মার্কিনী পররাষ্ট্র সচিব জন কেরি মনে করেন পিয়ংইয়ংয়ের দ্বারা প্রস্তাবিত আলাপ-আলোচনার শর্ত অগ্রহণীয়, জানিয়েছে “ইয়োনহাপ” সংবাদ এজেন্সি. বৃহস্পতিবার সিনেটের বৈঠকে কেরি বলেন যে, অ-পারমাণবিকীকরণের দিকে গুরুতর পদক্ষেপ গ্রহণ ছাড়া উত্তর কোরিয়াকে মানবতাবাদী সাহায্য দাবি করতে তিনি পিয়ংইয়ংকে দেবেন না. কূটনীতিজ্ঞ উল্লেখ করেন যে, কয়েক সপ্তাহ ধরে সামরিক হুমকির পরে আলাপ-আলোচনা চালানোর খাস প্রস্তুতিই ভাল খবর. সেই সঙ্গে তিনি জোর দিয়ে বলেন যে, হুমকি এবং প্ররোচনার পরে সংলাপে ফেরার জন্য উত্তর কোরিয়াকে পুরস্কার দেওয়ার পরম্পরা ভাঙ্গা প্রয়োজন. সেই সঙ্গে কেরি আবার বলেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কোরিয়া উপদ্বীপে উত্তেজনা হ্রাসে বেজিংয়ের প্রচেষ্টার আশা করেন. তাঁর কথায়, বেজিংয়ে সাম্প্রতিক সাক্ষাত্ তাঁকে বিশ্বস্ত করেছে যে, চীনের নেতৃবৃন্দ “উত্তর কোরিয়া সম্পর্কে গভীর উদ্বেগ অনুভব করছে”. চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে যে, বেজিং এ দিকে আন্তর্জাতিক জনসমাজের সাথে কাজ করতে প্রস্তুত.