রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সিরিয়ায় মানবতাবাদী করিডর গঠন এবং তার আকাশে উড়ান বিহীন এলাকা প্রবর্তনের উদ্যোগের বিরুদ্ধে মত প্রকাশ করছে. রাশিয়ার কূটনীতি এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণে শুধু রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের অধিকারই স্বীকার করে. এ সম্বন্ধে “ইন্টারফাক্স” সংবাদ এজেন্সিকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে বলেছেন রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী গেন্নাদি গাতিলোভ, ১৬ই থেকে ১৯শে মে নির্ধারিত রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুনের মস্কো সফরের প্রাক্কালে. কূটনীতিজ্ঞের কথায়, “লিবিয়ার পরিস্থিতি দেখিয়েছে যে, নিরাপত্তা পরিষদের সিদ্ধান্ত খুবই ইচ্ছামতো ব্যাখ্যা করা হয়েছে, নির্দিষ্ট রাজনৈতিক লক্ষ্য সাধনের জন্য”. তিনি মনে করিয়ে দেন যে, উড়ান বিহীন এলাকা, যা গঠিত হয়েছিল লিবিয়ার বেসামরিক অধিবাসীদের রক্ষার জন্য, দেশের পরিকাঠামো ভাঙ্গার হাতিয়ার হয়ে উঠেছিল. গাতিলোভ আরও বলেন যে, মস্কোয় আশা করা হচ্ছে যথাসম্ভব তাড়াতাড়ি সিরিয়া সম্পর্কে আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজনের, যা জেনেভা সাক্ষাতের ক্রমানুবর্তন হবে. এ সম্মেলনে রাশিয়ার পক্ষ চেষ্টা করতে চায় “সিরিয়ার সরকার ও বিরোধীপক্ষের প্রতিনিধিরা মিলিতভাবে ২০১২ সালের ৩০শে জুনের জেনেভা ঘোষণাপত্র পূর্ণভাবে পালনের পথ যেন নির্ধারণ করে”, জোর দিয়ে বলেন তিনি. তাছাড়া গাতিলোভ বলেন যে, সিরিয়ার আলেপ্পো শহরে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের ঘটনা তদন্ত করার জন্য সিরিয়া সরকারের আবেদনের প্রতি রাষ্ট্রসঙ্ঘের সচিবালয়ের স্থিতিকে মস্কোয় নিয়মানুবর্তিক নয় বলে অবিহিত করা হচ্ছে. গাতিলোভ বলেন যে, “দামাস্কাসের আবেদন সংক্রান্ত পরিস্থিতির রাজনৈতিকরণ করা হয়েছে”, এবং তিনি এ আবেদনে যথাযথভাবে প্রতিক্রিয়া দেখানোর আহ্বান জানান.