গত ১৫ এপ্রিল বোস্টন ম্যারাথনে বোমা হামলায় জড়িত সন্দেহে গ্রেফতার হওয়া কাজাখস্তানের দুই ছাত্রকে ৩ মে ম্যাসাচুসেটস রাজ্যের ফেডারেল কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। এর অর্থ হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে তদন্ত করে ওই দুই কাজাখের হামলায় জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছে। ১৯ বছর বয়সী দিয়াস কাদিরবায়েভ ও আজমাত তাজাইয়াকোভকে সর্বোচ্চ ৫ বছর কারাদন্ড ভোগ করতে হতে পারে। আগামী ১৪ মে মামলার পরবর্তি শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে।

মার্কিন সরকার নিশ্চিত যে, বোস্টনে বোমা হামলার মূল পরিকল্পনাকীরা হচ্ছে চেচনিয়া বংশোদ্ভূত দুই ভাই তামারলেন সারনায়েভ ও জোখার সারনায়েভ। ২৬ বছব বয়সী বড় ভাই তামারলেন সারনায়েভ গত ১৯ এপ্রিল পুলিশের গুলিতে নিহত হয়। অন্যদিকে ছোট ভাই জোখার সারনায়েভ হামলার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন। এই দুই ভাইয়ের সাথে কাজাখস্তানের দুই শিক্ষার্থীর পরিচয় ঘটে। তাঁরা সবাই ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজিতে পড়াশুনা করতেন।

দুই কাজাখকে অবশ্য বোমা হামলার জন্য আটক করা হয়নি। তাদের বিরুদ্ধে আলামত নষ্টের অভিযোগ রয়েছে। জানা যায়, বোমা হামলার পরে গত ১৮ এপ্রিল দিয়াস কাদিরবায়েভ ও আজমাত তাজাইয়াকোভ জোখার সারনায়েভের বাসা থেকে তাঁর ব্যাগ ও ল্যাপটপ নিয়ে যায় এবং বোস্টন থেকে সামান্য দূরে একটি ডাষ্টবিনে ফেলে দেয়। পরে এফবিাআই’র কর্মকর্তারা ওই ডাষ্টবিন থেকে ব্যাগ ও ল্যাপটন উদ্ধার করে। ব্যাগের ভিতরে বিস্ফোরক দ্রব্যের নমুনা পাওয়া যায় যা বোস্টন হামলায় ব্যবহার করা হয়েছিল।

কাজাখস্তনের দুই শিক্ষার্থীর সন্ত্রাসি কর্মকান্ডে জড়িত থাকার সংবাদ ছড়িয়ে যাওয়ার পর তাদের আত্বীয়স্বজনদের অনেকেই বিশ্বাস করতে পারে নি। আটক দুইজনের বাবা-মা ইতিমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র গেছেন। আজমাত তাজাইয়াকোভের বাবা আমির ইসমাগুলোভ এক বিবৃতিতে বলেন, বোস্টন হামলার সাথে আমার ছেলের কোন যোগসূত্র থাকার সংবাদ আমি বিশ্বাস করি না।

দিয়াস কাদিরবায়েভের আইনজীবি রবার্ট স্তাল বলেন, কাদিরবায়েভের বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। তিনি বলেন, "কাদিরবায়েভ তদন্তের স্বার্থে এফবিআই কর্মকর্তাদের সাহায্য করছিলেন। সারনায়েভেরা যে হামলার সাথে জড়িত সে বিষয়ে কাদিরবায়েভের কোন যোগসূত্র ছিলো না। আদালত আমরা সত্যতা প্রমাণ করবো।"

বোস্টন হামলার সাথে জড়িত থাকার দায়ে আটককারীদের বিরুদ্ধে বেশ কিছু আলামত রয়েছে কাদিরবায়েভের কাছে বলে নিশ্চিত হয়েছেন এফবিআই’র কর্মকর্তারা।

এদিকে আগামী সপ্তাহে কংগ্রেসে বোস্টন হামলার তদন্ত কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা হবে। দুই বছর আগে রাশিয়া তামারলেন ও জোখারের বিষয়ে তথ্য দিলেও কিভাবে এফবিআই, সিআই ও জাতীয় নিরাপত্তা মন্ত্রনালয়ের চোখ ফাঁকি দিয়েছে তারা। একই সাথে যুক্তরাষ্ট্রের সব আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক সংস্থা বোস্টন হামলার প্রধান দুই পরিকল্পনাকারীর বিরুদ্ধে সব ধরণের তথ্যের যাচাই-বাচই করবে।

আর বোস্টন হামলার পর সন্ত্রাস দমন অভিযানে রাশিয়ার সাথে এ বিষয়ে আরো ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৈরী হয়েছে বলে স্বীকার করেছেন মার্কিন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা। ওবামা বলেছেন, "বোস্টন হামলার পর থেকেই রুশরা আমাদের সাথে অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বজায় রেখে চলেছে। আমি সরাসরি রাষ্ট্রপতি পুতিনের সাথে কথা বলেছি। রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি এ বিষয়ে আমার সাথে পূর্ণমাত্রায় সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন।"

যুক্তরাষ্ট্রে একই সাথে সম্ভাব্য আরো সন্ত্রাসী হামলার হুমকি দেয়া হচ্ছে। গত ২ মে ম্যাসাচুসেটস রাজ্য এমন এক হুমকি সংবাদের দায়ে পুলিশ ১৮ বছর বয়সী কেমেরুন দামব্রোজিওকে আটক করেছে। নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে তিনি লিখেছেন “বোস্টন হামলার চেয়েও আরো বেশি মানুষ হত্যা করতে পারতো তাঁরা”।

এটি কি সত্যিই হুমকি ছিলো নাকি শুধুই বক্তব্য তা বলা এখন খুবই কঠিন। তবে দামব্রোজিওকে এখন ২০ বছর জেলহাজতে কাটাতে হবে।