রাশিয়ার সংবিধান দিবস উপলক্ষে ক্রেমলিনে এক অনুষ্ঠানে ভাষণ দিতে গিয়ে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন এই কথা বলেছেন. তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, রাশিয়ার জন্য নব্বইয়ের দশক ছিল খুবই দুর্বিপাকে পরিপূর্ণ ও অনেক গভীরেই দেশে রাজনীতি ও অর্থনীতি পরিবর্তিত হয়েছে. তিনি এই বিপর্যয় গ্রস্ত সময় পার হয়ে আসার জন্য সাহস, বীরত্ব ও সহ্য ক্ষমতা প্রদর্শনের জন্য রুশ জনগনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন. তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, রাশিয়ার জন্য প্রাথমিক হল, গণতন্ত্র, মানবিক মূল্যবোধ, মানবাধিকারের প্রতি সম্মান, আইনের প্রাধান্য. তিন বলেছেন দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য প্রয়োজন মানুষের মধ্যে ঐক্য ও প্রত্যেকের দায়িত্ব ও কর্তব্য বোধ. এই গুলি থেকেই সবচেয়ে মহান রাষ্ট্র গঠিত হয়ে থাকে. তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, প্রত্যেক প্রজন্মের ঋণ হল – দেশের মহান ইতিহাসে নিজেদের অবদান রেখে যাওয়া.

তাঁর ভাষণের শেষে তিনি বিশেষ করে বলেছেন যে, আজ এই প্রধান কাজ করার জন্য গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া ও প্রাথমিক ভাবে দেশের প্রজাতান্ত্রিক গঠন কাজ করা দরকার, তার সঙ্গে বাজার অর্থনীতি ও সমস্ত রকমের মানবাধিকার রক্ষারও প্রয়োজন রয়েছে.