0বিশ্বের অর্থনীতিতে অবস্থা যত সঙ্গীণ হয়ে উঠুক না কেন, ২০১২ সালের মে মাসে রাষ্ট্রপতি হিসাবে শপথ নেওয়ার পরে যে সব নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, তা অবশ্যই সম্পূর্ণ ভাবে করা দরকার হবে, ঘোষণা করেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন. আজ তিনি মন্ত্রীসভার সদস্যদের সঙ্গে এক বৈঠকে বসেছেন. তাঁর কথামতো, অনেক উচ্চাকাঙ্ক্ষী লক্ষ্য নিয়ে ধারণা তৈরী করা হয়েছিল, যা জটিল পরিস্থিতিতেই বাস্তবায়িত করতে হবে. পুতিন বিশ্ব অর্থনীতিতে জটিল পরিস্থিতির কথা উল্লেখ করেছেন, যা রাশিয়ার অর্থনীতি বৃদ্ধির হারেও প্রভাব ফেলেছে. তা স্বত্ত্বেও তিনি বিশ্বাস করেন যে, সেই সমস্ত কাজ, যা মে মাসের নির্দেশে উল্লেখ করা হয়েছিল, তা জটিল পরিস্থিতির অজুহাত তৈরী না করেই সম্পন্ন করা সম্ভব. পুতিন মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, ২০১২ সালের ৭ই মে স্বাক্ষরিত হওয়া নির্দেশ গুলিতে ২০১৮ সাল পর্যন্ত দেশের স্ট্র্যাটেজিক লক্ষ্য নির্দেশ করা হয়েছে আর তাতে বাস্তবায়নের জন্য কাজকর্মের পরিকল্পনাও দেওয়া হয়েছে. প্রধান লক্ষ্য হল - রাশিয়ার জনগনের জীবনযাত্রার মানকে উঁচু করা রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাকে প্রয়োজন উপযুক্ত করে তোলার মধ্য দিয়ে, সরকারি কাজের মান উন্নত করা, শ্রমের উত্পাদন হার বৃদ্ধি করা ও বিনিয়োগ সংক্রান্ত সক্রিয়তা বৃদ্ধি করা.