রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন সোমবার ইয়েকাতেরিনবুর্গে রওনা হচ্ছেন, সেখানে রাশিয়া-ইউরোসঙ্ঘ শীর্ষ সাক্ষাতে অংশগ্রহণ করবেন. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির সহকারী ইউরি উশাকোভ শীর্ষ সাক্ষাতের প্রাক্কালে সাংবাদিকদের বলেন যে, সাক্ষাতে মুখ্য সময় দেওয়া হবে সিরিয়ার পরিস্থিতির প্রতি. তাছাড়া আলোচ্য সূচিতে আছে – ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি, কোরিয়া উপদ্বীপের পরিস্থিতি, সোভিয়েত পরবর্তী এলাকায় বিরোধ এবং অর্থনীতির অবস্থা. শীর্ষ সাক্ষাতের প্রথম দিন – ৩রা জুন বেসরকারী নৈশ-ভোজের সময় আলোচিত হবে বিশ্ব অর্থনীতির অবস্থা, রাশিয়া ও ইউরোসঙ্ঘের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি, “জি-২০” গ্রুপের কার্যকলাপ রাশিয়ার সভাপতিত্ব প্রসঙ্গে. সিরিয়ার পরিস্থিতি আলোচিত হবে প্রথম দিন এবং তা ক্রমানুবর্তিত হবে ৪ঠা জুন. রাশিয়ার পক্ষ তাছাড়া জরুরী আন্তর্জাতিক সমস্যাবলি সম্পর্কে আলোচনার জন্য প্রস্তুত হচ্ছে. উশাকোভ উল্লেখ করেন যে, ইউরোসঙ্ঘের প্রতিনিধিদল যদি সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি বাশার আসদের পদত্যাগের প্রশ্ন উত্থাপন করে, তাহলে রাশিয়ার পক্ষ নিজের স্থিতি আবার ব্যাখ্যা করতে প্রস্তুত. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির সহকারী “ইন্টারফাক্স” সংবাদ এজেন্সিকে বলেন, “এ ব্যাপারে আমাদের নিজস্ব স্থিতি আছে, এবং রাষ্ট্রপতি তা ব্যাখ্যা করবেন – সিরিয়ার খাস জনগণই তা মীমাংসা করবে. বাইরে থেকে কিভাবে আসদ-কে সরানো যায় এবং দেশকে বিশৃঙ্খলার অবস্থায় ছেড়ে দেওয়া যায়? কে এটা করবে? আমরা এটা চাই না”.