মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে ম্যাগনিটস্কি তালিকার ১৮ জনের নাম প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র সরকার। যেসব ব্যক্তির নাম তালিকায় আছে তাঁরা রাশিয়া, ইউক্রেন, আজারবাইজান ও উজবেকিস্তানের নাগরিক । ম্যাগনিটস্কি অ্যাক্ট নামে পরিচিত একটি আইনের আওতায় তাদের ওপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে । তবে ওই তালিকায় কোন শীর্ষ আমলার নাম নেই । মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা ওই ১৮ জনের ওপর যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করা ছাড়াও মার্কিন ট্রেজারি তালিকাভুক্ত ব্যক্তিদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করবে এবং যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদেরও তাদের সাথে ব্যবসার ওপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করবে।

শুরু থেকেই কংগ্রেসম্যানরা ওই তালিকায় রাশিয়ার ২৮০ জন আমলাদের নাম অন্তর্ভুক্ত করতে চেয়েছিলেন। এক পর্যায়ে রুশ-মার্কিন সম্পর্কের পুনঃবিবেচনা করে তালিকাকে অপেক্ষাকৃত সংক্ষিপ্ত আকারে প্রকাশ করেছে। তবে এ তালিকা যে আর বাড়ানো হবে না তার কোন নিশ্চয়তা নেই। আর তালিকার অর্ধেক নাম জাতীয় স্বার্থে মার্কিনীরা গোপন রেখেছেন। বিশ্ব রাজনীতিতে রাশিয়া ম্যাগাজিনের সম্পাদক ফেদোর লুকিয়ানোভ বলেন, ‘মার্কিনীদের মধ্যে ঐক্যমত নেই। এক পক্ষ আছেন যারা ম্যাগনিটস্কি তালিকার বিরুদ্ধে ছিলেন এবং চেষ্টা করেছেন তালিকাকে সংক্ষিপ্ত করতে। তবে কংগ্রসের এক পক্ষের মধ্যে বিভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে যারা ম্যাগনিটস্কি বিষয়টি নিয়ে অতিমাত্রায় অবস্থান নিয়েছেন।

সোমবার মস্কো আসছেন মার্কিন রাষ্ট্রপতির জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক সহকারী টম দানিলোন। রুশ-মার্কিন ভবিষ্যত সম্পর্ক নিয়ে মার্কিন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামার বক্তব্য রুশ রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের কাছে পৌঁছে দিবেন তিনি। তবে দুই দেশের নাগরিকদের নিষেধাজ্ঞা তালিকা প্রকাশ করা এ সফরের সার্থকতা এখন প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। তবে যাই হোক, দ্বিপাক্ষিক আলোচনায় তা নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে না বলেই মনে করছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব দিমিত্রি পেসকোভ। তাঁর ভাষায়, সব সময়ে আলোচনার জন্য অনেক বিষয় রয়েছে।