বাংলাদেশে বেআইনীভাবে নির্মিত ভবন ধ্বসে পড়ার ফলে নিহতদের সংখ্যা ৭৮২ জনে পৌঁছেছে, বুধবার জানিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ. ৫৮০ জনেরও বেশি লোকের শবদেহ সনাক্ত করা হয়েছে এবং আত্মীয়-স্বজনকে দেওয়া হয়েছে. এ বিপর্যয়ের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ২৪০০ জনেরও বেশি লোক, তবে তাদের বাঁচানো সম্ভব হয়েছে. ঢাকার উপকণ্ঠে বেআইনীভাবে নির্মিত বহুতলা ভবনটি ধ্বসে পড়েছিল ২৪শে এপ্রিল. তাতে ছিল পোষাক সেলাই কারখানা এবং বাণিজ্য কেন্দ্র. এ ভবনের মালিক মুহম্মেদ সোহেল রানাকে সন্দেহ করা হচ্ছে গাফিলতি, বেআইনী নির্মাণ, এবং মানুষের জীবনের জন্য বিপজ্জনক এ ভবনে শ্রমিকদের কাজ করতে আসতে বাধ্য করার অভিযোগে. তাছাড়া, স্থানীয় তদন্তকারীরা রানার বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ পেশ করার প্রশ্নও অধ্যয়ন করছে. আগে নিহত একজনের স্ত্রী ঢাকার আদালতে মামলার আবেদন করেছিল, যাতে ভবনের মালিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা হয়েছে যে, তার কার্যকলাপের দরুণ লোকেদের জীবন হানি হয়েছে. রানার বিরুদ্ধে যদি হত্যার অভিযোগ পেশ করা হয়, তাহলে তার মৃত্যুদণ্ডও হতে পারে.