রাশিয়াজুড়ে আজ সবচেয়ে বড় একটি উৎসব পালিত হচ্ছে। নাৎসী জার্মানির বিরুদ্ধে ৬৮ বছর পূর্বে সোভিয়েত আর্মির বিজয় অর্জিত হয়েছিল আজ। আমাদের দেশ তথা পুরো বিশ্ব জন্য নাৎসী বাহিনীর বিরুদ্ধে এক বিরল সম্মান অর্জন ছিলো ওই বিজয়। রাশিয়ার ভ্লাদিভস্তক থেকে কালিনিনগ্রাদ পর্যন্ত প্রতিটি শহরেই এ দিন সামরিক কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়।

তবে বিজয় দিবসের মূল আকর্ষন হচ্ছে মস্কোর প্রাণকেন্দ্র রেড স্কয়ারে ঐতিহ্যবাহী সামরিক কুচকাওয়াজ। যুদ্ধের কথা নিয়ে শোকগাথা গান কয়েক কোটি সোভিয়েত মানুষের অন্তরে গভীর কষ্টের এক সুর বাজিয়ে তোলে।

রেড স্কয়ারে আনা হয় যুদ্ধ বিজয়ের স্মারক। শুরু হয় কুচকাওয়াজ। এতে উপস্থিত হওয়া দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধে অংশ নেয়া মুক্তিযোদ্ধা ও অতিথিদের উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন রুশ রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন। তিনি বলেন, "সম্মানিত রুশ জনগন, শ্রদ্ধেয় মুক্তিযোদ্ধারা, সৈন্যরা সেনা বিমান ও নৌবাহিনীর উর্ধতন কর্মকর্তা আপনাদের সবাইকে বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানাই। ইতোমধ্যে ৬৮ বছর অতিক্রম হয়েছে আমরা বিজয় ছিনিয়ে এনেছি। কিন্তু স্মৃতির পাতায় এখনো ওই সব দিনের কথা উজ্জল হয়ে আছে। আর তা এক প্রজন্ম থেকে অন্য প্রজন্ম, পিতামাতা থেকে সন্তানদের মাঝে এবং হৃদয় থেকে হৃদয়ে ছড়িয়ে পড়ছে। এতো বড় শক্তির পিছনে রয়েছে রাশিয়ার প্রতি অকৃতিম ভালবাসা, ভালবাসা নিজ ঘর, নিকটজন ও আত্বীয়স্বজনের প্রতি।"

বিগত কয়েক দশকের অনেক ত্যাগ আর হারানোর পরেও মহান বিজয় দিবস সর্বদাই আমাদের দেশের প্রতিটি জাতির প্রধান জাতীয় উৎসব হিসেবে গন্য করা হয়। রুশ রাষ্ট্রপতি আরো বলেন, "আমরা চিরকাল মনে রাখবো যে, রাশিয়া অর্থাৎ, সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন নাৎসী বাহিনীর অপচেষ্টা রুখে দেয় এবং শান্তি প্রতিষ্ঠা করে। নিজ মাতৃভূমি রক্ষা করে আমাদের সেনারা স্বাধীন হয়েছে। নিজের কথা না ভেবে তাঁরা ইউরোপে বিজয় এনেছে। চিরদিনের জন্য যা ইতিহাসের অংশ হয়ে থাকবে।"

রেড স্কয়ারে অনুষ্ঠিত হওয়া এবারের কুচকাওয়াজে রুশ ফেডারেশনের সবকটি সামরিক বাহিনীর প্রতিনিধিরা অংশ নেয়। মস্কোর আকাশে রেড স্কয়ারের বুক চিরে যুদ্ধ বিমানের উড্ডয়নের মধ্য দিয়ে শেষ হয় বহু বছরের ঐতিহ্যবাহী এ সামরিক কুচকওয়াজ।