মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র মনে করে যে, ইরানের বাহিনী এবং হেজবোল্লা আন্দোলনের যোদ্ধাদের তরফ থেকে সাহায্য ছাড়া সিরিয়ার সরকারী বাহিনী কুসেইর শহর নিজের নিয়ন্ত্রণে ফিরিয়ে আনতে পারত না. এ সম্বন্ধে ওয়াশিংটনে এক ব্রিফিংয়ে বলেছেন হোয়াইট হাউজের প্রতিনিধি জে কারনি. হোয়াইট হাউজের প্রেস-সার্ভিসের বিবৃতিতে জোর দিয়ে বলা হয়েছে যে, “হেজবোল্লা” এবং ইরানের অবিলম্বে সিরিয়ার ভূভাগ থেকে নিজেদের যোদ্ধাদের অপসারণ করা উচিত্. ওয়াশিংটন তাছাড়া সমস্ত পক্ষকে এমন সব ক্রিয়াকলাপ থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানাচ্ছে, যা বেসামরিক অধিবাসীদের উপর সিরিয়া সঙ্কটের প্রভাবের অবনতি ঘটাতে পারে এবং ঘটিয়েছে, হিংসা তীব্র হয়ে ওঠার ঝুঁকি বাড়াতে পারে. একই সঙ্গে হোয়াইট হাউজ সিরিয়ার কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি করেছে কুসেইরে ক্ষতিগ্রস্ত অধিবাসীদের জন্য আন্তর্জাতিক মানবতাবাদী সাহায্যের নিরাপদ প্রবেশ সুনিশ্চিত করতে. আগে জানানো হয়েছিল যে, সিরিয়ার কর্তৃপক্ষ বুধবার কুসেইর শহরের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণের কথা সরকারীভাবে ঘোষণা করেছিল এবং বিরোধীপক্ষও তা স্বীকার করেছে. কুসেইর – লেবাননের সীমানায় অবস্থিত সিরিয়ার শহর, যা লেবাননের ভূভাগ থেকে সিরিয়ায় বিভিন্ন মালপত্র, সেই সঙ্গে অস্ত্রশস্ত্র সরবরাহের জন্য গুরুত্বপূর্ণ স্ট্র্যাটেজিক ভূমিকা পালন করে.