বিশ্বের একটি অন্যতম বড় বিমান বন্দর ইস্তাম্বুলে গড়া হবে প্রকৃতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে, এই খবর প্রকাশ করা হয়েছে তুরস্কের সংবাদপত্র হুরিয়তে. খবর দিয়েছে টেন্ডার জয়ের পরে এক কোম্পানী, যারা গেজি পার্ক কাটার প্রশাসনিক সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ ঘটার পরে এই কথা জানিয়েছে. তৃতীয় বিমান বন্দর বানাবে একটি দল – চেঙ্গিজ - কোলিন - লিমাক – মাপা – কালিওন. পরিকল্পনা রয়েছে যে, এই বিমান বন্দরে সব ধরনের বিমান নামা ওঠা করতে পারবে ও বছরে পনেরো কোটি মানুষ এটি ব্যবহার করতে পারবেন. হিসাব অনুযায়ী প্রথম যাত্রীদল এটিকে ২০১৬ সালেই ব্যবহার করতে পারবেন.

লিমাক কোম্পানীর বোর্ড অফ ডিরেক্টর্সের চেয়ারম্যান নিহাত ওজদেমির উল্লেখ করেছেন যে, সারা বিশ্বের সমস্ত বিমান বন্দর তাঁরা বিশ্লেষণ করে দেখেছেন ও ইস্তাম্বুলের এই পরিবহন কেন্দ্র সমাজে চমক সৃষ্টি করতে চলেছে. তাঁর কথামতো, নতুন বিমান বন্দর বিশ্বের সবচেয়ে প্রকৃতির কাছাকাছি হবে ও তার উদাহরণ হিসাবে দেখা হয়েছে সিঙ্গাপুরের বিমান বন্দরকে.