’ শীর্ষ সম্মেলনের প্রথম দিনের আলোচ্য তালিকায় একটি মুখ্য স্থান নিয়েছে. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি এই প্রশ্ন শুধু দ্বিপাক্ষিক ভাবে আলোচনার সময়ে ফ্রান্স, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও জাপানের নেতাদের সঙ্গেই তোলেন নি, তিনি এই নিয়ে আলোচনা করেছেন বড় পরিসরেও – ‘জি-৮’ দেশের সমস্ত নেতাদের সম্মিলিত ভাবে অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত সান্ধ্যভোজের সময়েও.

রাশিয়ার পক্ষ থেকে আলোচনার তালিকায় পুতিন ও ওবামার আলোচনা লখ-এর্ন শহরে আয়োজিত অত্যন্ত ঘন সন্নিবদ্ধ আলোচনার সারির মধ্যে ছিল শেষের আগেরটি. কিন্তু এইটি হয়েছিল সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ – কারণ এমনকি সমস্ত নেতাদের উপস্থিতিতে আয়োজিত সান্ধ্যভোজের চেয়েও এই আলোচনার পরিণাম থেকেই মুখ্য ঘোষণা আশা করা হয়েছিল – রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নিয়ে ও অবশ্যই সিরিয়া নিয়েও.

পরিকল্পিত সময়ের চেয়ে এই আলোচনা প্রায় এক ঘন্টা বেশী সময় ধরে হয়েছিল, যা অবশ্যই সাংবাদিক এলাকায় উত্তেজনার সৃষ্টি করেছিল.

বিশ্ব রাজনীতির প্রশ্নাবলী নিয়ে – কোরিয়া উপদ্বীপ এলাকার পরিস্থিতি, আফগানিস্তানে সহযোগিতা, ইরানের সমস্যা নিয়ে – বিশেষ করে সেই দেশে নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ার পরে তার ফলাফল নিয়ে – ওবামা ও পুতিন একত্রে সমর্থন করেছেন যে, তাঁরা সামনের দিকে এগিয়ে যেতে তৈরী রয়েছেন. এমনকি সবচেয়ে স্পর্শকাতর সব ক্ষেত্র নিয়েও. দেখাই যাচ্ছে যে, এই উক্তি করা হয়েছে সবচেয়ে স্পর্শকাতর অর্থাত্ সেই সিরিয়ার প্রসঙ্গে নিয়েই. ভ্লাদিমির পুতিন বুঝতে দিয়েছেন যে, কোন রকমের অনুমানের জায়গাই নেই. মস্কো ও ওয়াশিংটন তাদের অবস্থানের বিষয়ে সমস্ত পার্থক্য থাকা স্বত্ত্বেও, মুখ্য বিষয়ে একমত – সিরিয়ার বিরোধের অবসান হওয়া উচিত্ শুধু রাজনৈতিক পথেই, তাই ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন:

"কিছু বিষয়ে আমাদের অবস্থান এখনও এক জায়গায় নয়, কিন্তু আমরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে হিংসার অবসানে শক্তি প্রয়োগ করতে চাই, সিরিয়াতে হতাহতের সংখ্যা বেড়ে যাওয়া থামিয়ে দিতে চাই, শান্তিপূর্ণ ব্যবস্থা দিয়ে সমস্যার সমাধান করতে চাই, তার মধ্যে জেনেভা শহরে আলোচনা দিয়েও. আমরা সমঝোতায় এসেছি যে, শান্তিপূর্ণ আলোচনা প্রক্রিয়ার দিকে ঠেলা দেবো আর সমস্ত পক্ষকেই উদ্বুদ্ধ করবে একই টেবিলে এসে বসার জন্য, জেনেভাতে সম্মেলনের আয়োজন করে".

আমেরিকার রাষ্ট্রপতি সমর্থন করেছেন যে, ওয়াশিংটন ও মস্কো কেউই শান্তি সম্মেলন নিয়ে যে ধারণা রয়েছে, তা বাদ দিচ্ছে না, তার প্রস্তুতির কাজ চলবে, তাই তিনি বলেছেন:

"আমাদের একটা সামগ্রিক আগ্রহ রয়েছে যে, হিংসার অবসান করার প্রয়োজন রয়েছে, যা সেখানে চলছে, আর তারই সঙ্গে আগ্রহ রয়েছে যাতে তা ব্যবহার ও প্রসার বন্ধ করা সম্ভব হয়. আমরা একই সঙ্গে বলেছি যে, আমরা সমস্ত রকমের প্রচেষ্টাই করব, যা এই বিরোধকে শান্তিপূর্ণ পথে মীমাংসা হতে সাহায্য করে. আমরা আমাদের গোষ্ঠীকে সেই কাজেরই দায়িত্ব দেবো, যাতে পরবর্তী আলোচনা করা যেতে পারে জেনেভা শহরে".

রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা বৃদ্ধি করবে: অর্থনীতির ক্ষেত্রে আন্তর্প্রশাসনিক পরিষদের কাঠামোয় ও বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার কাঠামোর মধ্যে, আর তারই সঙ্গে সামগ্রিক বিপদের সঙ্গেও লড়াই করবে – যেমন সন্ত্রাসবাদ ও সাইবার অপরাধ. এই সদিচ্ছা সেই সমঝোতা পত্রে রয়েছে, যা রাষ্ট্রপতিরা সোমবারে স্বাক্ষর করেছেন. এই দৃষ্টিকোণ থেকে একটি অধ্যায় হতে চলেছে রুশ – মার্কিন শীর্ষ সম্মেলন, যা মস্কো শহরে সেপ্টেম্বর মাসে হবে, ‘জি২০’ সম্মেলনের আগে.

‘জি-৮’ শীর্ষ সম্মেলনের নেপথ্যে সমস্ত দ্বিপাক্ষিক আলোচনাই হয়েছে বিশেষ করে উল্লেখ করার মতো সাধারন পরিবেশে. লখ-এর্ন গলফ কোর্টের মাঝখানে এর জন্য একটা বিশেষ সাদা তাঁবু খাটানো হয়েছিল. কিন্তু এই অনানুষ্ঠানিক পরিবেশ – নেতাদের কোন রকমের টাই না পরা পোষাক, এমনকি জার্মানীর চ্যানসেলার অ্যাঞ্জেলা মেরকেলের ইচ্ছে করেই ঐতিহ্য অনুযায়ী শরীরের উপযুক্ত টাইট জ্যাকেটের বদলে বেশী ঢোলা কোট, কোন ভাবেই কাউকে ভুল বুঝতে দেয় নি এই সম্মেলন নিয়ে. পুতি ও ওবামার মুখ দেখেই বোঝা গিয়েছে কত কঠিন হয়েছে জেনেভা- ২ নিয়ে আলোচনা. তাঁরা সম্মিলিত ভাবে ঘোষণার সময়ে মাত্র দুইবার হেঁসে উঠেছেন. প্রথমে করমর্দনের সময়ে, আর শেষে, যখন এই সাক্ষাত্কারের প্রয়োজন ছিল এক আনন্দময় পরিবেশে শেষ করার.