বুশের পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র ইরানে কাজ করছেও তাতে বর্তমানে বাড়তি পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে. আসন্ন সময়ে তা ব্যবহারের জন্য চালু করা হবে বলে খবর দিয়েছেন রসঅ্যাটম সংস্থার প্রধান সের্গেই কিরিয়েঙ্কো এক সাংবাদিক সম্মেলনে. তিনি এই কেন্দ্র হস্তান্তরের সঠিক তারিখ উল্লেখ করেন নি, শুধু উল্লেখ করেছেন যে, এই কেন্দ্রের জন্য প্রাথমিক হচ্ছে নিরাপত্তা. যত প্রয়োজন হবে, ততই এটা আবার করে পরীক্ষা করা হবে, - বলেছেন তিনি.

কিরিয়েঙ্কো ঠিক করে বলেছেন যে, এখন এই বিদ্যুত কেন্দ্রে টার্বাইনের শেষ কাজকর্ম করা হচ্ছে. তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, বুশের পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র এক অতুলনীয় কেন্দ্র, যা প্রথমে তৈরী করা শুরু হয়েছিল জার্মানীর প্রকল্প অনুযায়ী.

এর আগে এই কেন্দ্রের প্রধান নির্মাতা অ্যাটমস্ত্রোইএক্সপোর্ট সংস্থা জানিয়েছিল যে, ইরানের বায়না কারী সংস্থা এই বছরের মে মাসে প্রাথমিক ভাবে দায়িত্বভার নিয়ে নেবে.

পারস্য উপসাগরের তীরে এক হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুত উত্পাদনে সক্ষম বুশের পারমানবিক কেন্দ্র তৈরী করা হয়েছে. সত্তরের দশকে এই কেন্দ্র তৈরী করা শুরু করেছিল জার্মানীর বিশেষজ্ঞরা, আর তারপরে দীর্ঘকাল তা তৈরী বন্ধ ছিল. নব্বইয়ের দশকে এই পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্রের জন্য রাশিয়া অ্যাটমস্ত্রোই এক্সপোর্ট কোম্পানীকে আমন্ত্রণ করা হয়েছিল.