মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসন সিরিয়াতে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে চলেছে, যাতে এই দেশে রক্তক্ষয়ের সবচেয়ে সেরা উপায় বর্তমানে উপস্থিত সমাধান গুলির থেকে বেছে নেওয়া যেতে পারে, বৃহস্পতিবারে মার্কিন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা মেক্সিকো শহরে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই কথা বলেছেন.

তাঁর কথামতো, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে চেষ্টা করা হচ্ছে পরিস্থিতিকে ভালোর দিকে নিয়ে যাওয়ার জন্য ও তা এই দেশের জনসাধারনের জন্য যাতে আরও বিপজ্জনক না হয়, তার ব্যবস্থাও করা হচ্ছে. এর আগে পেন্টাগনের প্রধান চাক হেগেল ঘোষণা করেছিলেন যে, সিরিয়ার বিদ্রোহীদের অস্ত্র সরবরাহ করার বিষয়ে নিজেদের অবস্থান আরও একবার পর্যালোচনা করে দেখছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র. এই প্রসঙ্গে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী উল্লেখ করেছেন যে, এই বিষয়ে শেষ অবধি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় নি, আর তিনি নিজেও এখনও সিদ্ধান্ত নেন নি যে, বিরোধী পক্ষকে অস্ত্র সরবরাহ করাটা বুদ্ধিমানের মতো কাজ হবে কি না. ওবামা নিজের পক্ষ থেকে উল্লেখ করেছেন যে, এই ঘোষণা শুধু রাষ্ট্রপতির অবস্থানকেই পুনরাবৃত্তি করেছে, যা তিনি আজ কয়েক মাস ধরেই নিয়েছেন. “আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে থাকবো” – বলেছেন তিনি.

0২০১১ সালের মার্চ মাস থেকে সিরিয়াতে সরকার ও বিরোধী পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলছে. এই সময়ের মধ্যে এই দেশে বিভিন্ন তথ্য অনুযায়ী মৃত্যু হয়েছে সত্তর হাজার অবধি মানুষের এবং প্রায় পাঁচ লক্ষ মানুষ উদ্বাস্তু হয়েছেন বাধ্য হয়ে. এর আগে ২৫শে এপ্রিল হোয়াইট হাউস ও পেন্টাগন থেকে ঘোষণা করা হয়েছে যে, মার্কিন গুপ্তচর সংস্থার তথ্য অনুযায়ী সিরিয়ার সরকার বেশ কয়েকবার জারিন গ্যাস সমেত রাসায়নিক অস্ত্র প্রয়োগ করে থাকতে পারে.