পিয়ংইয়ংয়ের সাথে “সংলাপের জানালা” এখনও বজায় রয়েছে, উত্তর কোরিয়ার ভূভাগে কেসোন শহরে যৌথ শিল্প সমাহারকে কেন্দ্র করে সম্পর্ক তীব্র হয়ে ওঠা সত্ত্বেও. এ সম্বন্ধে সোমবার বলেছেন দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্র ও বৈদেশিক বাণিজ্য মন্ত্রী ইউন বিওন সে. বেসামরিকীকৃত এলাকার কয়েক কিলোমিটার উত্তরে অবস্থিত কেসোনে যৌথ শিল্প এলাকা গঠিত হয়েছিল ২০০৪ সালে. সেখানে ১২৩টি কারখানায় কাজ করছিল ৮৫০ জন দক্ষিণ কোরিয়ার নাগরিক এবং প্রায় ৫৩ হাজার উত্তর কোরিয়ার নাগরিক. সেখানে উত্পাদিত হচ্ছিল নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র. এ মাসে পিয়ংইয়ং এ শিল্প এলাকার কাজকর্ম স্থগিত রাখে দক্ষিণ কোরিয়ার তরফ থেকে প্ররোচনার অজুহাত দিয়ে. সম্প্রতিকাল পর্যন্ত সেখানে দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মীরা ছিল, কিন্তু সেওল তাদের ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে. সোমবার কেসোন ত্যাগ করে যাবে শেষ ৫০ জন দক্ষিণ কোরিয়ার নাগরিক. এদিকে শিল্প এলাকা এখনও সরকারীভাবে বন্ধ করা হয় নি, এবং সেওল তার কাজকর্ম পুনরারম্ভ হওয়ার আশা ত্যাগ করে নি.