ইরান মনে করে যে, সিরিয়ার বিরোধীপক্ষকে অস্ত্র সরবরাহে নিষেধাজ্ঞা বাতিল ইউরোসঙ্ঘের সীমানার দিকে সন্ত্রাসবাদী বিপদকে নিয়ে যাবে. এ সম্বন্ধে জানিয়েছে ইরানের “ইরনা” সংবাদ এজেন্সি ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রেস-সেক্রেটারি আব্বাস আরাকচি-র বিবৃতি উদ্ধৃত করে. তিনি উল্লেখ করেন যে, এ নিষেধাজ্ঞার বাতিল ইউরোপে সন্ত্রাসবাদের বিপদ বাড়াবে. পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধির কথায়, ইউরোসঙ্ঘের ক্রিয়াকলাপ সন্ত্রাসবাদের প্রতি ইউরোপীয় রাজনীতির দুমুখো দৃষ্টিভঙ্গী প্রদর্শন করে এবং তা সিরিয়া সম্পর্কে “জেনেভা-২” সম্মেলনের প্রাক্কালে ধ্বংসাত্মক পদক্ষেপ. ৩১শে মের পরে সিরিয়ায় অস্ত্র সরবরাহে ইউরোসঙ্ঘের নিষেধাজ্ঞা আর বলবত্ থাকবে না, যেহেতু সোমবার ইউরোসঙ্ঘের দেশগুলি অস্ত্র সরবরাহে নিষেধাজ্ঞা সম্পর্কে একমতে আসতে পারে নি. ইউরোসঙ্ঘের কূটনীতির প্রধান ক্যাথ্রিন অ্যাশটন বলেছেন যে, এখন ইউরোসঙ্ঘের দেশগুলি এ ব্যাপারে স্বতন্ত্রভাবে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারে. সেই সঙ্গে, তাঁর কথায়, ইউরোসঙ্ঘের সদস্যরা বর্তমান পর্যায়ে সিরিয়ার বিরোধীপক্ষকে সামরিক প্রযুক্তি সরবরাহ শুরু করবে না.