মস্কো শহরে আগামীকাল পয়লা মের দিনে সবচেয়ে বড় মিছিল হতে চলেছে লেনিন মূর্তির তলা থেকে প্রায় পাঁচ কিলোমিটার দূরে বলশয় থিয়েটারের উল্টো দিকে কার্ল মার্কসের মূর্তির পাদদেশ অবধি মিছিল করে এসে কমিউনিস্ট পার্টির. তাছাড়া শহরের কেন্দ্রীয় রাস্তা ধরে বের হচ্ছে নৈরাজ্যবাদী, জাতীয়তাবাদী ও ক্ষমতাসীন ঐক্যবদ্ধ রাশিয়া দলের লোকরা, শেষোক্ত দল ট্রেড ইউনিয়নের পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস পালন করবে ঠিক করেছে, মিছিলের মধ্য দিয়ে. সব মিলিয়ে হবে সাতটি মিছিল. তবে শহরে এবার থেকে আলাদা করে দেওয়া জমায়েতের পার্ক বা তথাকথিত হাইড পার্ক গুলিতে কোনও রাজনৈতিক দল কিছু করবে বলে জানায় নি. সেখানে মে দিবসে শুধু সঙ্গীতানুষ্ঠান, মেলা ইত্যাদিরই আয়োজন করা হচ্ছে.

সোভিয়েত দেশ পতনের পরে এই দিনের মিছিল নিয়ে বহু রকমের মতামত রয়েছে, তবে ক্ষমতাসীন বা ক্ষমতাহীণ দলের লোকরা কেউই এই দিনে মিছিল করতে বাদ দেয় না. শুধু যাঁরা সোভিয়েত দেশের নাগরিক হিসাবে জীবনের অধিকাংশ কাল কাটিয়েছেন, তাঁদের অনেকেই শান্তি, শ্রম, মে দিবসের শুভেচ্ছা নিয়ে নিজেদের শহরের বাইরের বাড়ী ঘরের কাছের এক ছটাক জমিতে বীজ ও চারা গাছ পুঁতে দিন কাটিয়ে দেন. সন্ধ্যায় মস্কোর বাইরে বহু এলাকাতেই বয়স্ক মানুষরা একসঙ্গে বসে গিটার ও অ্যাকোর্ডিয়ন সহযোগে পুরনো দিনের বিপ্লবের গান গাইবেন ও মনে করবেন যৌবনের দিন গুলির কথা.

সবচেয়ে স্বল্প প্রচারের আলোক পেলেও সারা রাশিয়া ও প্রাক্তন সোভিয়েত দেশ জুড়েই মে দিবসে মনে করা হবে মে দিবসের অঙ্গীকার গুলিকে, যা আজও সারা পৃথিবীতেই অনতিক্রম্য রয়ে গিয়েছে. মানুষের মনে সাম্যের, শান্তির ও মৈত্রীর আশা কোন দিনও নিভে যাবে না.

রেডিও রাশিয়ার পক্ষ থেকে সকলকেই জানাই মে দিবসের অগ্রিম শুভেচ্ছা - ভাল থাকবেন, ভাল রাখবেন....