আগামী ২৫শে এপ্রিল রুশ রাষ্ট্রপতি মস্কো সময় বেলা ১২ টা থেকে সারা দেশের মানুষের প্রশ্নের উত্তর দেওয়া শুরু করবেন, সরাসরি টেলিভিশনে. ২০০১ সাল থেকে তিনি আজ অবধি ১০ বার এই রকম ভাবে দেশের মানুষের সঙ্গে তাঁদের নানা রকমের সমস্যা, প্রশ্ন ও মনোভাব নিয়ে কথা বলেছেন. সব থেকে বেশী সময় ধরে প্রায় ৪ ঘন্টা ২৬ মিনিটে ৯০ টি প্রশ্নের উত্তর তিনি দিয়েছিলেন ২০১১ সালে. রবিবার থেকে একটি টেলিফোন ব্যবহার করে দেশের লোক তাঁর জন্য প্রশ্ন জমা করতে শুরু করেছেন, এছাড়া সাইট মাধ্যমেও প্রশ্ন করা যাচ্ছে. জানা গিয়েছে যে, পুতিন সমস্ত রকমের প্রশ্নেরই উত্তর দেবেন আর তার মধ্যে দেশে গণতন্ত্রের সমস্যা, ব্যক্তিগত ভাবে তাঁর বিরোধীদের প্রতি তাঁর অবস্থান, দুর্নীতি প্রসঙ্গে ব্যবস্থা, ব্যবসা, কর আদায়, অবসর ভাতা ইত্যাদি সমস্ত ব্যাপারেই তাঁর মতামত জানা যাবে. 

 সাধারণতঃ, এই ধরনের প্রশ্নোত্তরের পরে ভ্লাদিমির পুতিন কিছু কার্যকরী নির্দেশ ও দায়িত্ব বিশেষ ক্ষেত্র গুলিতে দিয়ে থাকেন.

 এই প্রশ্নোত্তরে পুতিনের বিশ্ব রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়েও অবস্থান জানা যাবে. বৃহত্ আট দেশের নেতাদের মধ্যে একমাত্র পুতিন এই ধরনের জন সংযোগ করে থাকেন ও তা এত দীর্ঘস্থায়ী হয়ে থাকে.