কিরগিজিয়ার বিশকেক শহরে সোমবার শুরু হয়েছে যৌথ নিরাপত্তা চুক্তি সংগঠনের অধিবেশন, এখানে যোগ দিতে এসে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি কিরগিজিয়া, কাজাখস্থান, তাজিকিস্থান, আর্মেনিয়া ও বেলোরাশিয়ার রাষ্ট্রপ্রধানদের সঙ্গে বৈঠকের সময়ে নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন, তিনি তাঁর ভাষণে বলেছেন যে, এখানে আফগানিস্তানের পরিস্থিতি কি ভাবে বদল হচ্ছে তা নিয়েও আলোচনা করে দেখা হবে.

 তিনি আশা প্রকাশ করেছেন যে, এই সম্মেলনে অংশগ্রহণকারীরা নিজেদের নিরাপত্তা বজায় রাখার জন্য কার্যকরী পরিকল্পনা করবেন. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি বিশেষ করে উল্লেখ করেছেন যে, যৌথ নিরাপত্তা চুক্তি সংগঠন নিজেদের দায়িত্বের এলাকায় স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য দেখার মতো কাজ করছে. এর জন্য তাঁর বক্তব্য অনুযায়ী এই সংগঠনের রাজনৈতিক ও সামরিক কাঠামো তৈরী করা হয়েছে, তাতে রয়েছে প্রাথমিক ভাবে দ্রুত প্রতিক্রিয়া করার মতো যৌথ শক্তি ও শান্তি রক্ষা বাহিনী.

 পুতিন মনে করিয়ে দিযেছেন যে, এই সংগঠন নিয়মিত ভাবে যৌথ সামরিক মহড়া দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে, গত বছরে সহযোগিতা - ২০১২ হয়েছে আর্মেনিয়াতে ও শান্তি রক্ষী বাহিনী মহড়া দিয়েছে কাজাখস্থানে.

 রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি জানিয়েছেন যে, এই বছরে দ্রুত প্রতিক্রিয়া বাহিনী প্রশিক্ষণ করবে বেলোরাশিয়াতে ও শান্তি রক্ষী বাহিনীর মহড়া হবে রাশিয়ার চেলিয়াবিনস্ক শহরের কাছে চেবারকুল সামরিক ক্ষেত্রে অক্টোবর মাসে.