রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন স্বাধীন রাষ্ট্রবর্গের দেশগুলির সাথে শরিকানা বৃদ্ধি, শুল্ক সঙ্ঘের ও একক অর্থনৈতিক এলাকার কাঠামোতে ইউরেশীয় অঙ্গীভূতীর গভীরতা সাধন, ২০১৫ সাল নাগাদ ইউরোপীয় অর্থনৈতিক সঙ্ঘ গঠনকে দেশের পররাষ্ট্র নীতির অতি গুরুত্বপূর্ণ প্রাধান্য বলে অভিহিত করেন. রাষ্ট্রপ্রধান ফেডারেল কার্যনির্বাহী সংস্থাগুলির কার্যকলাপের পরিকল্পনা সংক্রান্ত বৈঠকে উল্লেখ করেন যে, রাশিয়ার পররাষ্ট্র নীতির উদ্দেশ্য হল দেশের দীর্ঘকালীন বিকাশ, অর্থনীতির আধুনিকীকরণ, বিশ্ব বাজারে রাশিয়ার ব্যবসার জন্য স্থিতি সুদৃঢ় করা, বিদেশে সাংস্কৃতিক, মানবতাবাদী উপস্থিতি প্রসারের জন্য অনুকূল পরিবেশ গড়ে তোলা. পুতিন বলেন, “এ উপলক্ষে বিশেষ গুরুত্ব ধারণ করে যেমন দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বিকাশ, তেমনই বহুপাক্ষিক কূটনীতির বিভিন্ন রূপ, সর্বপ্রথমে এ হল “রাষ্ট্রসঙ্ঘ”, “ব্রিকস”, “জি-২০”, “জি-৮” এবং শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার কাঠামোতে কাজ চালিয়ে যাওয়া”.